ছেলে ঔরঙ্গজেবের হত্যার বদলা নেওয়ার জন্য সেনাবাহিনীকে ৭২ ঘণ্টা সময় দিয়েছিলেন বাবা। বুধবার কাশ্মীরের সেই নিহত সেনা ঔরঙ্গজেবের বাড়িতে গিয়ে ষড়যন্ত্রীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিলেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। তাঁর কথায়, ‘‘ঔরঙ্গজেবের পরিবার গোটা দেশের কাছেই অনুপ্রেরণা।’’

পুঞ্চের প্রত্যন্ত গ্রাম সালানিতে বাড়ি সেনাকর্মী ঔরঙ্গজেবের। ইদের ছুটিতে বাড়ি ফেরার সময় গত ১৪ জুন তাঁকে অপহরণ করা হয়ে‌ছিল। গুলি চালিয়ে মারার আগে তাঁকে জেরা করেছিল জঙ্গিরা। কিন্তু ঔরঙ্গজেব হত্যায় কারা জড়িত? তদন্তকারীদের ধারণা, হত্যায় জড়িত রয়েছে পাক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই। ঔরঙ্গজেবকে মারার জন্য তারাই লস্কর-ই-তৈবাকে নির্দেশ দিয়েছিল।

এর আগে নিহত সেনা ঔরঙ্গজেবের বাড়ি গিয়েছিলেন সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত। বুধবার ঔরঙ্গজেবের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে বেশ কিছুক্ষণ সময় কাটান সীতারামন।

আরও পড়ুন: কেন রাষ্ট্রপতি নয়, রাজ্যপালের শাসন জম্মু কাশ্মীরে

আরও পড়ুন: রাজ্যপাল শাসনেই আমাদের সুবিধা, বললেন কাশ্মীরের পুলিশ প্রধান

এ দিকে কশ্মীরে রাজ্যপালের শাসন জারি হওয়ায় নাকি সতর্ক দৃষ্টি রাথছে আইএসআই। সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত জানিয়েছেন, রাজ্যপালের শাসন জারি হলেও সেনা অভিযানে তার প্রভাব পড়বে না। তিনি বলেছেন, ‘‘সেনা অভিযান আগেও হয়েছে। রমজানের জন্য তা সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয়েছিল। কিন্তু সেই সুযোগে জঙ্গিরা সক্রিয় হয়ে ওঠায় নতুন করে সেনা অভিযান শুরুর সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে।’’ এদিকে বুধবার সকালে পুলওয়ামার ত্রাল এলাকায় নিরাপত্তাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে পাঁচ জৈশ জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে।