ভারতে বেড়াতে এসে জয়পুরে নিজের আইফোন হারিয়ে ফেলেন আমেরিকান এক ব্লগার।  আর ফোন হারানোর সঙ্গে সঙ্গেই ভারতবাসীর বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়ায় যা ইচ্ছে তাই বলে গেলেন ওই বিদেশিনী।  ইনস্টাগ্রামে লিখলেন, ‘ভারতীয়রা এতটাই গরীব যে একটা আইফোন অবধি কেনার ক্ষমতা নেই।’ তবে ভারতীয়রাও ছাড়লেন না তাঁকে। অনেকেই এর প্রত্যুত্তর দিয়েছেন।

মহিলার নাম কোলিন গ্র্যাডি।  ট্রাভেল ব্লগিংয়ের পাশাপাশি তিনি একজন যোগা প্রশিক্ষকো। জয়পুরে বেড়াতে এসে নিজের পাঁচ মাসের সাধের আইফোনটি হারিয়ে ফেলেন তিনি। আর তার পরেই তাঁর যত রাগ ভারতের উপর। ভারতীয়দের উপর।

ইনস্টাগ্রামে লম্বা একটি পোস্টে কোলিন গ্র্যাডি লিখছেন, ‘গরীব ঘিঞ্জি একটা দেশে আমার ফোন হারিয়ে ফেলেছি। ভারতের সব থেকে জালি একটা টুরিস্ট স্পট হল জয়পুর।’ এমনকি তিনি এ-ও বলেছেন ‘আমার ওই আইফোন এক্স মডেলটা ফিরে পাওয়ার আর আশাও করি না। কারণ, ফোনের যা দাম তাতে বহু ভারতীয়ের সারা জীবনটাই চলে যায়। ’

গ্র্যাডি আরও লিখছেন, ‘‘যে গেস্ট হাউসটিতে ছিলাম সেখানে গিয়ে আমার কম্পিউটার খুলে ফোন খোঁজার চেষ্টা করে দেখি। কিন্তু পরে ভাবলাম, ফোনটা এয়ারপ্লেন মোডে থাকলে খোঁজা ফালতু হবে। গেস্টহাউসের মালিক হিন্দিতে কিছু মেসেজ লিখে পাঠিয়েছিলেন আমার ফোনে, যাতে ফোনটা কেউ পেলে আমাকে ফিরিয়ে দেন।’

ফোন হারানোর পর ফোন ফিরে পেয়েও ভারতীয়দের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন কোলিন গ্র্যাডি। ছবি: সোশ্যাল মিডিয়া

সে দিনই কিছুক্ষণের মধ্যে ওই বিদেশিনীর হারিয়ে যাওয়া ফোন থেকে একটি ফোন আসে গেস্ট হাউসের মালিকের ফোনে। ‘ওই ভিড়ের মধ্যেই মোটরসাইকেল নিয়ে আমরা ওই লোকটার সঙ্গে দেখা করে ফোনটা আনতে যাই।’ ইনস্টাগ্রামে লেখেন গ্র্যাডি।

আরও পড়ুন: কালামের চেয়ে বড় বিজ্ঞানী কেন্দ্রীয় মন্ত্রী! এ বার ‘মণিমাণিক্যে’র ছড়াছড়ি বিজ্ঞান কংগ্রেসে

ফোনটা হারিয়ে ফোন ফিরেও পেলেন ওই ব্লগার। তা-ও তাঁর রাগ ভারতীয়দের উপর। গ্র্যাডির কথায়, ‘যে মানুষটা আমার ফোনটা খুঁজে পেয়েছেন, তাঁর কাছেও একই আইফোন এক্সও রয়েছে। এটা আর একটা মিরাক্যাল, কারণ এ দেশে এমন একটা মানুষকে খুঁজে পেলাম যার কাছে আইফোন রয়েছে।’

আরও পড়ুন: এক দশক কোমায় থেকেও প্রসব, ধর্ষক কে বা কারা, খুঁজছে পুলিশ

ব্যস! এই কথার পরেই তেলে বেগুনে জ্বলে ওঠেন নেটদুনিয়ার লোকজন।  নানান ভাষায় ভারতীয়রা জবাব দিয়েছেন ওই বিদেশিনীকে। কেউ তুলে ধরেছেন এ দেশে কত টাকা খরচ করে স্ট্যাচু তৈরি হয়। কেউ বলেছেন যোগা এ দেশের রন্ধ্রে রন্ধ্রে রয়েছে।  এমনকি কেউ কেউ এ দেশে কত আইফোন বছরে বিক্রি হয়, তার পরিসংখ্যানও তুলে ধরেছেন। তীব্র ভাবে ট্রোলড হওয়ার পর কোলিন গ্র্যাডি ক্ষমা চান ভারতীয়দের কাছে। পোস্টটাও ডিলিট করে দেন। এমনকি নিজের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টও ডিলিট করে দেন তিনি। কিন্তু ডিলিট করলে কী হবে, কোলিন গ্র্যাডির ও পোস্ট এবং ট্রোলিংয়ের স্ক্রিনশট এখন ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

(কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী, গুজরাত থেকে মণিপুর - দেশের সব রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ খবর জানতে আমাদেরদেশবিভাগে ক্লিক করুন।)