সিডনিতে ওয়ান ডে সিরিজের প্রথম বল পড়ার আগেই হার্দিক পাণ্ড্য এবং কে এল রাহুলকে নিয়ে উত্তাল ক্রিকেটমহল।

কিন্তু তিনি, বিরাট কোহালি তাঁর দর্শনে অনড়। শুক্রবার সাংবাদিক সম্মেলনে ভারত অধিনায়ক স্পষ্ট করে দিয়েছেন নিজের এবং গোটা দলের অবস্থান। কোহালি জানিয়েছেন, টিভি শো-এ মেয়েদের প্রতি যে অবমাননাকর মন্তব্য করেছেন হার্দিক এবং রাহুল, তার সঙ্গে ভারতীয় শিবির সহমত নয়। এক ধাপ এগিয়ে তাঁর আরও ঘোষণা, অবাঞ্ছিত এই বিতর্কের প্রভাব ড্রেসিংরুমে পড়েনি।

শুক্রবার রাতে অনির্দিষ্টকালের জন্য নির্বাসিত হন হার্দিক এবং রাহুল। তাঁদের পরিবর্তে সম্ভবত অস্ট্রেলিয়ায় উড়ে যেতে পারেন ঋষভ পন্থ এবং মণীশ পাণ্ডে। ও দিকে সিডনিতে সাংবাদিক বৈঠকে কোহালি জানিয়ে দেন, তেমন পরিস্থিতি তৈরি হলে হার্দিকদের ছাড়াই তাঁর দল মাঠে নামার জন্য তৈরি। কোহালি বলেছেন, ‘‘ওরা যে ধরনের বিতর্কিত মন্তব্য করেছে, সেটাকে আমরা কোনও অবস্থাতেই সমর্থন করি না।’’ আরও বলেছেন, ‘‘ভারতীয় ক্রিকেট দল হিসেবে আমরা সেই দৃষ্টিভঙ্গির সঙ্গে সহমত পোষণ করি না।’’

৭১ বছর পর অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ঐতিহাসিক টেস্ট সিরিজ জয়ের পর এমন এক  অস্বস্তিকর পরিস্থিতিও যে তৈরি হতে পারে, তা সম্ভবত কেউ কল্পনাও করতে পারেননি। কোহালি বলেছেন, ‘‘একটা ব্যাপার আমি স্পষ্ট ভাবে বলে দিতে চাই, পুরো দল এবং একজন দায়িত্বশীল ক্রিকেটার হিসেবে এই দৃষ্টিভঙ্গিকে সমর্থন করছি না। ওরা যা বলেছে সেটা সম্পূর্ণই ওদের অভিমত।’’ যোগ করেছেন, ‘‘ওরাও সম্ভবত উপলব্ধি করছে যে, পরিস্থিতি কোন পর্যায়ে গিয়ে পৌঁছেছে।’’

টিভি শো-এ মেয়েদের প্রতি হার্দিকদের বেফাঁস মন্তব্যে তিনিও যে বিরক্ত, তাও গোপন করেননি কোহালি। বলেছেন, ‘‘ওরা যা বলেছে তা নিঃসন্দেহে কাউকে খুবই আঘাত করতে পারে। আমার মনে হয়, ওরাও এখন বুঝতে পারছে এই অবস্থাটা খুব সুখকর নয়। এবার ওদের নিয়ে কী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, তার জন্য অপেক্ষা করতে হবে।’’

তবে এই বিতর্কের আঁচ যে ভারতীয় দলের ড্রেসিংরুমে আদৌ পড়েনি, তা-ও জানিয়ে দিয়েছেন কোহালি। তিনি বলেছেন, ‘‘যা হয়েছে তা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। কিন্তু এগুলো এমনই একটা বিষয় যেটা আপনার নিয়ন্ত্রণের বাইরে। ফলে এমন পরিস্থিতি তৈরি হলে কী ভাবে বাকি ব্যাপারটা সামলানো সম্ভব, সেটা নিয়েই ভাবতে হয়। হার্দিকদের নিয়ে বোর্ডের সিদ্ধান্ত জানার পরেই আমরা বাকি বিষয় নিয়ে চিন্তাভাবনা করব। দলীয় ভারসাম্য বজায় রাখতে নতুন কিছু ভাবতে হবে।’’ 

কিন্তু হার্দিক বা রাহুলকে নিয়ে বিতর্ক যে আদৌ তাঁকে উদ্বেগে রাখছে না, তা শুনিয়ে দিয়েছেন কোহালি। বলেছেন, ‘‘আমার মনে হয় না নিজেদের রণকৌশল পাল্টাতে গিয়ে খুব একটা সমস্যায় পড়তে হবে। আমাদের এই দলের মধ্যে এমন একটা বোঝাপড়া তৈরি হয়ে গিয়েছে যে, কম্বিনেশনে পরিবর্তন এনেও স্বাভাবিক ক্রিকেট খেলতে পারি। ফলে ওটা নিয়ে খুব বেশি চিন্তা করতে চাই না।’’ সেখানেই না থেমে কোহালি আরও যোগ করেছেন, ‘‘আর এই বিতর্কের প্রেক্ষিতে যদি আমাদের ড্রেসিংরুমের পরিবেশের কথা জানতে চান তা হলে জানিয়ে রাখা ভাল, তার বিন্দুমাত্র প্রভাব সেখানে পড়েনি। ড্রেসিংরুমে আমরা এখন যে নতুন সংস্কৃতি তৈরি করেছি তা ব্যক্তিগত কোনও মন্তব্যে ক্ষতিগ্রস্ত হবে না।’’