আগরা আদালত চত্বরেই এক সহকর্মীর গুলিতে মৃত্যু হল উত্তরপ্রদেশ বার কাউন্সিলের প্রথম মহিলা সভাপতির। দু’দিন আগেই দরবেশ যাদব এই পদে নির্বাচিত হন। অভিযুক্ত সহকর্মীও আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

উত্তরপ্রদেশ বার কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর দরবেশের সম্মানে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। দুপুর আড়াইটা নাগাদ সেই অনুষ্ঠানেই হঠাত্ উঠে দাঁড়িয়ে গুলি চালান মণীশ শর্মা নামে এক আইনজীবী। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, পর পর তাঁকে তিনটি গুলি করা হয়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় দরবেশের। মণীশও আত্মহত্যার চেষ্টা করে। দুজনকেই প্রথমে পুষ্পাঞ্জলি মিউনিসিপ্যালিটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে দরবেশকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিত্সকরা। আশঙ্কাজনক মণীশের চিকিত্সা চলছে একটি বেসরকারি হাসপাতালে।

আগরার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার প্রবীণ বর্মা জানিয়েছেন, মণীশ তাঁর লাইসেন্সপ্রাপ্ত পিস্তল থেকে গুলি চালান। আগ্নেয়াস্ত্রটি পুলিশ বাজেয়াপ্ত করেছে। খুনের কারণ যদিও এখনও স্পষ্ট নয়, তদন্ত করছে পুলিশ। ময়না তদন্তে পাঠানো হয়েছে দরবেশের দেহ।

আরও পড়ুন : চল্লিশ বছরের বন্ধ সিন্দুক খুলে গেল পর্যটকের হাতে, ভেতরে মিলল...

আরও পড়ুন : ওভাল স্টেডিয়ামের বাইরে ঝালমুড়ি বেচছেন ব্রিটিশ বিক্রেতা

এই ঘটনার পরই আতঙ্ক ছড়িয়ে প়ড়ে আদালত চত্বরে। আইনজীবীরা আগামিকাল বিক্ষোভের হুমকি দিয়েছেন। এই ঘটনার নিন্দা করেছে বার কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়া। সেই সঙ্গে দরবেশের পরিবারে জন্য উত্তরপ্রদেশ সরকারের কাছে ৫০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি করা হয়েছে। আইনজীবীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জোরালো দাবি উঠেছে।