Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৪ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

খেলা

রবি শাস্ত্রী, জাস্টিন ল্যাঙ্গার থেকে লালচাঁদ রাজপুত, ক্রিকেট কোচেদের বেতন চোখ কপালে তুলবে

নিজস্ব প্রতিবেদন
১০ অক্টোবর ২০১৯ ১৪:৩৮
ক্রিকেটে কোচের ভূমিকা বিশাল। ক্রিকেটারদের টেকনিক্যাল দুর্বলতা খুঁজে বের করা, তা সারানোর পাশাপাশি বিপক্ষের জন্য স্ট্র্যাটেজি তৈরি করা তাঁর দায়িত্বের মধ্যে পড়ে। অধিনায়কের সঙ্গে কোচেরও ভূমিকা থাকে প্রথম এগারো বেছে নেওয়ার ক্ষেত্রে। কাজ যতই একই রকমের হোক, কোচদের চুক্তিতে কিন্তু দেখা যায় পার্থক্য। বিভিন্ন দেশে কোচদের পারিশ্রমিকেও পার্থক্য বিশাল। দেখে নেওয়া যাক বেশ কয়েক জন কোচের পারিশ্রমিক।

জিম্বাবোয়ের কোচ এখন এক ভারতীয়, মুম্বইয়ের লালচাঁদ রাজপুত। শোনা যাচ্ছে, ভারতীয় মুদ্রায় বছরে ৩৫.৮ লাখ টাকার চুক্তি তাঁর। ডলারের হিসেবে বছরে যা ৫০ হাজার । ২০১৮ সালে জিম্বাবোয়ের অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হয়েছিলেন প্রথমে। পরে সেই বছরেই পূর্ণাঙ্গ দায়িত্বে আসেন।
Advertisement
ওয়েস্ট ইন্ডিজের বর্তমান কোচ ফ্লয়েড রেইফার। ১২ বছরের আন্তর্জাতিক কেরিয়ারে তিনি ১৫ ম্যাচ খেলেছেন। ২০১৪ সালে সব ধরনের ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন তিনি। চলতি বছরের গোড়ায় রিচার্ড পাইবাসের জায়গায় কোচ হন। যা খবর তাতে ভারতীয় মুদ্রায় বছরে ৬৪.৫ লাখ টাকা পাচ্ছেন তিনি।

এক যুগেরও বেশি সময় ধরে সুনামের সঙ্গে কোচিং করাচ্ছেন ওটিস গিবসন। বিভিন্ন দেশে কোচিং করিয়েছেন তিনি। গিবসন কিছুদিন আগেও ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার কোচ। বিশ্বকাপে ব্যর্থতার পরিপ্রেক্ষিতে ছেঁটে ফেলা হয় তাঁকে। তাঁর সঙ্গে ভারতীয় মুদ্রায় বাৎসরিক ১.০৫ কোটি টাকার চুক্তি ছিল বলে শোনা যায়।
Advertisement
বাংলাদেশের কোচ এখন রাসেল ডোমিনগো। তিনি প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট খেলেননি। তবে খুব তাড়াতাড়ি তিনি কোচিংয়ের জগতে প্রবেশ করেন। চার বছর দক্ষিণ আফ্রিকাকে কোচিং করিয়েছিলেন তিনি। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সূত্র অনুসারে, বছরে ভারতীয় মুদ্রায় ১.২৯ কোটি টাকা পাচ্ছেন ডোমিনগো।

চার বছর মাইক হেসন দায়িত্ব সামলানোর পর নিউজিল্যান্ডের এখন কোচ গ্যারি স্টিড। এর আগে ঘরোয়া ক্রিকেটে কোচিং করিয়েছেন তিনি। তাঁর কোচিংয়ে কিউয়িরা তিন ফরম্যাটেই সাফল্য পাচ্ছেন। বিশ্বকাপের ফাইনালেও উঠেছিল নিউজিল্যান্ড। যা খবর, তাতে ভারতীয় মুদ্রায় বাৎসরিক ১.৭৩ কোটি টাকা পান তিনি।

মিকি আর্থারের পর পাকিস্তানের কোচ হয়েছেন মিসবা উল হক। তিনি শুধু প্রধান কোচই নন, জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচকও। তিনি পাকিস্তানের সফলতম টেস্ট অধিনায়কও। তবে কোচ ও নির্বাচক, দুই দায়িত্ব পালন করতে হলেও বাড়তি অর্থ পাচ্ছেন না বলেই পাক বোর্ডের সূত্রের খবর। শোনা যাচ্ছে, ভারতীয় মুদ্রায় বছরে ১.৭৯ কোটি টাকার চুক্তি হয়েছে তাঁর।

২৬ টেস্ট ও ৩৫ একদিনের ম্যাচ খেলেছেন চন্দ্রিকা হাথুরাসিংহে। ২০০৫ সালে প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটকে বিদায় জানান তিনি। ২০১৪ সালে বাংলাদেশের কোচ হন হাথুরাসিংহে। ২০১৭ সালে হন শ্রীলঙ্কার কোচ। সেই সময়ে তাঁর সঙ্গে ভারতীয় মুদ্রায় বছরে ৩.৪৪ কোটি টাকার চুক্তি হয়েছিল বলে খবর।

ট্রেভর বেইলিস কখনও অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় দলের হয়ে খেলতে পারেননি। কিম্তু কোচিং দুনিয়ায় তিনি বেশ জনপ্রিয়। ২০১৫ সালে ইংল্যান্ডের কোচ হন তিনি। তাঁর কোচিংয়ে সদ্য বিশ্বকাপ জিতেছে ইংল্যান্ড। অ্যাশেজ পর্যন্ত চুক্তি ছিল তাঁর। শোনা যাচ্ছে, চুক্তি অনুসারে ভারতীয় মুদ্রায় বছরে ৩.৭৩ কোটি টাকা পেতেন তিনি।

টেস্ট ক্রিকেটে সফলতম ওপেনারদের অন্যতম হিসেবে ৪৫.২৭ গড়ে কেরিয়ার শেষ করেছিলেন জাস্টিন ল্যাঙ্গার। ২০১৮ সালের মে মাসে তিনি অস্ট্রেলিয়ার কোচ হন। এই মুহূর্তে বোর্ডের খবর অনুসারে ভারতীয় মুদ্রায় বছরে ৪.৬৬ কোটি টাকার চুক্তি তাঁর।

ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড আর্থিক ভাবে সবচেয়ে স্বচ্ছল। ফলে, টিম ইন্ডিয়ার প্রধান কোচ হিসেবে রবি শাস্ত্রী যে ক্রিকেটদুনিয়ায় সবচেয়ে বেশি অর্থ পাবেন, তাতে বিস্ময়ের কিছু নয়। ৫৭ বছর বয়সি বছরে ৯.৭ কোটি টাকা পান বলে খবর।