সিডনির মাটিতে দুরন্ত শতরান করে আউট হলেন রোহিত শর্মা। ২৮৯ রান তাড়া করতে গিয়ে ভারতের জয়ের আলো জ্বালিয়ে রেখেছিলেন রোহিতই। তাঁকে যোগ্য সঙ্গত করেন এমএস ধোনি। তবে ৯৬ বলে ৫১ রান করে ধোনি আউট হওয়ার পর থেকে রোহিতকে ঘিরেই যেন জয়ের আশা করতে থাকেন ভারতীয় ফ্যানেরা। তবে ১২৯ বলে ১৩৩ রান করে আউট হন তিনি। শেষমেশ ভারতের ইনিংসে শেষ হয় ৯ উইকেটে ২৫৪ রানে। ৩৪ রানে অজিদের কাছে সিডনি ম্যাচ হেরে আপাতত ওয়ান ডে সিরিজে ০-১ পিছিয়ে গেল ভারত।

তবে ভারতের পক্ষে আশার কথা, রোহিতের দুরন্ত ফর্ম। এ দিন প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে আন্তর্জাতিক ওয়ান ডে-তে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের করা ২২ সেঞ্চুরির রেকর্ড ছুঁয়েছেন রোহিত।

শনিবার অস্ট্রেলিয়ার স্থির করা ২৮৯ রান তাড়া করতে নেমে ভারতীয় ইনিংসের শুরুতেই বিপর্যয় ঘটে। মাত্র ৪ রানে পর পরশিখর ধওয়ন, বিরাট কোহালি এবং রায়ুডুর উইকেট উইকেট হারায় তারা। এর পর রোহিত-ধোনির পার্টনারশিপে ওঠে ১৩৭ রান। তবে ধোনি আউট হওয়ার পর বিশেষ কিছু করতে পারেননি রবীন্দ্র জাডেজা (৮ রান) বা দীনেশ কার্তিক (১২ রান)।

(আজকের তারিখে গুরুত্বপূর্ণ কী কী ঘটেছিল অতীতে, তারই কয়েক ঝলক দেখতে ক্লিক করুন— ফিরে দেখা এই দিন।)

আরও পড়ুন: হার্দিকদের বক্তব্যে সম্মতি নেই কোহালির

আরও পড়ুন: সেরা দল তৈরির প্রস্তুতি আজ সিডনি থেকেই

বোল্ড! ভুবনেশ্বর কুমারের বলে ঠকে গেলেন অ্যারন ফিঞ্চ। ছবি: এএফপি।

এ দিন টেস্ট সিরিজের ইতিহাসকে পিছনে ফেলে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ওয়ান ডে সিরিজ শুরুর ম্যাচে সিডনিতে টস হারেন ক্যাপ্টেন কোহালি। ওয়ান ডে-তে অজিদের ক্যাপ্টেন অ্যারন ফিঞ্চ সঙ্গে সঙ্গে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন। একটি টেলিভিশন চ্যানেলের হলে ধারাভাষ্যকার হিসাবে পিচ পরীক্ষার সময় প্রাক্তন অজি ক্রিকেটার মার্ক ওয়ের মত দিয়েছিলেন, এই উইকেটে প্রথমে ব্যাট করে ৩৩০ রান করাটা সহজ হবে। কোহালিও জানালেন, টসে জিতলে তিনিও প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিতেন।

টসের পর বিরাট কোহালিকে সরাসরি প্রশ্নটা করেই ফেললেন শেন ওয়ার্ন। হার্দিক পাণ্ড্যর অনুপস্থিতিতে ভারতীয় দলের ভারসাম্য কি বদলে যাবে? অবিচলিত ভাবে বিরাট স্বীকার করেও নিলেন, হার্দিকের অনুপস্থিতিতে সামান্য হলেও তফাত গড়ে দেবে দলে। তবে সেই সঙ্গে নতুনদের কাছে যে নিজেকে প্রমাণ করার এটা একটা বড় সুযোগ, তা জুড়তেও ভুললেন না।

টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত অজি ক্যাপ্টেন অ্যারন ফিঞ্চের। ছবি: এএফপি।

শনিবার হার্দিকের বদলে দলে এসেছেন অম্বাতি রায়ুডু। টেস্টের পর ওয়ান ডে দলে রয়েছেন রবীন্দ্র জাডেজাও। বিশ্বকাপের দলে ঢোকার জন্য এই সুযোগ হারাতে চাইবেন না তাঁরা। সুযোগের অপেক্ষায় রয়েছেন ভুবনেশ্বর কুমারও। টেস্ট সিরিজে সুযোগ পাননি। তবে ওয়ান ডে-তে সেই সুযোগ কাজে লাগালেন ভুবি। এ দিন ম্যাচের তৃতীয় ওভারেই অ্যারন ফিঞ্চকে ঠকিয়ে বোল্ড করলেন। সেই সঙ্গে নিজের ১০০তম ওডিআই উইকেটও তুলে নিলেন ভুবি। আর টেস্ট সিরিজের ফর্ম ওয়ান ডে-র প্রথম ম্যাচে নিয়েই শুরুটা করলেন কুলদীপ যাদব। নিজের প্রথম ওভারেই তুলে নিলেন ওপেনার অ্যালেক্স ক্যারিকে। ক্যারির ব্যাটের খোঁচা লেগে বল প্রথম স্লিপে দিকে যেতেই তা দুর্দান্ত ভাবে তালুবন্দি করলেন রোহিত শর্মা।

প্রাথমিক ধাক্কা কাটিয়ে ধীরে ধীরে ম্যাচে ফেরে অস্ট্রেলিয়া। সৌজন্যে, উসমান খোয়াজা, শন মার্শ এবং পিটার হ্যান্ডসকম্বের হাফ সেঞ্চুরি। সঙ্গে মার্ক স্টোইনিসের ৪১ রান।

হ্যান্ডসকম্বের ঝোড়ো ব্যাটিং। ছবি: এএফপি।

৪১ রানে ২ উইকেট পড়ে যাওয়ার পর অজিদের ভরসা দেন শন মার্শও। খোয়াজার মতোই হাফ সে়ঞ্চুরি করেন তিনি। তবে এর পর বেশি ক্ষণ ক্রিজে টেকেননি মার্শ (৫৪ রান)। কুলদীপ যাদবের বলে ক্যাচ তুলে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। মাঝের ওভারগুলোতে অজি ব্যাটসম্যানদের আটকে রাখলেও শেষ ১০ ওভারে মারকাটারি ব্যাট করেন স্টোইনিস এবং হ্যান্ডসকম্ব জুটি। ভুবিদের পিটিয়ে ৬০ বলে ৮৩ রান তুলে নেন তাঁরা। মূলত ওই দুই ব্যাটসম্যানের জন্যই ৫০ ওভার শেষে অস্ট্রেলিয়ার রান দাঁড়ায় ৫ উইকেটে ২৮৮।

(আইসিসি বিশ্বকাপ হোক বা আইপিএল টেস্ট ক্রিকেট, ওয়ান ডে কিংবা টি-টোয়েন্টি।ক্রিকেট খেলারসব আপডেট আমাদেরখেলাবিভাগে।)