দাগী খুনের আসামী তিনি। গিয়েছিলেন কুম্ভমেলায় স্নান করতে। উদ্দেশ্য ছিল কুম্ভমেলায় পূণ্যস্নান করে সব পাপ ধুয়ে ফেলা। স্নান হল, কিন্তু ঘরে ফেরা হল না। মেলার ওই ভিড়ে মধ্যেই ওই সিরিয়াল কিলারকে গ্রেফতার করে উত্তরপ্রদেশের পুলিশ। তাঁর কাছ থেকে একটি কুঠারও উদ্ধার হয়েছে, যাতে লেগেছিল রক্তের দাগ।

খুনের অভিযোগে ধৃত ওই দুষ্কৃতির নাম কালুয়া প্যাটেল। ৩৮ বছরের কালুয়া উত্তরপ্রদেশের লালাপুর এলাকার বাসিন্দা। নিজের কদাকার চেহারা নিয়ে লোকজনের রসিকতা একদম সহ্য করতে পারত না কালুয়া। তাঁর চেহারা নিয়ে কেই রসিকতা করলেই তাঁকে খুন করে ফেলত সে। গত বছরে ১০ জনকে খুন করার কথাও পুলিশি জেরার মুখে স্বীকার করেছে সে।

কালুয়াকে জেরা করে পুলিশ জানতে পেরেছে, মূলত ফুটপাতে শুয়ে থাকা শ্রমিকদের খুন করত সে। এ বছর ১০ জানুয়ারি ত্রিবেণী দর্শন রোডে শুয়ে থাকা এক শ্রমিকদের খুন করেছে। ১৩ জানুয়ারি উদাসীন আখড়ার বাইরেও এক জন খুন হয় তার হাতে। 

আরও পড়ুন: এ দেশে পাওয়া যাচ্ছে সোনায় মোড়া আইসক্রিম! জানেন কত দাম

ইলাহাবাদ পুলিশের সিনিয়র সুপারিনটেন্ডেন্ট নীতিন জৈন জানিয়েছেন, জেরার সময় একের পর এক খুন করার কথা স্বীকার করেছে সিরিয়াল কিলার কালুয়া। ওই পুলিশ অফিসার বলেছেন,‘‘গত ছয় মাস ধরে আমরা এক সিরিয়াল কিলারকে খুঁজছিলাম। মেলায় কুঠার হাতে এক ব্যক্তিকে উদ্দেশ্যহীন ভাবে ঘুরতে দেখে সন্দেহ হয় আমাদের। তার পরই গ্রেফতার করা হয় তাঁকে।’’ তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করে আরও তথ্য জানার চেষ্টা করছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: প্রজাতন্ত্র দিবসের পতাকা থেকে জন্মাবে গাছ

 

(দেশজোড়া ঘটনার বাছাই করা সেরাবাংলা খবরপেতে পড়ুন আমাদেরদেশবিভাগ।)