শত কোটির স্বপ্ন ভঙ্গ ম্যাঞ্চেস্টারে, সেমিফাইনালেই থেমে গেল ভারতের বিশ্বকাপ অভিযান
বিশ্বকাপ শেষ হয়ে গেল ভারতের। ফিনিশার ধোনিকেও দেখা গেল না।
MS Dhoni

এই সেই রান আউট। ধোনি ফিরতেই স্বপ্ন শেষ ভারতের।

বিশ্বকাপ অভিযান শেষ ভারতের। ধোনি-জাদেজার পার্টনারশিপ স্বপ্ন দেখিয়েছিল। ধোনি ৫০ রানে আউট হয়ে ফিরতেই ভারতের স্বপ্ন শেষ হয়ে গেল।

মার্টিন গাপ্তিলের দুরন্ত থ্রো যখন উইকেট ভেঙে দিল, তখন ক্রিজে ঢুকতে আর পাঁচ সেন্টিমিটারের মতো বাকি ছিল ধোনির। ওই পাঁচ সেন্টিমিটারের জন্যই বিশ্বকাপ ফাইনালে আর যেতে পারল না বিরাট কোহালির ভারত। শেষ পর্যন্ত টিকে থাকলে ধোনি হয়তো ফিনিশার হিসেবে ধরা দিতেন। দেওয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়া অবস্থায় কত বার তো ধোনি একাই ভারতকে ম্যাচ জিতিয়েছেন। তা হলে এ বার পারবেন না কেন? ভারত সমর্থকদের মনে প্রশ্নের ঝড়। তাঁরা ভুলে গেলেন ধোনি তাঁর সোনালি সময় অনেক আগেই ফেলে রেখে এসেছেন। এই ধোনি আর আগের মতো ফিনিশার নন। সত্যি সত্যিই বয়স থাবা বসিয়েছে তাঁর রিফ্লেক্সে। তবুও মরিয়া একটা চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু, দিনটা যে তাঁর ছিল না। গাপ্তিলের থ্রোটা গোটা দেশের হৃদয় ভেঙে দিল। ধোনি ফিরতেই সব আশা শেষ। হাতের বাইরে চলে যাওয়া একটা ম্যাচকে ধীরে ধীরে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে আনছিলেন ধোনি ও জাডেজা। কেরিয়ারের অন্যতম সেরা ইনিংস খেললেন জাডেজা (৭৭)। পাল্টা মারের খেলাটা শুরু করেছিলেন তিনিই। কিন্তু, ওই যে ক্রিকেটদেবতা বোধ হয় এদিন মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন ভারতের থেকে। তাই কোহালির দল থেমে গেল ২২১ রানে। ১৮ রানে জিতে বিশ্বকাপের ফাইনালে পৌঁছে গেল নিউজিল্যান্ড। গতবারও ফাইনালে পৌঁছেছিল কিউয়িরা।

মঙ্গলবার ৪৬.১ ওভারে কিউয়িরা করেছিল পাঁচ উইকেটে ২১১ রান। গতদিনের রানের সঙ্গে বুধবার নিউজিল্যান্ড যোগ করল আরও ২৮ রান। ২৪০ রান করলে ভারত পৌঁছে যাবে ফাইনালে। এই অবস্থায় ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই বিপর্যয় নামে ভারতের ব্যাটিং লাইন আপে। দুরন্ত ছন্দে থাকা রোহিত শর্মাকে (১) ফেরালেন ম্যাট হেনরি। বিশ্বকাপে পাঁচটি সেঞ্চুরি হয়ে গিয়েছে হিটম্যান-এর। ইংল্যান্ড, বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টানা তিনটি ম্যাচে সেঞ্চুরি করা রোহিত এ দিন আগেই ফিরে গেলেন। ল অফ অ্যাভারেজ মিলে গেল তাঁর ক্ষেত্রে। বিরাট কোহালিও আউট হলেন মাত্র এক রানে। লোকেশ রাহুলকে (১) ফেরান হেনরি। দীনেশ কার্তিক ২৫ বলে ৬ রানে আউট হন। ঋষভ পন্থ এবং হার্দিক পাণ্ড্য ধীরে ধীরে চাপ কাটিয়ে উঠছিলেন। স্যান্টনারের বলে মারতে গিয়ে আউট হন পন্থ (৩২)। পন্থের আউট হওয়ার ধরন দেখে সাজঘরে প্রচণ্ড রেগে যান কোহালি। পন্থের মতো একই ভাবে উইকেট ছুড়ে দেন পাণ্ড্য (৩১)। এ ভাবে যদি শুরুতেই উইকেট যায় সেমিফাইনালের মতো ম্যাচে, তা হলে কীভাবেই বা জেতা সম্ভব! তবুও ভারতকে ম্যাচে ফিরিয়েছিলেন ধোনি ও জাডেজা। জাডেজা এ দিন নিজেকে ছাপিয়ে যান। ধোনি ও জাডেজা ১১৬ রানের পার্টনারশিপ করেন। তবুও তাঁরা পারলেন না ভারতকে জেতাতে।

ম্যাচের
Live
স্কোর