Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৫ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

সফল মাভিদের মুখে নাইটদের সমর্থনের কথা

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ০২ অক্টোবর ২০২০ ০৪:৩৪
ত্রয়ী: জয়ের দিন মাভি, শুভমন ও নগরকোটি (ডান দিকে)। কেকেআর

ত্রয়ী: জয়ের দিন মাভি, শুভমন ও নগরকোটি (ডান দিকে)। কেকেআর

দু’জনেই ভারতীয় অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বচ্যাম্পিয়ন দলের সদস্য ছিলেন। ২০১৭ সালেই তাঁদের কিনেছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। নাইট জার্সিতে প্রথম মরসুমে বেশ কয়েকটি ম্যাচ খেলেছিলেন শিবম মাভি। ২০১৯ সালে যদিও খেলতে পারেননি চোটের জন্য। দ্বিতীয় জন কমলেশ নগরকোটি। শেষ দু’বছরে একটিও ম্যাচ খেলা হয়নি তাঁর। নগরকোটির ক্রিকেট জীবনে প্রশ্ন তুলে দিয়েছিল তাঁর গোড়ালি ও কোমরের চোট।

যদিও এই দুই তরুণ পেসারের উপর থেকে আস্থা হারায়নি কলকাতা নাইট রাইডার্স। তাঁদের দলে রাখার ফল ২০২০ সালের আইপিএলে পেতে শুরু করেছে নাইট শিবির। বুধবার রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে জস বাটলার ও সঞ্জু স্যামসনের উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচের সেরা মাভি। রবিন উথাপ্পা ও রিয়ান পরাগকে ফিরিয়ে বিপক্ষের মাঝের সারির কাঁটা হয়ে দাঁড়ান নগরকোটি। নজর কাড়ে তাঁর ফিল্ডিংও। ম্যাচ শেষে শাহরুখ খান তাই বিশেষ অভিনন্দন জানান মাভি, নগরকোটি ও শুভমন গিলকে। ধন্যবাদ জানাতে ভোলেননি মাভিরাও।

ম্যাচ শেষে নাইটদের দাপটে খুশি হয়ে টুইটারে সচিন তেন্ডুলকর লেখেন, ‘‘শুভমনের ইনিংসটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। রাসেলের ইনিংসও বেশ প্রভাব ফেলেছে। কিন্তু সব চেয়ে ভাল ফিনিশ অইন মর্গ্যানের।’’ যোগ করেন, ‘‘বোলারদেরও প্রশংসা প্রাপ্য। অধিনায়ক দীনেশ কার্তিককেও অভিনন্দন জানাব দুর্দান্ত সব সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য।’’ নগরকোটির উড়ন্ত ক্যাচের প্রশংসাও করেন সচিন। লেখেন, ‘‘নগরকোটির ক্যাচটা কী করে ভুলতে পারি। অসাধারণ অ্যাথলিট।’’ সচিনের মন্তব্যকে রিটুইট করে নাইটদের অন্যতম কর্ণধার শাহরুখ খান লেখেন, ‘‘কিংবদন্তি প্রশংসা করে দিয়েছে। আমি আর আলাদা করে কী বলি। দলের সিনিয়র ক্রিকেটারদের সঙ্গেই তরুণদের পারফর্ম করতে দেখে ভাল লাগছে। তোমাদের খুব ভালবাসি।’’

Advertisement

ম্যাচ শেষে আরও একটি অভিনব দৃশ্য দেখা যায় মাঠের মধ্যে। অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক সাক্ষাৎকার নেন দুই তরুণ পেসার মাভি ও নগরকোটির। কার্তিকের প্রশ্ন, ‘‘কামিন্স, রাসেলদের সঙ্গে কতটা বোঝাপড়া তৈরি হয়েছে?’’ মাভি বলেন, ‘‘কামিন্স, রাসেলরা একেবারে বন্ধুর মতো মেশে।’’ নগরকোটিও বললেন, ‘‘কোনও সমস্যা হলে সিনিয়রদের থেকে সাহায্য নিতে পারি। অনায়াসে প্রশ্ন করতে পারি।’’ কার্তিকের আরও প্রশ্ন, ‘‘এই যে এসআরকে বসে ম্যাচ দেখলেন। তাঁর সামনে পারফর্ম করে কেমন লাগল?’’ নগরকোটির উত্তর, ‘‘শেষ দু’বছর চোটের জন্য খেলতে পারিনি। তবুও এসআরকে স্যর ও বেঙ্কি স্যর আমার উপরে আস্থা রেখেছেন। তাঁদের সামনে আজ পারফর্ম করতে পেরে প্রচণ্ড খুশি।’’ শনিবার শারজায় দিল্লি ক্যাপিটালসের বিরুদ্ধে ম্যাচ কার্তিকদের।

আরও পড়ুন

Advertisement