নিলামে উঠতে চলেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানির প্রভিডেন্ট ফান্ডের সার্টিফিকেট। সেটি থেকে যা টাকা উঠবে, তা যাবে স্মৃতির নিয়ন্ত্রণে থাকা কেন্দ্রীয় নারী ও শিশুকল্যাণ দফতরের তহবিলে, যা মহিলা কারিগরদের জন্য কাজে লাগানো হবে। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে বিষয়টি সামনে এসেছে।

কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গাঁধীর কাছ থেকে অমেঠী ছিনিয়ে সম্প্রতি দ্বিতীয় বারের জন্য নরেন্দ্র মোদীর মন্ত্রিসভায় জায়গা পেয়েছেন স্মৃতি ইরানি। তবে দীর্ঘ লড়াইয়ের পর এই জায়গায় পৌঁছেছেন তিনি। টেলিভিশনের ‘তুলসী’ হওয়ার আগে নয়ের দশকে মুম্বইয়ের বান্দ্রায় ম্যাকডোনাল্ডের একটি বার্গার জয়েন্টে চাকরি করতেন স্মৃতি। তখনও বিয়ে হয়নি তাঁর। তাই স্মৃতি মলহোত্র ছিলেন। সেখানে মাসে ১৮০০ টাকা করে বেতন পেতেন তিনি। টেবিল পরিষ্কার ও মেঝে ঝাঁট দেওয়া ছিল তাঁর রোজকার কাজ।

সেখানে কাজ করতে করতেই একতা কপূরের নজরে পড়ে যান স্মৃতি। ‘কিউঁ কি সাস ভি কভি বহু থি’ সিরিয়ালে অভিনয়ের সুযোগ পেয়ে যান। বাকিটা ইতিহাস। টেলিভিশনে জনপ্রিয় হওয়ার পর আর প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা তুলতে যাননি স্মৃতি। এত দিন ধরে সেই টাকা পড়েছিল সরকারের ঘরে। সম্প্রতি তাঁর সেই প্রভিডেন্ট ফান্ডের সার্টিফিকেটটি হাতে পায় মুম্বইয়ের কটন টেক্সটাইল এক্সপোর্ট প্রমোশন কাউন্সিল। সেটিকে নিলামে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। বিষয়টি নিয়ে চারদিকে হইচই পড়ে গেলেও, এখনও পর্যন্ত তা নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি স্মৃতি ইরানি।

আরও পড়ুন: ৬০ হাজার কোটির ‘দামি’ নির্বাচনের সাক্ষী থাকল ভারত!​

আরও পড়ুন: বিহারে এনডিএ নেতাদের ইফতার পার্টি নিয়ে কটাক্ষ, গিরিরাজকে ভর্ৎসনা করলেন অমিত​