• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ওয়াইসির মঞ্চে ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ স্লোগানে বিতর্ক

Bengaluru
আসাদউদ্দিন ওয়াইসির উপস্থিতিতেই পাকিস্তান জিন্দাবাদ বলেছে অমূল্যা লিয়োনা। ছবি ভিডিয়ো থেকে সংগৃহীত।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) বিরোধী সমাবেশের মঞ্চে এআইএমআইএম সাংসদ আসাদুদ্দিন ওয়াইসির উপস্থিতিতে ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ স্লোগান ঘিরে তৈরি হয়েছে বিতর্ক। অমূল্যা লিয়োনা নামে যে তরুণী ওই স্লোগান দিয়েছেন, রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে তাঁকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাঁকে ১৪ দিনের বিচারবিভাগীয় হেফাজতে পাঠিয়েছে আদালত। মেয়ের ওই কাজের সমালোচনা করে অমূল্যার বাবা জানিয়েছেন, পুলিশ আইনানুগ ব্যবস্থা নিক। কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী বি এস ইয়েদুরাপ্পার অভিযোগ, অমূল্যার সঙ্গে নকশালদের যোগাযোগ রয়েছে। গত কালই অমূল্যার বাড়িতে হামলা করে বিজেপির কর্মী-সমর্থকেরা।

বেঙ্গালুরুতে গত কাল সিএএ-বিরোধী একটি সমাবেশের মঞ্চে বক্তৃতার সময় আচমকাই ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ স্লোগান দেন অমূল্যা। মঞ্চে তখন উপস্থিত ওয়াইসি। ওই স্লোগান শোনামাত্রই অমূল্যার কাছে ছুটে গিয়ে মাইক্রোফোন কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন তিনি। ভিডিয়োয় দেখা গিয়েছে, বছর উনিশের ওই তরুণী মাইক্রোফোন ছাড়তে চাইছিলেন না। এক সময় অমূল্যা একাধিক বার ‘হিন্দুস্তান জিন্দাবাদ’ স্লোগানও দেন। তত ক্ষণে তাঁর হাত থেকে মাইক্রোফোন কেড়ে নিয়ে তাঁকে মঞ্চের পিছনে নিয়ে যায় পুলিশ। বেঙ্গালুরু পুলিশের এক কর্তা বি রমেশ বলেছেন, ‘‘অমূল্যার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ১২৪এ (রাষ্ট্রদ্রোহ), ১৫৩এ এবং বি ধারায় মামলা করা হয়েছে।’’

ওই ঘটনায় স্বভাবতই অস্বস্তিতে ওয়াইসি। ওই মঞ্চেই তিনি এমন স্লোগানের তীব্র বিরোধিতা করে বলেন, ‘‘আমরা সব সময়েই পাকিস্তানের মতো শত্রু দেশের বিপক্ষে। আমাদের লড়াই ভারতকে বাঁচানোর।’’ তিনি নিজেও একাধিক বার ‘হিন্দুস্তান জিন্দাবাদ’ স্লোগান দেন। বিজেপি অবশ্য এমন সুযোগ ছাড়তে চায়নি। কর্নাটক বিজেপির টুইট, ‘‘সিএএ বিরোধিতা পাকিস্তান ও দেশবিরোধী শক্তির দ্বারা পরিচালিত। সেই সত্যি সামনে এল।’’ ইয়েদুরাপ্পার দাবি, ‘‘অমূল্যার সঙ্গে নকশালদের যোগাযোগের প্রমাণ মিলেছে। ওর অবশ্যই শাস্তি হবে।’’ যদিও জেডি (এস)-এর অভিযোগ, সিএএ-বিরোধী কর্মসূচী পণ্ড করতেই অমূল্যাকে পাঠিয়েছিল বিরোধী শিবির।

অমূল্যার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে একাধিক মহল। এই প্রসঙ্গে বিভিন্ন মামলার প্রসঙ্গও উঠছে। অনেকেই বলছেন, অমূল্যা যা করেছে, তা নিছক বোকামি। কিন্তু তার জন্য রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে।

আরও পড়ুনসাবরমতী নয়, তাজমহলেই মন মেলানিয়ার!

ইয়েদুরাপ্পার দাবি, ‘‘অমূল্যার বাবা বলেছেন, মেয়েকে জেলে পচতে দিন। পুলিশ পা ভেঙে দিক। আমি কোনও অভিযোগ করব না।’’ গত কালই তাঁদের বাড়িতে বিজেপির কর্মীরা হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ওয়াজি। নিরাপত্তার কারণে বাড়িতে পুলিশ মোতায়েন করেছে প্রশাসন। ওয়াজি এক সময় জেডি(এস)-র সমর্থক ছিলেন। তবে গত লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির হয়ে প্রচার করেছিলেন।

অমূল্যার ফেসবুক অ্যাকাউন্টও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। জানা গিয়েছে, গত সপ্তাহে স্নাতক স্তরের ওই ছাত্রী ফেসবুকে কন্নড়ে লিখেছিলেন, ‘‘ভারত জিন্দাবাদ, পাকিস্তান জিন্দাবাদ, বাংলাদেশ জিন্দাবাদ, শ্রীলঙ্কা জিন্দাবাদ, নেপাল জিন্দাবাদ, আফগানিস্তান জিন্দাবাদ, চিন জিন্দাবাদ, ভুটান জিন্দাবাদ।’’ পরে ব্যাখ্যা করে লেখেন, ‘‘আইনানুযায়ী আমি ভারতের নাগরিক। দেশকে সম্মান করা ও মানুষের জন্য কাজ করা আমার কর্তব্য। আমি তা করব।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন