×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৯ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

হাতে মাত্র ৩১ বছর, ২০৫০-এ কি ‘শেষের সে দিন’

সংবাদ সংস্থা
মুম্বই০৭ জুন ২০১৯ ০৯:১২
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

হাতে মাত্র ৩১ বছর। যে ভাবে উত্তাপ বাড়ছে পৃথিবীর, যে ভাবে তা প্রভাব ফেলছে জলবায়ুর পরিবর্তনে— তাতে ২০৫০ সাল নাগাদ মানবজাতির ৯০ শতাংশই নিশ্চিহ্ন হয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা একটি অস্ট্রেলীয় থিঙ্ক ট্যাঙ্কের। মুম্বই তলিয়ে যাবে সমুদ্রে। সঙ্গে সাংহাই, লাগোস। প্যারিস জলবায়ু চুক্তি বলেছিল পৃথিবীর তাপমাত্রা বৃদ্ধিকে ৩ থেকে ৫ ডিগ্রিতে বেঁধে রাখার কথা। বিশ্ব পরিবেশ দিবস (৫ জুন)-এ ওই থিঙ্ক ট্যাঙ্ক কিন্তু তা বলছে না। তাদের মতে, ৩ ডিগ্রি তাপমাত্রা বৃদ্ধি মানেই সমুদ্রের জলস্তর আধ মিটার উঁচু হওয়া। আরব সাগরের তীরবর্তী মুম্বইয়ের বিপদ সেখানেই। 

তাপমাত্রা বৃদ্ধি ৩ ডিগ্রি পেরোলে মেরুপ্রদেশের বরফ গলে নির্গত হবে মিথেন। বরফ না-থাকায় সূর্যের তাপ আর রশ্মি শুষে নেওয়ার উপায় থাকবে না। এ ভাবে তাপমাত্রা যদি ৪ ডিগ্রি বাড়ে, তা হলেই ৯০ শতাংশ মানুষের বাঁচা অসম্ভব। গরমে জনশূন্য হয়ে যাবে পশ্চিম আফ্রিকা ও পশ্চিম এশিয়া। দুনিয়া জুড়ে লেগেই থাকবে বন্যা, ঘূর্ণিঝড়, তাপপ্রবাহ। থিঙ্ক ট্যাঙ্কটির মতে, বিশ্ববাসী সচেতন না-হলে সেই দিন আসবে ২০৫০ নাগাদ। ভারতে এ বছরের গ্রীষ্মের নজিরবিহীন তাপপ্রবাহকে তাই আলাদা করে দেখা ভুল হবে। 

Advertisement


Tags:

Advertisement