• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

করোনা নিয়েও রাজনীতি করছে বিজেপি, অভিযোগ

bjp
প্রতীকী চিত্র

করোনা-মোকাবিলায় দরকার ছিল কেন্দ্র-রাজ্য কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করা। তার বদলে অ-বিজেপি রাজ্যগুলিকে কাঠগড়ায় তুলে নরেন্দ্র মোদীর সরকার রাজনৈতিক ফায়দা তোলায় ব্যস্ত বলে অভিযোগ বিরোধী শিবিরের। 

প্রথমে অভিযোগ উঠেছিল, মধ্যপ্রদেশে কমল নাথের সরকারের গদি ওল্টাতে গিয়ে লকডাউন জারি করতেই দেরি করেছে কেন্দ্র। প্রায় দেড় মাস পরে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, দেশে করোনা-সংক্রমণ শুরুর পরেও আমদাবাদে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সম্বর্ধনায় স্টেডিয়াম ভর্তি লোক জড়ো করা হয়েছিল। তার ফলেই সে শহরে করোনা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গিয়েছে কি না, তা নিয়ে তদন্তের দাবি তুলেছে কংগ্রেস। গুজরাতে করোনা-মৃত্যুর ৮৭ শতাংশই আমদাবাদে। তাই শনিবার থেকে ৭ দিন শহর পুরোপুরি ‘শাটডাউন’ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে শেষ ভিডিয়ো-বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, কোনও রাজ্যে যদি কোভিড-পজ়িটিভের সংখ্যা বেশি হয়, তা হলে তা রাজ্যের ব্যর্থতা বলে ধরা হবে না। আবার কম হলেও তা সাফল্য ধরা হবে না। কিন্তু কার্যক্ষেত্রে পশ্চিমবঙ্গ বা মহারাষ্ট্রে সংক্রমণ বা মৃত্যুর হার বাড়লেই পুরো দায় রাজ্যের ঘাড়ে চাপাচ্ছে বিজেপি। 

আরও পড়ুন: ১০০ মাইল হাঁটার ক্লান্তিতেই কালঘুম, রেললাইনে পড়ে রইল বাসি রুটির টুকরো

দেশে ফেরাতে টাকা কেন, প্রশ্ন রাহুলের

পশ্চিমবঙ্গে কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক দল পাঠানোর পিছনেও রাজনৈতিক উদ্দেশ্য ছিল বলে তৃণমূলের অভিযোগ। যদিও কেন্দ্রের দাবি, এর ফলেই সে রাজ্যে করোনা-আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যায় স্বচ্ছতা এসেছে। বিরোধীদের পাল্টা প্রশ্ন, জাতীয় স্তরের কেন্দ্র যে পরিসংখ্যান দিচ্ছে, তা কতখানি স্বচ্ছ? গোটা দেশে নমুনা-পরীক্ষা কম হচ্ছে বলেই আক্রান্তের সংখ্যা অনেক কম দেখাচ্ছে। তার দায় কে নেবে? অ-বিজেপি মুখ্যমন্ত্রীদের অভিযোগ, কেন্দ্র রাজ্যগুলিকে কোনও আর্থিক সাহায্য করছে না। উল্টে একতরফা ভাবে সিদ্ধান্ত নিচ্ছে, কোথায় গ্রিন জ়োন, কোথায় রেড জ়োন। আজ রাহুল গাঁধী বলেন, “প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করব, তিনি মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বসের মতো কথা না-বলে সহকর্মীর মতো কথা বলতে শুরু করুন।”

(অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণছবিভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকাকোন দিনকোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।)

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন