• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

আজ শুনানি নির্ভয়া মামলার

convicts
নির্ভয়া কাণ্ডের চার দণ্ডিত। —ফাইল চিত্র

নির্ভয়ার চার ধর্ষককে আলাদা আলাদা ফাঁসি দেওয়ার আবেদন জানিয়ে আজ সুপ্রিম কোর্টে গেল কেন্দ্র। এই আপিলের প্রেক্ষিতে চার দণ্ডিতকে নোটিস জারি করেছে সুপ্রিম কোর্ট। একই সঙ্গে শীর্ষ আদালত সংশ্লিষ্ট সব পক্ষকে অনুমতি দিয়েছে, যাতে তারা দায়রা আদালতে নতুন করে ফাঁসির তারিখের জন্য আবেদন করতে পারে।

গত ৫ ফেব্রুয়ারি একই আবেদন নিয়ে দিল্লি হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিল কেন্দ্র। সেই আর্জি খারিজ করে দিয়ে কোর্ট বলেছিল, দিল্লি প্রিজ়ন ম্যানুয়ালে স্পষ্ট বলা রয়েছে যে, একই অপরাধে দণ্ডিত একাধিক ব্যক্তির মৃত্যু পরোয়ানা জারি হলে তাদের একই সঙ্গে ফাঁসি দিতে হবে। তাই নির্ভয়ার চার ধর্ষক-খুনিকে আলাদা আলাদা করে ফাঁসি দেওয়া যাবে না। একই সঙ্গে আদালত তখন দণ্ডিতদের সাত দিন সময় দিয়ে বলেছিল, সাত দিনের মধ্যে প্রাণ বাঁচানোর জন্য বাকি সব আইনি পথ খতিয়ে দেখতে পারে তারা। এই সাত দিনের মধ্যে আর মৃত্যু পরোয়ানাও জারি করা যাবে না। 

আজ সেই সাত দিনের সময়সীমা শেষ হল। এর মধ্যে কোনও দণ্ডিতই কোনও আইনি পদক্ষেপ করেনি। তবে আজ এক দণ্ডিত বিনয় শর্মার আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টে রাষ্ট্রপতির সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করেছেন। বিনয়ের প্রাণভিক্ষার আর্জি খারিজ করে দিয়েছিলেন রামনাথ কোবিন্দ। আজ সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি আর ভানুমতীর নেতৃত্বাধীন তিন বিচারপতির বেঞ্চে সেই মামলার শুনানি হয়। কেন্দ্রের আইনজীবী তুষার মেহতা জানান, বিনয় ছাড়া অক্ষয় ঠাকুর ও মুকেশ সিংহ ইতিমধ্যে সর্বশেষ পদক্ষেপ হিসেবে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আর্জি জানিয়েছে। এবং তাদের সেই আর্জি খারিজও হয়েছে। কিন্তু আর এক অভিযুক্ত পবন গুপ্ত এখনও প্রাণভিক্ষার আর্জি জানায়নি। ফলে শেষ মুহূর্তে তার প্রাণভিক্ষার আর্জি জানিয়ে ফের ফাঁসি পিছিয়ে দিতে পারেন পবনের আইনজীবী। সলিসিটর জেনারেলের এই সওয়াল শুনে বিচারপতি আর ভানুমতি, বিচারপতি অশোক ভূষণ এবং বিচারপতি এ এস বোপান্নার বেঞ্চ দণ্ডিতদের নোটিস পাঠায়। এবং সংশ্লিষ্ট সবাইকে জানিয়ে দেয়, নিম্ন আদালতে নতুন মৃত্যু পরোয়ানার জন্য ফের আবেদন করা যাবে।

আরও পড়ুনফল স্পষ্ট হতেই সোশ্যাল মিডিয়ায় হাস্যরসের সুনামি, মিম-কার্টুন-প্যারোডিতে ভরল দেওয়াল

শীর্ষ আদালতের এই নির্দেশের পরেই দিল্লির দায়রা আদালতে নির্ভয়ার মা-বাবা আশাদেবী ও বদ্রীনাথ সিংহ আর্জি জানিয়েছেন, দণ্ডিতদের ফের মৃত্যু পরোয়ানা জারি করা হোক। তাঁদের আবেদন পেয়ে দায়রা আদালতও দণ্ডিতদের নোটিস পাঠিয়েছে। তিহাড় জেল কর্তৃপক্ষ দায়রা আদালতে জানান, হাইকোর্টের নির্ধারিত গত সাত দিনে কোনও আইনি পদক্ষেপই করেনি দণ্ডিতরা। আগামিকাল এই মামলার শুনানি।

দণ্ডিত বিনয় শর্মার আইনজীবীর দাবি, ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে তাড়াহুড়ো করে তাঁর মক্কেলের প্রাণভিক্ষার আর্জি খারিজ করেছেন রাষ্ট্রপতি। তা ছাড়া, দিল্লি সরকার ও কেন্দ্রীয় সরকারের লাগাতার ফাঁসির দাবিও রাষ্ট্রপতির সিদ্ধান্তকে আচ্ছন্ন করেছিল। তাই সেই সিদ্ধান্ত বাতিল করা হোক। এর আগে আর এক দণ্ডিত মুকেশ সিংহ রাষ্ট্রপতির সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আদালতে গেলেও তা খারিজ হয়।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন