রাজ্যসভা থেকে পদত্যাগ করলেন তৃণমূল সাংসদ মিঠুন চক্রবর্তী। সোমবার তিনি রাজ্যসভার চেয়ারম্যানের কাছে তাঁর পদত্যাগ পত্র পাঠিয়ে দেন। পদত্যাগের জন্য তিনি অসুস্থতাকে কারণ হিসেবে দেখিয়েছেন।

রাজ্যসভায় নির্বাচিত হওয়ার পর হাতে গোনা কয়েকদিন সংসদে গিয়েছিলেন মিঠুন চক্রবর্তী। পরে অর্থলগ্নি সংস্থার অনিয়ম নিয়ে তদন্তের সূত্রে সিবিআই জিজ্ঞাসাবাদ করার পর কার্যত আর সংসদমুখো হননি তিনি। দফায় দফায় চিঠি পাঠিয়ে ছুটি নিয়েছেন। তা ছাড়া অসুস্থও হয়ে পড়েন। এ বার পাকাপাকি ভাবে রাজ্যসভা থেকে ইস্তফা দিলেন মিঠুন। জল্পনা ছিল এই সপ্তাহের গোড়ায় সংসদে গিয়ে ইস্তফাপত্র দিতে পারেন তিনি। কিন্তু একেবারে সপ্তাহের শুরুতেই তিনি ইস্তফা দিয়ে দিলেন। তৃণমূল সূত্রে বলা হচ্ছে, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জানিয়েই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মিঠুন। রাজ্যসভায় তাঁর মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ২০২০ সালের এপ্রিলে। মিঠুনের জায়গায় কাকে পাঠাবেন তা এখনও মমতা ভাবেননি বলেই তৃণমূল সূত্রে খবর।

আরও পড়ুন: বিরোধী বৈঠকে যোগ দিতে মমতা আজ দিল্লিতে, শেষ লগ্নে সরে দাঁড়াল সিপিএম

দলের সঙ্গে বিভিন্ন চিটফান্ড সংস্থার নাম জড়ানোর পর থেকেই তৃণমূলের সঙ্গে দূরত্ব বাড়াতে শুরু করে মিঠুন চক্রবর্তী। তাতে তাঁর নামও জড়িয়ে যায়। এরপরেই রাজনীতির সঙ্গে সংসর্গ রাখা বন্ধ করে দেন তিনি।