×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৩ জুন ২০২১ ই-পেপার

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে চাঁদের হাট, বাকিংহামে কোহালিরা

নিজস্ব প্রতিবেদন
৩০ মে ২০১৯ ০৪:৩৪
রাজকীয়: রানি এলিজ়াবেথের সঙ্গে দশ দলের অধিনায়কেরা। ছবি: এএফপি

রাজকীয়: রানি এলিজ়াবেথের সঙ্গে দশ দলের অধিনায়কেরা। ছবি: এএফপি

বাইশ গজের লড়াই শুরু হওয়ার আগে বাকিংহাম প্যালেসে বেজে গেল বিশ্বকাপ-বাজনা। এক মঞ্চে দেখা গেল দশ অধিনায়ককে।

কাপ উদ্বোধনের অঙ্গ হিসেবে বিশ্বকাপ ট্রফি হাতে নিয়ে প্রবেশ করেন অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক মাইকেল ক্লার্ক। যে ট্রফির জন্য আগামী দেড় মাস ধরে চলবে দশ দেশের লড়াই। আজ, বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়ে যাচ্ছে বিশ্বকাপ, দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম ইংল্যান্ডের ম্যাচ দিয়ে। তার আগে বুধবার রাতে হল উদ্বোধন অনুষ্ঠান। যার অংশ হিসেবে বাকিংহাম প্যালেসে যান কোহালিরা। সেখানে রানি দ্বিতীয় এলিজ়াবেথ এবং প্রিন্স হ্যারি দেখা করেন অধিনায়কদের সঙ্গে।

বাকিংহাম প্যালেসের কাছেই মলে চলে মূল উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। যেখানে মঞ্চে উঠে আসেন অধিনায়কেরা। কোহালি মঞ্চে উঠতে হাততালি পড়ে সব চেয়ে বেশি। ভারত অধিনায়ক বলেন, ‘‘এখানে আসতে পেরে খুব ভাল লাগছে। ইংল্যান্ডে আমাদের ভক্ত সংখ্যা অনেক। দেশ থেকেও প্রচুর মানুষ এসেছেন। বিশ্বের যে কোনও দেশেই আমরা খেলি না কেন, স্টেডিয়ামের পঞ্চাশ শতাংশ দর্শক ভারতীয় হয়। এটা আমাদের কাছে যেমন চাপের, তেমন গর্বেরও।’’

Advertisement

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন ভিভিয়ান রিচার্ডস, জাক কালিস, কেভিন পিটারসেন, অ্যান্ড্রু ফ্লিন্টফের মতো তারকারা। যেখানে প্রাক্তন অলরাউন্ডার কালিস নিজের দল সম্পর্কে বলেন, ‘‘দক্ষিণ আফ্রিকা এ বার ফেভারিটদের মধ্যে পড়ছে না। সেটা কিন্তু সুবিধার। চাপমুক্ত হয়ে খেলবে ফ্যাফ ডুপ্লেসিরা।’’

পিটারসেন মুগ্ধ ইংল্যান্ডের ভয়ডরহীন ক্রিকেটে। কেপি বলেছেন, ‘‘ব্যর্থতার ভয় না থাকলে অবিশ্বাস্য সব পারফরম্যান্স করা যায়।’’ ইংল্যান্ড অধিনায়ক অইন মর্গ্যানের প্রশংসা করে কেপি বলেছেন, ‘‘মর্গ্যান খুবই ঠান্ডা মাথার অধিনায়ক। ওর প্রতি সতীর্থদের পুরো সমর্থন আছে।’’

গত বারের চ্যাম্পিয়ন দলের অধিনায়ক হিসেবে ট্রফি আনেন ক্লার্ক। অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক মনে করেন, ইংল্যান্ডই এ বার ট্রফি জয়ের দৌড়ে এগিয়ে থাকবে। কিংবদন্তি সুনীল গাওস্করও বলেছেন, ‘‘পরিষ্কার বলছি, এ বারের বিশ্বকাপে ভারত নয়, ইংল্যান্ডই ফেভারিট। ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডকে হারানো কঠিন হবে।’’

‘৬০ সেকেন্ডের চ্যালেঞ্জ’ বলে একটি অভিনব প্রতিযোগিতাও হয়। প্রতি দলে ছিলেন দু’জন অতিথি। এক জন প্রাক্তন খেলোয়াড় এবং এক জন বিশেষ প্রতিনিধি। প্রাক্তন অধিনায়ক অনিল কুম্বলে এবং বলিউড তারকা ফারহান আখতার ভারতের প্রতিনিধিত্ব করেন। এ ছাড়া কিংবদন্তি ভিভ রিচার্ডস, কালিস, ব্রেট লি, পিটারসেনের মতো প্রাক্তন ক্রিকেটারেরা ও নোবেল শান্তি পুরস্কার জয়ী মালালা ইউসুফজ়ায়ি যোগ দেন এই চ্যালেঞ্জে। আম্পায়ার ছিলেন প্রাক্তন অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার ডেভিড বুন। হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয় ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে। ইংল্যান্ড ৭৪ রানে হারায় অস্ট্রেলিয়াকে (৬৯)। সবচেয়ে কম রান ভারতের। মাত্র ১৯।

Advertisement