ভারতের ভয়েই অভিনন্দনকে ছেড়েছিল পাকিস্তান, ভোটপ্রচারে দাবি মোদীর
পুলওয়ামার জবাবে বালাকোটে বায়ুসেনার অভিযানের পর গত ২৭ ফেব্রুয়ারি পাক যুদ্ধবিমানকে তাড়া করতে গিয়ে পাক সেনার হাতে‘বন্দি’ হন অভিনন্দন বর্তমান।
modi

পাটনের সভায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ছবি: এএফপি।

সৌজন্য নয়। এমনকি স্বেচ্ছায়ও নয়। বরং মোদীর হুঁশিয়ারিতেই অভিনন্দন বর্তমানকে ছাড়তে বাধ্য হয়েছিল পাকিস্তান। এমনই দাবি করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। রবিবার গুজরাতের পাটন এবং তার পর রাজস্থানের বারমেঢ়ে জনসভা করেন তিনি। দুই সভাতেই অভিনন্দনের প্রসঙ্গ টেনে আনেন মোদী। তাঁর কথায়, ‘‘এমনি এমনি অভিনন্দন বর্তমান ছেড়ে দেয়নি পাকিস্তান। বরং তাঁর হুঁশিয়ারিতেই কাজ হয়েছে।’’ তাঁর দাবি, ‘‘ভয় পেয়ে বায়ুসেনার উইং কমান্ডারকে নিরাপদে ভারতের হাতে তুলে দিয়েছে ইসলামাবাদ।’’

পুলওয়ামার জবাবে বালাকোটে বায়ুসেনার অভিযানের পর গত ২৭ ফেব্রুয়ারি পাক যুদ্ধবিমানকে তাড়া করতে গিয়ে পাক সেনার হাতে‘বন্দি’ হন অভিনন্দন বর্তমান। প্রায় ৬০ ঘণ্টা পাক সেনার কব্জায় থাকার পর অভিনন্দনকে ভারতের হাতে তুলে দেয় পাকিস্তান। সেই ঘটনাকেই এ বার নির্বাচনী প্রচারে হাতিয়ার করলেন প্রধানমন্ত্রী। দেশ যে তাঁর হাতে সুরক্ষিত সে কথা বোঝাতে মোদী বলেন, ভারতের চাপেই পাকিস্তান অভিনন্দনকে ফেরাতে বাধ্য হয়েছে। কেন? মোদীর দাবি, “বিরোধীরা যখন জবাবদিহি চাইতে ব্যস্ত, তখন সাংবাদিক বৈঠক ডেকে পাকিস্তানকে সমঝে দিই আমরা। জানিয়ে দিই, অভিনন্দনকে না ছাড়লে যে কোনও কিছু হয়ে যেতে পারে। আর ফল মারাত্মক হলে তা নিয়ে যেন পাকিস্তান সারা বিশ্বে বলে না বেড়ায় যে মোদী তাদের এই হাল করল।”

অভিনন্দন পাকিস্তানে বন্দি হওয়ার পর ভারত-পাক যুদ্ধের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। সেই সময় মার্কিন সরকারের এক শীর্ষ আধিকারিক বলেছিলেন, ভারত ১২টি ক্ষেপণাস্ত্র পাকিস্তানের দিকে তাক করে রেখেছে। এত দিন এ নিয়ে তেমন উচ্চবাচ্য করেনি নয়াদিল্লি। কিন্তু এ দিন ভোটপ্রচারে কার্যত ওই মার্কিন আধিকারিকের দাবিতে সিলমোহর দিয়ে দিয়েছেন মোদী। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য, “এক মার্কিন আধিকারিক বলেছিলেন ক্ষেপণাস্ত্রের কথা। আমি এখন কিছু বলব না। ভবিষ্যতে সময় এলে এ নিয়ে কথা বলব।” তবে তাঁর দাবি, “ওই মার্কিন আধিকারিক যে বলেছিলেন পরিস্থিতির অবনতি হলে ভারত ওই ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে হামলা চালাতে পারে, সেই দিনই পাকিস্তান অভিনন্দনকে ফিরিয়ে দেবে বলে জানায়।”

আরও পড়ুন: এ বার লুঠ করব, খিদের জ্বালায় হুমকি দিলেন ত্রিপুরার ব্রু উদ্বাস্তুরা

আরও পড়ুন: প্রচার হয় না, তবুও এই গ্রামে ভোট পড়ে ৯৬ শতাংশ!​

এ প্রসঙ্গে পরমাণু অস্ত্রের কথাও টেনে আনেন নরেন্দ্র মোদী। পাকিস্তানকে নিশানা করে বলেন, “এতদিন পরমাণু অস্ত্র নিয়ে খুব হাঁকডাক করত পাকিস্তান। কথায় কথায় বোতাম টিপে দেবে বলে হুমকি দিত। কিন্তু আমাদের কাছে কি পরমাণু অস্ত্র নেই? দীপাবলিতে ফাটাবো বলে সেগুলো তুলে রেখেছি নাকি?” পূর্বতন ইউপিএ সরকারের ঢিলেমিতেই পাকিস্তান এত বেড়েছিল বলেও দাবি করেন তিনি।

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত