৭৭ দিন হল এনআরসির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক ঘোষণা করেছিল, তালিকা প্রকাশের ১২০ দিনের মধ্যে নাম বাদ পড়া ব্যক্তিদের আদালতে আবেদন জানাতে হবে। কিন্তু কার্যত ‘অভিভাবকহীন’ এনআরসি দফতর নাম বাদ পড়ার কারণ জানিয়ে চিঠি বিতরণ শুরুই করতে পারল না। এই চিঠি হাতে না পেলে আদালতে আবেদনের কোনও সুযোগ নেই। 

এনআরসির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করার দায়িত্ব সেরে কো-অর্ডিনেটর প্রতীক হাজেলা নিজেই বদলি নিয়ে মধ্যপ্রদেশে চলে গিয়েছেন। তাঁর জায়গায় হিতেশ দেবশর্মাকে কো-অর্ডিনেটর নিযুক্ত করে সরকার। ইতিমধ্যে এনআরসি নিয়ে ফেসবুকে হিতেশবাবুর বিভিন্ন সাম্প্রদায়িক মন্তব্য ছড়িয়ে পড়ে। ফলে হিতেশবাবুর নিযুক্তি বাতিলের দাবি ওঠে। দফতর সূত্রে খবর, ১১ নভেম্বর হিতেশবাবুর দায়িত্ব নেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে মুখ্যসচিব আপাতত হিতেশবাবুকে কাজে যোগ দিতে নিষেধ করেন। এর পরেই ছেলের বিয়ের কারণে ছুটিতে চলে গিয়েছেন হিতেশ দেবশর্মা। এনআরসি দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, এই সময়ের মধ্যে নতুন কাউকে কো-অর্ডিনেটরের দায়িত্ব দেওয়ার জন্য খুঁজছে রাজ্য। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক জানিয়েছিল, আবেদন করার ১২০ দিনের মধ্যে ফরেনার্স ট্রাইব্যুনাল মামলার নিষ্পত্তি করবে। তাই আগের ১০০ ট্রাইব্যুনালের পাশাপাশি আরও ২০০ ট্রাইব্যুনাল গড়ে সেখানে বিচারক নিয়োগের কাজও হয়ে গিয়েছে। তাঁরা মাসে অন্তত ৮৫ হাজার টাকা (আইনজীবীদের ক্ষেত্রে, অবসরপ্রাপ্ত আমলারা বেতন পাবেন শেষ বেতনক্রম অনুসারে) করে বেতনও পাচ্ছেন। সংশয়ে কাটাচ্ছেন এনআরসিছুট ১৯ লক্ষাধিক মানুষ।

আরও পড়ুন: তুতো বোনকে বিছানায় হাত-পা বেঁধে ধর্ষণ করল দাদা!