×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৯ জুন ২০২১ ই-পেপার

অভিষেকেই চমক, ম্যাচের সেরার পুরস্কার কাকে উৎসর্গ করলেন ঈশান কিষাণ?

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৫ মার্চ ২০২১ ০০:২২
অভিষেক ম্যাচে অর্ধ শতরানের পর ঈশান।

অভিষেক ম্যাচে অর্ধ শতরানের পর ঈশান।
ছবি - বিসিসিআই

রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই আক্রমণ। একেবারে ভয়ডরহীন ক্রিকেট যাকে বলে। অভিষেক ম্যাচেই এমন ব্যাটিং তাণ্ডব দেখিয়ে বুঝিয়ে দিলেন তিনি আন্তর্জাতিক মঞ্চের জন্য পুরোপুরি তৈরি। তবে ২২ বছরের ঈশান কিষাণের ব্যাটিং যতটা রুক্ষ, তাঁর মন ততটাই নরম। তাই তো ছোটবেলার প্রশিক্ষক উত্তম মজুমদারের পিতৃবিয়োগে একই রকম সমব্যাথী ঝাড়খণ্ড থেকে উঠে আসা ঈশান। ম্যাচের সেরা পুরস্কারও উত্তম মজুমদারের সদ্য প্রয়াত বাবার উদ্দেশে নিবেদন করলেন এই বাঁহাতি।

রবিবার নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে ১৬৪ রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই বাইশ গজে ঝড় তোলেন ঈশান। তাঁর ৩২ বলের ৫৬ রানের ইনিংসের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত যেন আগুন ঝরে পড়ছিল। ইনিংস সাজানো ছিল ৫টি বাউন্ডারি ও ৪টি ওভার বাউন্ডারি দিয়ে, যা ক্রিজের অন্য প্রান্ত থেকে তারিয়ে তারিয়ে উপভোগ করলেন দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলী।

ম্যাচের সেরার পুরস্কার হাতে তুলে ঈশান বলেন, “জাতীয় দলের হয়ে অভিষেক ম্যাচে সফল হব সেটা স্বপ্নেও ভাবিনি। আমাকে সাহায্য করার জন্য দলের প্রত্যেক সিনিয়র, প্রশিক্ষকদের ধন্যবাদ জানাই। আমার ছোটবেলার প্রশিক্ষকের বাবা কয়েকদিন আগেই গত হয়েছেন। তাই এই পুরস্কার ওঁকে উৎসর্গ করলাম।”

Advertisement

ঝাড়খণ্ড হোক কিংবা আইপিএলের মঞ্চে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে ব্যাটিং, সবসময় মারমুখী মেজাজে থাকেন ঈশান। কয়েক সপ্তাহ আগেই বিজয় হজারে ট্রফিতে মধ্যপ্রদেশের বিরুদ্ধে ৯৪ বলে ১৭৩ রান করেন। ফলে আত্মবিশ্বাস ছিল তুঙ্গে। যদিও ঈশান মনে করেন আন্তর্জাতিক মঞ্চ অনেক কঠিন। তাই বলেন, “অভিষেক ম্যাচে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে একটু ভয় কাজ করে। অনেকের কাছে এটা শুনেছি। কিন্তু আমার সিনিয়ররা সেটা বুঝতেই দেয়নি। ওঁরা সবসময় স্বাভাবিক ভাবে ব্যাট করতে বলেছিল। ফলে ওদের কথা শোনার পর আত্মবিশ্বাস আরও বেড়ে যায়। অবশ্য শুরুতেই সাফল্যের পিছনে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের অনেক অবদান আছে। কারণ ভিত সেখান থেকেই তৈরি হয়েছিল।”


তবে দল জিতলেও ঈশানের আক্ষেপ কিছুতেই মিটেছে না। কিন্তু কেন? তরুণের বক্তব্য, “বিরাট ভাই সব সময় ভরসা জুগিয়ে গিয়েছে। তাই ম্যাচটা জিতিয়ে মাঠ ছাড়া উচিত ছিল। সেটা করতে পারিনি বলে খারাপ লাগছে।”

ইনিংসে একাধিক চোখ ধাঁধানো শট খেলেছেন। লাগাতার দুটো ওভার বাউন্ডারি মেরে প্রথম অর্ধ শতরান পূরণ করেছেন। ঈশান শেষে বলছেন, “টম কুরানকে প্রথম যে ছয়টা মেরেছিলাম সেটাই সবচেয়ে প্রিয়। সেই শটের পর যেন আত্মবিশ্বাস দ্বিগুণ হয়ে যায়।”

দ্বিতীয় ভারতীয় হিসেবে অভিষেক টি-টোয়েন্টি ম্যাচে অর্ধ শতরান করলেন ঈশান। অজিঙ্ক রাহানে পর এই তালিকায় তাঁর নাম উঠে গেল। তবে এখনও যে অনেক পথ চলা বাকি।

Advertisement