Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৪ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied

চিত্র সংবাদ

Hollywood celebrities: টম ক্রুজ থেকে জ্যাকি চ্যান, ছেলেমেয়েদের সঙ্গে কোনও যোগাযোগই রাখেননি এই হলি তারকারা

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ০২ জুলাই ২০২২ ১১:২৮
হলিউড, বলিউড অথবা টলিউড— সিনেমা জগতের সঙ্গে যুক্ত তারকাদের শুধু মাত্র কর্মজীবনই নয়, ব্যক্তিগত জীবন নিয়েও কৌতূহল থাকে পাপারাৎজিদের। তাঁদের জীবনসঙ্গী থেকে শুরু করে ছেলেমেয়েদের জীবনও ক্যামেরায় লেন্সবন্দি করার চেষ্টা চলতেই থাকে অনবরত।

তারকারা সিনেমাপাড়া থেকে কিছু খবর আড়ালে রাখতে চাইলেও কোনও কোনও ক্ষেত্রে তাঁরা নিজেরাই কোনও সাক্ষাৎকারে ব্যক্তিগত জীবনে সম্পর্কের টানাপড়েন নিয়ে কথা বলে ফেলেন।
Advertisement
হলিউডের কয়েক জন তারকা রয়েছেন, যাঁদের সঙ্গে ছেলেমেয়েদের কোনও রকম সম্পর্ক নেই। বাবা মায়ের থেকে তাঁদের সন্তানরা দূরত্ব বজায় রেখেই চলেন। এই তালিকায় জ্যাকি চ্যান থেকে শুরু করে টম ক্রুজ এমনকি রয়েছেন হলিউডের বিখ্যাত কমেডিয়ানও।

‘থর’ সিনেমায় ওডিনের চরিত্রে অথবা ‘দ্য সাইলেন্স অব দ্য ল্যাম্বস’ ছবিতে হ্যানিবালের ভূমিকায় অভিনয় করে দর্শকের মন জিতেছিলেন হলিউডের প্রখ্যাত অভিনেতা অ্যান্থনি হপকিন্স। তাঁর স্ত্রী পেট্রোনেল্লা বার্কারের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের পরে তাঁর মেয়ের সঙ্গেও সম্পর্কে ছেদ পড়ে।
Advertisement
‘শ্যাডোল্যান্ডস’ ও ‘দ্য রিমেইনস অব দ্য ডে’ ছবিতে তাঁর মেয়ে অ্যাবিগেলের সঙ্গে তিনি অভিনয় করলেও ১৯৯০ সালের পর আর যোগাযোগ রাখেননি কেউ-ই। এক সাক্ষাৎকারে অ্যাবিগেলের মা হওয়ার প্রসঙ্গে তাঁকে জিজ্ঞাসা করলে অ্যান্থনি জানান, তিনি এই বিষয়ে কিছুই জানেন না।

অভিনেতা টম ক্রুজের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা ঘটে। ২০১২ সালে কেটি হোমসের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর প্রায় ১০ বছর তাঁর মেয়ের সঙ্গে কোনও সম্পর্ক রাখেননি টম।

এমনকি, টমের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন কেট। বাবা হিসাবে নাকি টম কোনও ভূমিকাই পালন করেননি। তাঁকে একা হাতেই নিজের মেয়েকে মানুষ করতে হয়েছে।

টেলিভিশনের পরিচিত মুখ এবং একাধারে কমেডিয়ান রোজি ও’ডনেল তাঁর এক মাত্র কন্যা চেলসিকে দত্তক নিয়েছিলেন। চেলসির যখন ১৭ বছর বয়স, তখন তিনি বাড়ি ছেড়ে চলে যান। মেয়ে ‘নিখোঁজ’ বলে টুইটও করেন রোজি।

কিন্তু পরে জানা যায়, ৩১ বছর বয়সি এক ড্রাগ ব্যবসায়ীর সঙ্গে চেলসি পালিয়ে গিয়েছেন । পরে তাঁকে বিয়েও করেন চেলসি। রোজি জানান, চেলসি মানসিক ভাবে সুস্থ ছিলেন না। একাধিক বার চেলসিকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। তাঁর স্বামীও নাকি রোজির কাছে এক সময় ন’হাজার ডলার ধার চেয়েছিলেন। এই ঘটনার পর চেলসি নিজে থেকেই যোগাযোগ বন্ধ করে দেন।

জ্যাকি চ্যান হলিউডে প্রথম সারির অভিনেতা হলেও তাঁর ব্যক্তিগত জীবন খুব সরল ছিল না। জোয়ান লিংকে বিয়ে করার পরেও তিনি অভিনেত্রী এলেন এনজির সঙ্গে বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্কে ছিলেন। একটি কন্যাসম্তানেরও জন্ম দিয়েছিলেন এলেন।

কিন্তু কোনও দিনই পিতৃপরিচয় পায়নি এলেন-কন্যা এটা। এক সাক্ষাৎকারে এটা জানিয়েছেন, তিনি জ্যাকি চ্যানকে বাবা হিসাবে মানেন না, অভিনেতা হিসাবেই চেনেন মাত্র।

আমেরিকান ব্যান্ড হাডসন ব্রাদার্স এর গায়ক ছিলেন বিল হাডসন। পরে অবশ্য হলিউড ছবিতেও অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। হলিউড অভিনেত্রী গোল্ডি হনের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক গড়ে ওঠে এবং ১৯৭৬ সালে তাঁরা দু’জন বিয়ে করেন। তবে তাঁদের বৈবাহিক জীবন সুখকর ছিল না।

তাঁদের সন্তান কেট ও অলিভার জানান, বিলের সঙ্গে তাঁদের সম্পর্ক কোনও দিনই ভাল ছিল না। গোল্ডির সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের পর বিল অন্য সম্পর্কে জড়ান। কিন্তু কেট ও অলিভারের খোঁজ কখনও নেননি।

এমনকি, পিতৃদিবসের দিন অলিভার নেটমাধ্যমে তাঁর ছোটবেলার একটি ছবি পোস্ট করেন। সেই ছবিতে কেট ও অলিভারের সঙ্গে রয়েছেন বিল। পিতৃদিবস উপলক্ষে অলিভার সেই ছবি দিয়েই বিলকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ‘শুভ পরিত্যাগ দিবস’ লিখে।

এক সাক্ষাৎকারে বিল বলেন, ‘‘আমার পাঁচ সন্তান রয়েছে। কিন্তু কেট ও অলিভার আমার কাছে মৃত। তাই আমি শুধু মাত্র তিন সন্তানেরই বাবা। এই ভেবেই মনকে মানিয়ে নিয়েছি। ওরা পৃথিবীর কোলে শ্বাস নিলেও আমার কাছে মৃত হয়েই থাকবে।’’