Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ ই-পেপার

URL Copied

খেলা

কী ভাবে পর্ন তারকা হয়ে উঠলেন এক সময়ের তারকা জিমন্যাস্ট

নিজস্ব প্রতিবেদন
০৬ নভেম্বর ২০১৯ ১৩:৪৪
ছিলেন বিশ্বের সেরা জিমন্যাস্টদের অন্যতম। কিন্তু গত ১৭ বছরে তাঁর জীবন আমূল পরিবর্তিত হয়েছে। অতীতে দেশের সেরা ক্রীড়াবিদের সম্মান পাওয়া নাম কিনা হয়ে গেল একজন কারাবন্দি! এখানেই শেষ নয়। তিনি জানিয়েছেন, গত আট বছর কাজ করছেন পর্নতারকা হয়ে। আর্টিস্টিক জিমন্যাস্ট ভেরোনা ভ্যান দ্য ল্যর-এর জীবন তাঁর ভল্টের মতোই চমকপ্রদ।

নেদারল্যান্ডসের দক্ষিণ অংশে গৌডা অঞ্চলে ভেরানোর জন্ম ১৯৮৫ সালের ২৭ ডিসেম্বর। মাত্র পাঁচ বছরে শুরু করেন জিমন্যাস্টিক্স প্রশিক্ষণ।
Advertisement
১২ বছর বয়সে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন জাতীয় স্তরে। ২০০০ সালে প্রথম আবির্ভাবেই জুনিয়র অল রাউন্ড চ্যাম্পিয়ন হন ভেরোনা।

পরের বছর সাফল্য এল আন্তর্জাতিক মঞ্চে। গ্রিসে ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে তাঁর নামের পাশে যোগ হয় পাঁচটি পদক।
Advertisement
এরপর সাফল্যের নিরিখে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি ভেরোনাকে। ২০০১ সালে তিনি-ই ডাচ অল অ্যারাউন্ড উইমেন্স চ্যাম্পিয়ন।

২০০২ সালে জিমন্যাস্টিক্স বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে স্বর্ণপদক পেয়েছিলেন ডাচ আর্টিস্টিক জিমন্যাস্ট ভেরোনা। সে বছর তিনি দেশের সেরা ক্রীড়াবিদ ঘোষিত হন।

সাফল্যের সুর কাটল ২০০৪ সালে। অ্যাথেন্স অলিম্পিক্সের জন্য নির্বাচিত হতে পারলেন না ভেরোনা। এই নিয়ে ব্যক্তিগত প্রশিক্ষক ফ্র্যাঙ্কের সঙ্গে মতবিরোধ হয় ভেরোনার।তিনি কোচ পরিবর্তন করেন।তাঁর নতুন কোচ হন বরিস ওর্লোভ।

নতুন কোচের প্রশিক্ষণে ফের সাফল্যে ফিরে আসেন ভেরোনা। ২০০৭ সালে তিনি চতুর্থবারের জন্য জিমন্যাস্টিক্সে নেদারল্যান্ডসে অল রাউন্ড চ্যাম্পিয়ন হন। পরের বছর খেলা থেকে অবসরের সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন তিনি।

অবসরের কারণ হিসেবে জানিয়েছিলেন, তিনি আর মোটিভেশন পাচ্ছেন না। এর পাশাপাশি, তাঁর ব্যক্তিগত জীবনের সমস্যা 
এবং জিমন্যাস্টিক্স ফেডারেশনের সঙ্গে মতান্তরও অবসরের সিদ্ধান্তের জন্য দায়ী বলে শোনা যায়।

জিমন্যাস্টিক্স ছাড়ার পরেই তাঁর জীবনে নাটকীয় পরিবর্তন। ২০১১ সালে প্রায় আড়াই মাসের কারাদণ্ড হয় ভেরোনার। অভিযোগ, তিনি এক দম্পতিকে ব্ল্যাকমেল করেছিলেন।

তদন্তে উঠে আসে,ওই দম্পতি বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে লিপ্ত ছিলেন। সেটিকে মূলধন করেই ভেরোনা ব্ল্যাকমেলিং করছিলেন বলে জানা যায়।

সম্প্রতি তিনি জানিয়েছেন, ২০১১ থেকেই তিনি পর্ন ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করছেন। ভেরানোর অভিযোগ, জেল থেকে মুক্তির পরে পরিবারের লোক তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক রাখেননি। তাই অর্থ সংস্থানের জন্য তিনি বাধ্য হয়েছিলেন এই পেশায় আসতে।

তবে ভেরানো জানিয়েছেন, তিনি আর পাঁচজন পর্নতারকার থেকে আলাদা। কাজের নিয়মকানুনও ঠিক করতেন তিনি নিজেই। তাঁর দাবি, পর্ন ছবি যা করেছেন, সেখানে হয় তিনি একা ছিলেন, অথবা বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে শুটিং করেছেন।

এ বছরই পর্ন ইন্ডাস্ট্রি থেকে বিদায় নেওয়ার কথা জানিয়েছেন ভেরোনা। দু’টি চুক্তি শেষ হওয়ার অপেক্ষায় আছেন তিনি।

তবে ভেরোনা এ কথাও জানিয়েছেন গত আট বছর ধরে তিনি এই কাজ উপভোগ করছেন। মনে হচ্ছে, বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে সুন্দর সময় কাটছে। সোশ্যাল মিডিয়াতেও তিনি যথেষ্ট জনপ্রিয়। তাঁর ফেসবুক প্রোফাইল অনুরাগীদের শুভেচ্ছায় ভরা। (ছবি:সোশ্যাল মিডিয়া)