সভাপতি পদে অনিশ্চয়তা বজায় রেখেই রাজ্য ধরে ধরে বৈঠক শুরু করলেন রাহুল গাঁধী। উত্তরপ্রদেশের সব জেলা কমিটি ভেঙে সংগঠনকে ফের সাজানোর  প্রক্রিয়া শুরু করলেন প্রিয়ঙ্কা গাঁধী বঢরাও।

আজ সকালে কংগ্রেসের এক শীর্ষস্থানীয় নেতা বলেন, ‘‘খুব শীঘ্র ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক ডেকে রাহুলকে সভাপতি থাকার জন্য অনুরোধ করা হবে। একান্ত তিনি রাজি না হলে বিকল্প নিয়ে কথা হবে।’’ দুপুরে কংগ্রেসের নেতারা জানান, রাহুল রাজ্য ধরে ধরে বৈঠক করতে রাজি। আজ থেকেই তা শুরু হবে। দুপুরে কিছু ক্ষণের জন্য সংসদে আসেন রাহুল। ছত্তীসগঢ়ের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। সূত্রের খবর, এ সপ্তাহেই রাহুল কয়েকটি রাজ্যের নেতাদের সঙ্গে সাংগঠনিক আলোচনা করবেন। 

আজ প্রিয়ঙ্কা ও জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার প্রস্তাবের ভিত্তিতে উত্তরপ্রদেশের সব জেলা কমিটিও ভেঙে দিয়েছে কংগ্রেস। সংগঠনের দায়িত্বে থাকা নেতা কে সি বেণুগোপাল এ নিয়ে বিবৃতি প্রকাশ করেছেন। কিন্তু সভাপতি হিসেবে রাহুল গাঁধীর বদলে সে সিদ্ধান্ত নিয়েছে ‘এআইসিসি’। জানানো হয়েছে, জেলা কমিটিগুলি ভেঙে সামনের উপনির্বাচনের জন্য দুই সদস্যের টিম তৈরি হবে। ভোটে যাঁদের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগ রয়েছে, তা খতিয়ে দেখে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিতে তিন জনের কমিটি গড়া হবে। পূর্ব উত্তরপ্রদেশের সংগঠনে খোলনলচে বদলাতে অজয় কুমার লাল্লু দায়িত্ব পেয়েছেন। কংগ্রেসের সূত্রের খবর, পরে প্রদেশ কমিটিও ভেঙে দিয়ে নতুন করে সংগঠনকে সাজানো হতে পারে। প্রিয়ঙ্কা এ বার উত্তরপ্রদেশের সফর শুরু করবেন। তিনি স্থির করেছেন, নতুন কমিটিতে অন্তত ৫০% নেতার বয়স হবে চল্লিশের নীচে। ৩৩% মহিলা ঠাঁই পাবেন কমিটিতে। অন্য রাজ্যেও এই পথ নেওয়া হবে।

এবার শুধু খবর পড়া নয়, খবর দেখাও।সাবস্ক্রাইব করুনআমাদেরYouTube Channel - এ।