Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০১ জুলাই ২০২২ ই-পেপার

URL Copied

চিত্র সংবাদ

Rafale vs J-10C: ফ্রান্স থেকে আনা ভারতের রাফাল নাকি চিন থেকে নেওয়া পাকিস্তানের জি-১০সি, এগিয়ে কে?

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ১৮ মার্চ ২০২২ ১১:৫৩
আধুনিক সামরিক শক্তির ইতিহাসে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অস্ত্র হল যুদ্ধবিমান।  যুদ্ধবিমান আকাশপথ থেকেই ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে শত্রু সংহারে পটু । তবে বিশ্বের সামরিক শক্তির ধারা যত এগিয়েছে তত উন্নত হয়েছে এই গুরুত্বপূর্ণ সামরিক অস্ত্র।

প্রায় প্রতিটি উন্নত দেশের কাছেই নিজস্ব যুদ্ধবিমান রয়েছে। যেমন ফ্রান্সের রাফাল, চিনের জে-১০সি, আমেরিকার লকহিড মার্টিন এফ-২২, রাশিয়ার মিগ এবং সুখোই। বিভিন্ন অস্ত্রশস্ত্র সজ্জিত হওয়ার পাশাপাশি এই যুদ্ধবিমানগুলি উচ্চগতিসম্পন্নও বটে।
Advertisement
তবে তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলি বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই উন্নত দেশগুলির কাছ থেকে নিজেদের যুদ্ধবিমান কেনে।

ফ্রান্সের কাছে থেকে রাফাল যুদ্ধবিমান কিনে নিজেদের সামরিক শক্তিকে আরও মজবুত করে তুলেছে ভারত।
Advertisement
তবে সম্প্রতি চিনের কাছে থেকে জে-১০সি যুদ্ধবিমান কিনেছে ভারতের প্রতিবেশী তথা ভারতের সঙ্গে একাধিকবার সামরিক সঙ্ঘাতে জড়িয়ে পড়া পাকিস্তান।

এই বিমান কেনার পর পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান জানান, এর পর থেকে কোনও দেশই পাকিস্তানের উপর আগ্রাসন দেখানোর সুযোগ পাবে না।

জে-১০সি পঞ্চম প্রজন্মের মাঝারি আকারের একটি যুদ্ধবিমান। এটি পাকিস্তান-চিনের যৌথ ভাবে তৈরি জেএফ-১৭-র থেকে অনেক বেশি শক্তিশালী।

প্রত্যক্ষ সামরিক সঙ্ঘাত ছাড়াও একাধিকবার আরও ছোটখাটো সঙ্ঘাতে জড়িয়েছে ভারত-পাকিস্তান। এ ছা়ড়াও কাশ্মীর নিয়ে আজন্মকাল ধরে চলে আসা বিতর্কের ইতি টানতে পাছে আবার সামরিক সঙ্ঘাতে নামতে হয়, এই ভেবেই নিজেদের শক্তিশালী করেছে দুই দেশই।

তবে শত্রু পক্ষের শিড়দাঁড়া ভেঙে দিতে কোন যুদ্ধবিমান বেশি কার্যকর? ভারতের কাছে থাকা রাফাল না কি পাকিস্তানের কাছে থাকা জে-১০সি।

লম্বায় জে-১০-র তুলনায় রাফাল সামান্য ছোট। রাফালের দৈর্ঘ্য ১৫.২৭ মিটার। কিন্তু জে-১০-র দৈর্ঘ্য প্রায় ১৬.০৩ মিটার।

তবে রাফালের ডানাগুলি জে-১০-র তুলনায় বড়। রাফালের ডানাগুলি প্রায় ১০.৮০ মিটার লম্বা। কিন্তু জে-১০-র ডানাগুলির দৈর্ঘ্য প্রায় ৯.৭৫ মিটার।

রাফাল এবং জে-১০সি জেট  যুদ্ধবিমানের ওজন যথাক্রমে ন’হাজার ৮৫০ কেজি এবং আট হাজার ৮৫০ কেজি।

রাফাল বিমানগুলি মোট ২৪ হাজার ৫০০ কিলোগ্রাম ওজন নিয়ে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় উড়ে যেতে পারে। কিন্তু এই ক্ষেত্রে জে-১০সি-র শক্তি অনেক কম। জে-১০সি মোট ১৯ হাজার ২৭৭ কেজি নিয়ে উড়ে যেতে পারে।

রাফাল বিমানের উড়ান ক্ষমতাও জে-১০সি-র থেকে অনেকটাই বেশি। উড়ান শুরু হওয়া থেকে শেষ হওয়া পর্যন্ত সর্বোচ্চ তিন হাজার ৭০০ কিলোমিটার উড়ে যেতে পারে রাফাল। সেই ক্ষেত্রে জে-১০সি-র উড়ান ক্ষমতা এক হাজার ৮৫০ কিলোমিটার।

রাফাল বিমানের ইঞ্জিনের ক্ষমতাও জে-১০সি-র থেকে বেশি। রাফাল বিমানে ফরাসি নেকমা সংস্থার এম-৮৮ ইঞ্জিন ব্যবহার করা হয়। অন্যদিকে জে-১০সি-তে ব্যবহৃত হয় চিনা সংস্থা শেনইয়াং-এর ইঞ্জিন।

তবে গতির দিক থেকে তুলনামূলক ভাবে পিছিয়ে রাফাল। রাফাল প্রতি ঘণ্টায় সর্বোচ্চ এক হাজার ৯১২ কিলোমিটার বেগে উড়ে যেতে পারে। সেই জায়গায় জে-১০সি জেট বিমানের সর্বোচ্চ গতি ঘণ্টায় দু’হাজার ৪৯৫ কিলোমিটার।