• নিজস্ব প্রতিবেদন 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মেসির দুরন্ত গোল, তবু বার্সা নামল দু’নম্বরে

Messi
হতাশ: হার বাঁচালেও জেতাতে পারলেন না মেসি। গেটি ইমেজেস

নিজে অসাধারণ একটি গোল করেও লিয়োনেল মেসি তাঁর ক্লাব বার্সেলোনার লিগ টেবলে দু’নম্বরে নেমে যাওয়া আটকাতে পারলেন না। লা লিগায় টানা চার ম্যাচে জয় পেল না বার্সা। আবার মেসিদের ডোবালেন সেই জেরার পিকে। রবিবার বিপক্ষ আক্রমণের মুখে জগাখিচুড়ি পাকিয়ে ভ্যালেন্সিয়ার এজ়েকুয়েল গ্যারাকে গোল করার সহজ সুযোগ করে দিলেন। এবং খেলার দ্বিতীয় মিনিটেই বার্সা ০-১ পিছিয়ে গেল। 

রবিবার ম্যাচের ২৩ মিনিটে লুইস সুয়ারেসের সঙ্গে পাস খেলে ২০ গজ দূর থেকে অসাধারণ শট খেলে ১-১ করলেও সারা ম্যাচে দ্বিতীয় গোল আর পেল না বার্সেলোনা। প্রত্যাশিত ভাবেই আটটি ম্যাচ খেলে ১৬ পয়েন্ট পাওয়া সেভিয়াই লিগ টেবলের শীর্ষে উঠে গেল। বার্সেলোনা এখন দু’নম্বরে। আট ম্যাচে তাদের পয়েন্ট ১৫। তিন থেকে পাঁচে রয়েছে যথাক্রমে আতলেতিকো মাদ্রিদ (১৪), রিয়াল মাদ্রিদ (১৪) ও এসপানিয়োল (১৪)।

রবিবার লা লিগায় সেভিয়া তাদের চতুর্থ জয়টি পেয়েছে কার্যত পুরো ম্যাচ দশ জনে খেলা সেল্টা ভিগোর বিরুদ্ধে (২-১)। এমনিতে ভযালেন্সিয়ায় গিয়ে অ্যাওয়ে ম্যাচে বার্সারও না জেতার কথা ছিল না। ম্যাচে ৭৫ শতাংশ বলের দখল তাদেরই ছিল। কিন্তু সারা ম্যাচে তারা বিপক্ষ গোলে শট মারতে পেরেছে মাত্র পাঁচ বার। একা সেই মেসিকেই ভয়ঙ্কর দেখিয়েছে। একবার একটুর জন্য দলের দ্বিতীয় গোলও করে ফেলছিলেন। কিন্তু তাঁর নীচু শট দারুণ ভাবে আটকে দেন নেটো। এই ড্রয়ে দারুণ হতাশ বার্সেলোনার কোচ আর্নেস্তো ভালভার্দে। ম্যাচের পরে তিনি বললেন, ‘‘টটেনহ্যামের বিরুদ্ধে দারুণ ভাবে জিতে এখানে আমরা খেলতে নেমেছিলাম। ভেবেছিলাম আগের ম্যাচের ছন্দ ধরে রেখে আজও পুরো পয়েন্ট নিয়ে ফিরব। কিন্তু বাস্তবে দেখা গেল ভ্যালেন্সিয়াই দু’মিনিটের মধ্যে গোল করে এগিয়ে গেল।’’ তাঁর আরও কথা, ‘‘এ মরসুমে আমরা বারবার পিছিয়ে পড়েও দারুণ ভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছি। কিন্তু প্রতিদিনই একই ঘটনা ঘটে না। আজ যেমন হল। এই ড্র আমাদের মনোবলে চিড় ধরালে আমি অন্তত অবাক হব না।’’

ভালভার্দে অবশ্য এটাও বললেন, যে একটা সময় থেকে বিপক্ষের দশ জনই রক্ষণে নেমে খেলতে শুরু করলে গোল করা খুব কঠিন হয়ে পড়ে। ভ্যালেন্সিয়ার বিরুদ্ধে ম্যাচে নাকি সেটাই হয়েছে। তাঁর কথায়, ‘‘সবাই সব সময় সব ম্যাচ জেতে না। লিগে আমরা টানা অনেকগুলো ম্যাচে জিততে পারলাম না এটাই উদ্বেগের। নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে বুঝতে হবে প্রতিপক্ষ দলের সবাই মিলে রক্ষণে নেমে এলে কী ভাবে আমরা গোলের সুযোগ তৈরি করব।’’ বারবার পিকে কেন রক্ষণে বড় ভুল করছেন জানতে চাওয়া হলে সে প্রসঙ্গ কিন্তু পুরোপুরি এড়িয়ে যান বার্সা কোচ। প্রসঙ্গত, মেসিও রক্ষণের পারফরম্যান্সে সন্তুষ্ট নন। সে কথা তিনি প্রকাশ্যেই বলেছেন।      

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন