তিন বছর আগে ভেবেছিলেন টটেনহ্যাম ছেড়ে দেবেন। কিন্তু গত ৩৬ মাসে অনেকটাই বদলে গিয়েছে তাঁর খেলোয়াড় জীবন।

দক্ষিণ কোরিয়ার সেই সুন হেং-মিন এখন টটেনহ্যাম ম্যানেজার মউরিসিয়ো পচেতিনোর বড় ভরসা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালে উঠতে। এক সপ্তাহ আগে কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম পর্বে টটেনহ্যামের ঘরের মাঠে দলকে গোল করে জিতিয়েছিলেন। বিপক্ষ ছিল পেপ গুয়ার্দিওলার ম্যাঞ্চেস্টার সিটি। এ বার এতিহাদ স্টেডিয়ামে রাহিম স্টার্লিং, সের্খিয়ো আগুয়েরোদের মাঠে দ্বিতীয় পর্বের ম্যাচ খেলতে যাওয়ার আগেও সমান আত্মবিশ্বাসী সুন। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এ বার শেষ আট অ্যাওয়ে ম্যাচে মাত্র একটিতে হেরেছে টটেনহ্যাম। ১৯৮৪ সালের পরে ইউরোপীয় ফুটবল নিয়ামক সংস্থার কোনও ক্লাব ফুটবল প্রতিযোগিতায় সেমিফাইনালে যেতে পারেনি তারা। বুধবার রাতে ড্র করলেই সেই বহু প্রতীক্ষার সেমিফাইনাল খেলবে পচেতিনোর টটেনহ্যাম। তাঁর আগে সুনের হুঙ্কার, ‘‘ম্যান সিটি কঠিন প্রতিপক্ষ। কিন্তু যদি আমরা দল হিসেবে খেলি ও নিজেদের প্রতি আস্থা না হারাই, তা হলে ফল আমাদের পক্ষে ভাল হতেই পারে।’’

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

যা শুনে ম্যান সিটি ম্যানেজার পেপ গুয়ার্দিওলার প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া, ‘‘সেমিফাইনাল খেলতেই হবে। সেটাই আমাদের চ্যালেঞ্জ। যে ভাবেই হোক টটেনহ্যামকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিফাইনালে যেতে হবে।’’ চলতি মরসুমে এ পর্যন্ত ৫৪টি ম্যাচ খেলেছে আগুয়েরোরা। যার মধ্যে দশটি ম্যাচে পাঁচ বা তার বেশি গোল করেছে ম্যান সিটি। বিপক্ষ টটেনহ্যামে চোটের কারণে নেই ডেলে আলি ও হ্যারি কেন। সে সম্পর্কে ম্যান সিটির ডিফেন্ডার জন স্টোনস বলে দেন, ‘‘টটেনহ্যাম শক্তিশালী প্রতিপক্ষ। কে খেলছে বা কে নেই, তা মাথায় রাখছি না। এক গোলে পিছিয়ে আছি। এ বার ঘরের মাঠে ওদের হারিয়ে সেমিফাইনাল খেলতে হবে, সেটাই মাথায় রাখছি।’’ 

বুধবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে: ম্যাঞ্চেস্টার সিটি বনাম টটেনহ্যাম হটস্পার (রাত ১২.৩০)। সরাসরি সোনি টেন টু চ্যানেলে।