Advertisement
২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
কোপা দেল রে

জেতালেন বিধ্বংসী সুয়ারেস

কোপা দেল রে-র এল ক্লাসিকোয় প্রথম ৪৫ মিনিট কিন্তু দাপিয়ে খেলেছে রিয়ালই। আঠারো বছরের ব্রাজিলীয় প্রতিভা ভিনিসিয়াস জুনিয়রকে নিয়ে উদ্বেগে ছিলেন বার্সা ম্যানেজার আর্নেস্তো ভালভার্দে। তাই প্রথম থেকেই দু’জনকে দিয়ে তাঁকে মার্কিং করান।

বেপরোয়া: এল ক্লাসিকোয় লুকা মদ্রিচ এ ভাবে জার্সি টেনে ধরেও আটকাতে পারলেন না মেসিকে। কোপা দেল রে-র ফাইনালে বার্সা গেল সহজেই। এপি

বেপরোয়া: এল ক্লাসিকোয় লুকা মদ্রিচ এ ভাবে জার্সি টেনে ধরেও আটকাতে পারলেন না মেসিকে। কোপা দেল রে-র ফাইনালে বার্সা গেল সহজেই। এপি

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ০১ মার্চ ২০১৯ ০৪:৩৪
Share: Save:

রিয়াল মাদ্রিদ ০ • বার্সেলোনা ৩

স্প্যানিশে ‘এল পিস্তোলেরো’। বাংলায়, ‘বন্দুকবাজ’। দক্ষিণ আমেরিকায় ফুটবলপ্রেমীরা লুইস সুয়ারেসকে এই নামেই ডাকে। কেন ডাকে বেশ কয়েক ম্যাচ পরে ফের বোঝা গেল বুধবার সান্তিয়াগো বের্নাবাউয়ে। কোপা দেল রে সেমিফাইনালের ফিরতি ম্যাচ বার্সেলোনা ৩-০ জিতল। জোড়া গোল করলেন উরুগুয়ান স্ট্রাইকার। অন্য গোলটিও তাঁরই চাপে রিয়াল সেন্টারব্যাক রাফায়েল ভারানের আত্মঘাতী। দু’দলের প্রথম লেগ ক্যাম্প ন্যুতে ১-১ ড্র হয়। স্বভাবতই ফাইনালে চলে গেলেন লিয়োনেল মেসিরা। যদিও আর্জেন্টাইন তারকা প্রত্যাশাপূরণ করতে পারেননি। ম্যাচ শেষে সেটা স্বীকারও করলেন। অবশ্য রিয়ালকে দেখে নেওয়ার আরও একটা সুযোগ এ’সপ্তাহেই মেসি পাচ্ছেন। লা লিগায় ‘এল ক্লাসিকো’ শনিবারই।

কোপা দেল রে-র এল ক্লাসিকোয় প্রথম ৪৫ মিনিট কিন্তু দাপিয়ে খেলেছে রিয়ালই। আঠারো বছরের ব্রাজিলীয় প্রতিভা ভিনিসিয়াস জুনিয়রকে নিয়ে উদ্বেগে ছিলেন বার্সা ম্যানেজার আর্নেস্তো ভালভার্দে। তাই প্রথম থেকেই দু’জনকে দিয়ে তাঁকে মার্কিং করান। কিন্তু তার পরেও বার্সার নড়বড়ে ডিফেন্স বারবার ভিনিসিয়াসের গতি সামলাতে হিমশিম খেয়েছে। রিয়াল ম্যানেজার সান্তিয়াগো সোলারির কপাল নেহাত খারাপ বলেই প্রথমার্ধ গোলশূন্য শেষ করতে হয়।

দ্বিতীয়ার্ধে অন্য পরিকল্পনা নিয়ে নেমেছিলেন সুয়ারেস। মেসির বিবর্ণ দিনে তাঁর পা হয়ে উঠেছিল ‘বন্দুক’। মূলত উরুগুয়ান তারকার সৌজন্যেই বার্সা ফাইনালের টিকিট পেয়ে গেল দুই ম্যাচ মিলিয়ে নিজেদের পক্ষে ৪-১ ফল করে ফেলে। হঠাৎ জেগে ওঠা সুয়ারেসকে দেখে রিয়াল সমর্থকেরাও চুপচাপ হয়ে যান। ৫০ মিনিটে অসাধারণ প্লেসিংয়ে তাঁর ফিল্ড গোলটি দুরন্ত। কিন্তু সব ছাপিয়ে গেল, সুয়ারেসের পেনাল্টি শট। মারলেন ‘পানেনকা’। যে শটে গোলরক্ষকের ডান বা বাঁ দিকে বল না রেখে আলতো ছোঁয়ায় তুলে দেওয়া হয়। বল ঢোকে গোলের মাঝামাঝি জায়গা দিয়ে।

ছন্দে: জোড়া গোল করে নায়ক উরুগুয়ান তারকা। এপি

রিয়ালের বিরুদ্ধে সুয়ারেসেরও ১৩ ম্যাচে ১১ গোল হয়ে গেল। এমনকি সুয়ারেস বার্সায় আসার পরে মেসিও রিয়ালের বিরুদ্ধে এত গোল করেননি। বুধবার অবশ্য আর্জেন্টাইন তারকাকে আটকাতে কোনও কৌশল নিতে বাদ রাখেনি রিয়াল। একবারের ব্যালন ডি’ওর জয়ী লুকা মদ্রিচ পাঁচ বার ব্যালন ডি’ওর পাওয়া মেসির জার্সি ধরে দৃষ্টিকটূ ভাবে ঝুলেও পড়েন। অবশ্য সেরা ফুটবলারের খারাপ দিনের খামতি ঢেকে গেলেন সুয়ারেস। আর অসাধারণ খেলেও রিয়ালের ভিনিসিয়াস মার খেলেন গোল করায় ব্যর্থতায়। অন্তত এ দিনের ম্যাচের পরিপ্রেক্ষিতে যেন তাঁর শিক্ষকের ভূমিকা নিয়েছিলেন সুয়ারেস।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE