• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

দোষ স্বীকার করেছে তাহির, দাবি পুলিশের

Tahir Hussain
তাহির হুসেন

সিএএ-বিরোধী বিক্ষোভের সময়ে উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে সংঘর্ষে উস্কানি দেওয়ার কথা স্বীকার করে নিয়েছে আম আদমি পার্টি থেকে সাসপেন্ড হওয়া কাউন্সিলর তাহির হুসেন। দিল্লি পুলিশের তদন্ত রিপোর্টে এই দাবি করা হয়েছে। তাহির অবশ্য আগেই অভিযোগ করেছিল, পুলিশ তাঁর সম্পর্কে অসত্য কথা বলছে। দিল্লিতে গোষ্ঠী সংঘর্ষের তদন্তের গতিপ্রকৃতি নিয়ে অতীতে সমালোচিত হয়েছে পুলিশ। তার মধ্যেই তাহিরকে নিয়ে নতুন দাবি সামনে আনল তারা। 

এ বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে দিল্লিতে গোষ্ঠী সংঘর্ষের সময়ে তাহিরের নাম সামনে আসে। পুলিশের তদন্ত রিপোর্টে বলা হয়েছে, নিজের বাড়ির ছাদে পাথর, কাঁচের বোতল, পেট্রল, অ্যাসিড মজুত করেছিল তাহির। তাঁর এক সাগরেদ খালিদ সইফি রাস্তায় বিক্ষোভ দেখানোর জন্য লোক জড়ো করেছিল। খালিদ সইফি, ইসরাত জহানরা শাহিনবাগের আদলে খুরেজি এলাকাতে বিক্ষোভ সমাবেশ শুরু করে। পুলিশের দাবি, জিজ্ঞাসাবাদের সময়ে তাহির স্বীকার করেছে, ৪ ফেব্রুয়ারি  খালিদের সঙ্গে দেখা করে সংঘর্ষের ছক কষেছিল সে। ঠিক হয়েছিল, সিএএ-বিরোধী বিক্ষোভকারীদের উস্কে দিয়ে দিল্লিতে গোলমাল বাধানো হবে। খালিদ তাকে বলেছিল, ডোনাল্ড ট্রাম্পের সফরের সময়ে বড় কোনও ঘটনা ঘটাতে হবে যাতে সরকার চাপের মধ্যে পড়ে যায়। পুলিশের দাবি, তাহির অ্যাসিড, পাথর জোগাড়ের কথাই শুধু স্বীকার করে নেয়নি, সংঘর্ষের  সময়ে ব্যবহার করবে বলে থানায় জমা থাকা নিজের পিস্তলও বের করে নিয়েছিল সে।

আরও পড়ুন: ‘লতাদিদিকে’ কথা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

পুলিশের বক্তব্য, তাহির জানায়, ২৪ ফেব্রুয়ারি অসংখ্য লোককে নিয়ে নিজের বাড়ির ছাদ থেকে পেট্রল বোমা, পাথর ছোড়ে তাহির। তার আগেই নিজের পরিবারকে ওই বাড়ি থেকে সরিয়ে দিয়েছিল সে। আইবি-র কর্মী অঙ্কিত শর্মার হত্যার ঘটনাতেও তাহিরকে অন্যতম অভিযুক্ত করেছে দিল্লি পুলিশ। উত্তর-পূর্ব দিল্লির সংঘর্ষের সময়ে ২৬ ফেব্রুয়ারি চাঁদবাগ এলাকার একটি নর্দমা থেকে অঙ্কিতের দেহ উদ্ধার করা হয়েছিল। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন