বাংলাদেশের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি সিরিজ শেষ হয়ে যাওয়ার পরে এ বার নজর টেস্ট সিরিজে। যে সিরিজে ভারতের মাঠে প্রথম দেখা যাবে গোলাপি বলের টেস্ট। যার জন্য বিশেষ প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করেছেন চেতেশ্বর পুজারা, মহম্মদ শামিরা।

কী ভাবে দেখছেন এই গোলাপি বলের টেস্টকে? অনেকেই বলছেন, ব্যাটসম্যান হিসেবে লাল বলের চেয়ে গোলাপি বলে খেলা সমস্যা। পুজারা মানতে চাইছেন না। তিনি বলছেন, ‘‘আমার মনে হয় না লাল বলের সঙ্গে গোলাপি বলের বিশেষ তফাত হবে বলে। আমি অবশ্য এস জি-র গোলাপি বলে খেলিনি। তাই জোর দিয়ে কিছু বলছি না। তবে মনে হয় না, লাল এস জি বলের সঙ্গে গোলাপি এস জি বলের বিশেষ পার্থক্য হবে। ভারতে এখন এস জি বলের মান অনেক ভাল হয়েছে।’’

২০১৬ মরসুমে, দলীপ ট্রফি গোলাপি বলে খেলা হয়েছিল। যেখানে দুটো সেঞ্চুরি-সহ সব চেয়ে বেশি রান করেছিলেন পুজারাই (৪৫৩)। যার মধ্যে ছিল অপরাজিত ২৫৬ রানের ইনিংস। কিন্তু সেই প্রতিযোগিতা খেলা হয়েছিল কোকাবুরা বলে। ভারতে ঘরোয়া ক্রিকেটে এখন পর্যন্ত কোকাবুরার গোলাপি বলই ব্যবহার করা হয়েছে। যদিও বাংলাদেশের বিরুদ্ধে টেস্ট খেলা হবে এস জি বলে। পুজারা মনে করেন, দিনরাতের টেস্টে সব চেয়ে বড় চ্যালেঞ্জটা হতে পারে সন্ধের সময় গোলাপি বলে ব্যাট করা। যা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘‘মাঝে মাঝে ঠিক সন্ধ্যা হওয়ার সময় গোলাপি বলে ব্যাট করাটা সমস্যার হয়ে যায়।’’ কী করলে সেই সমস্যা থেকে বার হয়ে আসা যাবে, তাও বলেছেন পুজারা। তাঁর কথায়, ‘‘ঠিক ওই সময়টা (সন্ধে) গোলাপি বলে ব্যাটিং অনুশীলন করতে হবে। কয়েক বার ওই ভাবে অনুশীলন করতে পারলে ম্যাচে মনে হয় সমস্যায় পড়তে হবে না। আমি এখন সুযোগ পেলেই গোলাপি বলে অনুশীলন করে যাব।’’ ভারতীয় বোর্ড সূত্রে জানা গিয়েছে, ইনদওরেই ক্রিকেটারদের কাছে গোলাপি বল পৌঁছে দেওয়া হবে। এই ইনদওরে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে ভারত-বাংলাদেশের প্রথম টেস্ট। দু’দলের ক্রিকেটারেরাই সোমবার পৌঁছে গেলেন ইনদওরে। 

পুজারা, শামিরা অবশ্য আগে থেকেই এখানে অনুশীলন শুরু করে দিয়েছেন। ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের মধ্যে পুজারাই বেশি অভিজ্ঞ গোলাপি বলে খেলার ব্যাপারে। ঘরোয়া ক্রিকেটে গোলাপি বলে খেলে সফল হয়েছেন। এতে কি টেস্টে সুবিধে হবে? পুজারার জবাব, ‘‘আমি বছর তিনেক আগে গোলাপি বলে খেলেছি। অনেক দিন আগের কথা। এটাকে বাড়তি সুবিধা বলে ধরা যাবে না। তবে এটা বলব, অভিজ্ঞতাটা আমার কাজে লাগবে। গোলাপি বলে খেলার ফলে একটা ধারণা করা যাবে, টেস্টে কী হতে পারে।’’ পুজারা এও জানিয়েছেন, দিনরাতের টেস্টে ব্যাট করার সময় তিনি ‘মাসল মেমরি’কে কাজে লাগাতে চান। অর্থাৎ, যে ভাবে ঘরোয়া ক্রিকেটে গোলাপি বল সামলেছিলেন, সে-ই খেলাকেই ফিরিয়ে আনতে 

চান টেস্টে।