বিশ্বকাপ বিপর্যয়ের পরে ভারতীয় ক্রিকেটে ব্যাপক পরিবর্তন আনা হচ্ছে। সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটরস সিদ্ধান্ত নিয়েছে, ক্রিকেটারদের সঙ্গে তাঁদের স্ত্রী বা বান্ধবীরা দেখা করতে পারবেন কিনা, তা স্থির করবেন দলের অধিনায়ক ও হেড কোচ। ভারতীয় ক্রিকেটে এমন ঘটনা আগে দেখা যায়নি।

আগে বিদেশ সফরে খেলতে গেলে ক্রিকেটারদের সঙ্গে তাঁদের পরিবার বা স্ত্রী-বান্ধবীদের দেখা করার ব্যাপারটা ছিল বোর্ডের অধীনেই। যেমন, এ বারের বিশ্বকাপের প্রথম ২০ দিন স্ত্রী বা বান্ধবীদের সঙ্গে কোনও ভাবেই ক্রিকেটারেরা দেখা করতে পারবেন না বলে স্পষ্ট জানানো হয়েছিল। এবার সিওএ এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা দলের অধিনায়ক ও হেড কোচের হাতে দিয়ে দিল।

অতীতে এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা দলের অধিনায়কের হাতে ছেড়ে দেওয়া হয়নি। এর পিছনে বোর্ডের যুক্তি দেওয়া হয়েছিল, দলের অধিনায়ক দলেরই একটা অংশ। তাই তাঁর পক্ষে নিরপেক্ষ থাকা সম্ভব নয়। বিশ্বকাপের ঠিক পরেই সিওএ-এরএই সিদ্ধান্তে অনেকেই অবাক।

আরও পড়ুন: ‘ক্রিকেট কিট পুড়িয়ে এ বার কি নতুন চাকরির খোঁজ করব আমরা?’

এদিন সিওএ-এর তরফে দু’টি বিষয়ে স্পষ্ট করে জানিয়ে দেওয়া হয়। প্রথমত, দলের কোনও ক্রিকেটার কবে, কখন তাঁদের বান্ধবী বা স্ত্রী কিংবা অন্য কোনও অতিথিদের সঙ্গে দেখা করতে পারবেন, সে বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন দলের অধিনায়ক এবং কোচ। দ্বিতীয়ত, কোনও ক্রিকেটারের সঙ্গে বোর্ডের চুক্তি করার সময়ে অবশ্যই সংশ্লিষ্ট ফ্যামিলি ক্লজের বিষয়টি উল্লিখিত থাকবে।

আরও পড়ুন: চ্যালেঞ্জ নিয়ে ব্যাট তুলে নিলেন শিখর, তার পর...

সিওএ-এর এই অভিনব সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেনএক দল ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ। তাঁরা এটা মনে করছেন যে, এই সিদ্ধান্তের ফলে দলের অধিনায়ককে বেশি ক্ষমতাবান দেখাবে। ক্যাপ্টেনের সামনে কর্তাদেরও দুর্বল দেখাবে। যা কখনওই কাম্য নয়।