আগামী ছ’মাসে কত প্রকল্প উদ্বোধনের জন্য তারা তৈরি, রাজ্যগুলোর কাছে তার তালিকা চেয়ে পাঠিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর দফতর। লক্ষ্য, লোকসভা
ভোটের আগে নরেন্দ্র মোদীর হাতে যতগুলি সম্ভব প্রকল্পের উদ্বোধন করে। অন্য মন্ত্রীদেরও এ জন্য পাঠান হবে রাজ্যে-রাজ্যে।

কিন্তু এ সব প্রকল্পের অনেকগুলিই শুরু হয়েছে মোদী ক্ষমতায় আসার আগে। এখন মোদী ও তাঁর মন্ত্রীরা ঘটনা করে সেগুলিরও উদ্বোধন করছেন। অথচ স্থানীয় বিরোধী নেতাদের সেখানে ডাকাই হচ্ছে না। মোদী একাই সব কৃতিত্ব নিচ্ছেন! আজ লোকসভায় এ নিয়েই ফোঁস করল কংগ্রেস। রাহুল গাঁধী-ঘনিষ্ঠ নেতা জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া আজ লোকসভায় অভিযোগ করেন, সম্প্রতি মধ্যপ্রদেশে এমনই এক প্রকল্প উদ্বোধনে তাঁকে ডাকাই হয়নি। অথচ সেখানকার সাংসদ তিনি। সেই অনুষ্ঠানে মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিংহ চৌহান যেমন ছিলেন, তেমনই মোদী সরকারের মন্ত্রী নিতিন গডকড়ীও ছিলেন। কংগ্রেসের মল্লিকার্জুন খড়্গেও বলেন, সব প্রকল্পেই এমনটা করা হচ্ছে।

সিন্ধিয়া-খড়্গে যখন অভিযোগ করছেন, তখন সভায় হাজির খোদ গডকড়ী। ঠেলায় পড়ে উঠে দাঁড়িয়ে তিনি জানান, বিষয়টি তিনি আগেই খোঁজ নিয়েছেন। রাজ্য প্রশাসনের তরফেই ভুলটা হয়েছে। তবু অনুষ্ঠানটি যে হেতু তাঁর মন্ত্রকের অধীনস্থ ছিল, তাই তিনি ক্ষমা চাইছেন। কংগ্রেসের প্রশ্ন, গডকড়ী না হয় ক্ষমা চাইলেন। কিন্তু মোদী কি কোনও দিন ক্ষমা চাইবেন?