Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৪ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

রঞ্জিতে ঋদ্ধিকে পাচ্ছে বাংলা, স্বস্তি ফিরছে অরুণেরও

ঋদ্ধিকে ধরেই রঞ্জি ট্রফির পরিকল্পনা শুরু হয়ে গিয়েছে বাংলা শিবিরে। সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফি ও বিজয় হজারেতে ব্যর্থতার পরে রঞ্জি ট্রফিই একমাত্র ঘ

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৬ নভেম্বর ২০১৯ ০৪:১৩
Save
Something isn't right! Please refresh.
সতর্ক: রঞ্জি ট্রফিতে ভাল ফল আশা করেন কোচ অরুণ। ফাইল চিত্র

সতর্ক: রঞ্জি ট্রফিতে ভাল ফল আশা করেন কোচ অরুণ। ফাইল চিত্র

Popup Close

নিউজ়িল্যান্ড সফরের আগে আর কোনও টেস্ট ম্যাচ নেই ভারতের। আসন্ন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টি ও ওয়ান ডে সিরিজ শুরু হলেও সেই দলে নেই ঋদ্ধিমান সাহা। কারণ, তিনি শুধুমাত্র টেস্টে দেশের প্রতিনিধিত্ব করেন। তাই ডিসেম্বর ও জানুয়ারিতে বাংলার হয়ে রঞ্জি ট্রফি খেলতে কোনও সমস্যা হবে না ভারতীয় উইকেটকিপারের।

ঋদ্ধিকে ধরেই রঞ্জি ট্রফির পরিকল্পনা শুরু হয়ে গিয়েছে বাংলা শিবিরে। সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফি ও বিজয় হজারেতে ব্যর্থতার পরে রঞ্জি ট্রফিই একমাত্র ঘুরে দাঁড়ানোর জায়গা অভিমন্যু ঈশ্বরনের দলের। সেই সুযোগ নষ্ট করতে চান না কোচ অরুণ লাল। বাংলার প্রথম ম্যাচ ১৭ ডিসেম্বর তিরুঅনন্তপুরমে। প্রতিপক্ষ কেরল। বাংলা শিবিরের খবর, প্রথম ম্যাচ থেকেই ভারতীয় উইকেটকিপারকে পাচ্ছে তারা।

কোচ অরুণ লাল বলছিলেন, ‘‘রঞ্জি ট্রফির প্রথম কয়েকটি ম্যাচে ঋদ্ধিকে পাচ্ছি। ওর মতো ক্রিকেটার দলে থাকলে অনেকটা চাপমুক্ত হওয়া যায়। ঋদ্ধির মতো ‘টিম ম্যান’ হয় না। ওর কিপিং ও ব্যাটিং নিয়ে তো কোনও সন্দেহই নেই।’’

Advertisement

অরুণ আরও বলেন, ‘‘ভারতীয় টেস্ট মরসুমের প্রত্যেকটি ম্যাচ দেখেছি। উইকেটের পিছনে ঋদ্ধির দাপট দেখে প্রচণ্ড আনন্দ হচ্ছিল। এটাই তো বাংলার ক্রিকেটারদের মধ্যে দেখতে চাই। আমরা বিজয় হজারে ও মুস্তাক আলি ট্রফিতে দাঁড়াতেই পারিনি। অথচ এই বাংলার দু’জন ক্রিকেটার ভারতীয় টেস্ট দলে এখন অপরিহার্য। ঋদ্ধি ও শামির থেকে অনেক কিছু শেখার আছে বাংলার ক্রিকেটারদের।’’ ২৯ নভেম্বর থেকে রঞ্জি ট্রফির প্রস্তুতি শুরু করবে বাংলা।

ঋদ্ধি খেললেও বাংলা পাচ্ছে না শামিকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ওয়ান ডে ও টি-টোয়েন্টি দলে ফিরেছেন শামি। রঞ্জি ট্রফি চলাকালীন তাঁকে ভারতের প্রতিনিধিত্ব করতে হবে। তাই ঋদ্ধির পাশাপাশি দলকে জেতানোর মূল দায়িত্ব নিতে হবে মনোজ তিওয়ারি ও অভিমন্যু ঈশ্বরনকে। অরুণের কথায়, ‘‘মনোজ নিজেও জানে ওর পারফরম্যান্সের উপরেই নির্ভর করছে বাংলার ভবিষ্যৎ। মনোজ রান করতে শুরু করলে দলের মনোবল এমনিতেই বেড়ে যাবে।’’ যোগ করেন, ‘‘অভিমন্যু প্রত্যেক বছরই রান করে। এ বারও সেই ছন্দে এগিয়ে যেতে হবে। আমাদের গ্রুপে কেরল, অন্ধ্রপ্রদেশ, হায়দরাবাদ, বিদর্ভ, দিল্লির মতো শক্তিশালী দল আছে। তাঁদের বিরুদ্ধে ম্যাচ জিততে হলে রান পেতেই হবে সিনিয়র ক্রিকেটারদের।’’

অশোক ডিন্ডার প্রত্যাবর্তনের কোনও সুযোগ থাকছে? অরুণ যদিও এ বিষয়ে মন্তব্য করতে চাইলেন না। বললেন, ‘‘এটা একেবারেই নির্বাচকদের সিদ্ধান্ত। ওরা যা ঠিক করবে সেটাই হবে।’’



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement