বিশ্বকাপে পাক-তারকা ক্রিকেটারদের সঙ্গে তাঁদের স্ত্রীদের শর্ত সাপেক্ষে থাকার অনুমতি দিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। এর আগে পিসিবি-ই জানিয়েছিল, ক্রিকেটাররা তাঁদের স্ত্রীদের নিয়ে ইংল্যান্ডে যেতে পারবেন না।

কিন্তু ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সদ্য সমাপ্ত ওয়ানডে সিরিজে হতশ্রী পারফরম্যান্স এবং তার আগে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পরেই পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড আগের অবস্থান থেকে সরে এসেছে।

পাকিস্তানের একটি সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ১৬ জুনের ভারত-পাকিস্তান ব্যাট-বলের দ্বৈরথের পরেই ক্রিকেটারদের সঙ্গে থাকতে পারবেন তাঁদের স্ত্রীরা। ৩১ মে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করছে পাকিস্তান। সরফরাজ আহমেদদের প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তার পরেই পাকিস্তানের জন্য অপেক্ষা করছে ইংল্যান্ড (৩ জুন), শ্রীলঙ্কা (৭ জুন) এবং অস্ট্রেলিয়া (১২ জুন)। এই তিনটি ম্যাচের পরেই সেই প্রতীক্ষিত লড়াই।

আরও খবর: দল থেকে বাদ পড়ে রায়ুডুর ‘থ্রি ডি’ টুইট, মুখ খুললেন বিজয়

আরও খবর: বিশ্বকাপ দেখবেন ‘থ্রিডি’ চশমা পরে, রায়ডুর মন্তব্যে আলোড়ন

ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের গুরুত্ব দুটো দলের কাছেই অপরিসীম। সেই কারণেই স্ত্রীদের পাশে থাকার অনুমতি দিয়ে পাক-ক্রিকেটারদের মানসিক দিক থেকে উদ্দীপ্ত করার চেষ্টা করছে পিসিবি। এ বারের বিশ্বকাপে দুই প্রতিবেশী দেশের ক্রিকেট লড়াই শুধুমাত্র মাঠের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয়। বিশ্বকাপের বল গড়ানোর আগে থেকেই এই ম্যাচকে কেন্দ্র করে পরস্পরবিরোধী মন্তব্য ভেসে আসছিল। 

ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ থেকে শুরু করে দু’ দেশের প্রাক্তন ক্রিকেটাররাও ভিন্ন মতামত পোষণ করছিলেন বিশ্বকাপের ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ নিয়ে। বিশ্বকাপের অন্যতম সেরা ‘বক্স অফিস’-এর (ভারত-পাক ম্যাচ) কথা মাথায় রেখেই পিসিবি আগের সিদ্ধান্ত বদলে ফেলল।