Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

স্ট্রেট ড্রাইভ

IPL 2021: শেষ বলে হারের ধাক্কা ভুলে শারজায় নামুক কেকেআর

সুনীল গাওস্কর
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ০৯:২৩
ফাইল চিত্র।

ফাইল চিত্র।

মঙ্গলবারের জোড়া লড়াইয়ে এমন তিনটে দল খেলবে, যারা প্লে-অফে ওঠার দৌড়ে রয়েছে। এই তিনটে দলই চাইবে যে ভাবে হোক জয়ের সরণিতে ফিরতে। কলকাতা নাইট রাইডার্স বনাম দিল্লি ক্যাপিটালস আর মুম্বই ইন্ডিয়ান্স বনাম পঞ্জাব কিংসের ম্যাচে তাই উত্তেজনার রসদ কম থাকবে না। দিল্লি বাদে বাকি তিনটে দল মরিয়া লড়াই চালাচ্ছে প্লে-অফের ছাড়পত্র পেতে।

দিল্লি এই মুহূর্তে দারুণ ছন্দে আছে। ওদের নেতৃত্ব দিচ্ছে খুব চালাক একটা ছেলে। যে ভাবে একটার পর একটা ম্যাচ অনায়াসে জিতছে দিল্লি, তাতে প্রতিপক্ষ দলগুলোর কাঁপুনি ধরে যেতে বাধ্য। কলকাতাও খুব ভাল খেলছে। শারজায় নাইটদের একটা ব্যাপার মাথায় রাখতে হবে। আগের ম্যাচে শেষ বলে চেন্নাই সুপার কিংসের কাছে হারটা যেন ভুলে গিয়ে মাঠে নামে। রবীন্দ্র জাডেজার ওই বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ের আগে কেকেআর লড়াইয়ে ভাল মতোই ছিল। কিন্তু প্রসিদ্ধ কৃষ্ণের করা ১৯তম ওভার থেকে ২১ রান তুলে জাডেজা ম্যাচ ঘুরিয়ে দেয়। জাডেজাকে দেখে মনে হচ্ছে, ও ছন্দের তুঙ্গে আছে।

সাধারণত আমরা দেখে থাকি, ১৯তম ওভারটা দলের সেরা বোলারকেই দেওয়া হয়। যাতে সে রানটা আটকে দিয়ে শেষ ওভারে ব্যাটারদের কাজটা আরও কঠিন করে তুলতে পারে। প্রসিদ্ধের বলে গতি আছে। ব্যাটারদের দু’একটা কথাও শুনিয়ে দিতে পারে। কিন্তু জাডেজা দুটো বিশাল ছয় মারার পরে ওকে দেখে মনে হচ্ছিল, পথ হারিয়ে ফেলা এক শিশু। যে কারণে পরের দুটো বল অফস্টাম্পের বাইরে ফুলটস করে আরও দুটো চার দিয়ে বসল। কলকাতাও ওখানেই ম্যাচ থেকে হারিয়ে গেল।

Advertisement

তা-ও যে ম্যাচটা শেষ বলে গিয়ে সমাপ্ত হল, তার জন্য দায়ী এখনকার ব্যাটারদের মানসিকতা। যারা মাথা ঠান্ডা করে কাজটা শেষ করার চেয়ে চোখ ধাঁধানো শট বেশি খেলতে চায়। ফাঁকা জায়গায় বলটা ঠেলে দু-একটা খুচরো রান নিয়ে ম্যাচ জেতার চেষ্টা নয়। একটা দারুণ শট খেলে জেতার চেষ্টা করতে গিয়েই ম্যাচটা শেষ বল পর্যন্ত গড়ায়। ঠিক এই ভাবেই রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের বিরুদ্ধে বড় শট খেলতে গিয়ে ম্যাচটা হেরে বসল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। তার আগে ওদের বোলাররা কিন্তু দারুণ ভাবে আটকে দেয় আরসিবি ব্যাটিংকে।

মুম্বইকে এখন প্লে-অফে উঠতে গেলে সব ক’টা ম্যাচ জিততে হবে। আর সেটা সম্ভব হবে, যখন ওদের দলের তরু‌ণ ব্যাটাররা বুঝবে, ভয়ডরহীন ক্রিকেট আর অসতর্ক ক্রিকেটের মধ্যে একটা ছোট্ট পার্থক্য আছে। এই পার্থক্যটাই ওরা গত তিনটে ম্যাচে ভুলে গিয়েছিল। আর সেই কাজটা যদি করতে না পারে, তা হলে গত বারের চ্যাম্পিয়নদের জন্য বিদায়ের ঘণ্টা বেজে যাবে।

শারজার গরমে মাথা ঠান্ডা রেখে নিজেদের সামনে প্লে-অফের একটা দরজা খুলে দিয়েছে পঞ্জাব। হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে অল্প স্কোর করার পরেও ওরা ম্যাচ জিতে নিয়েছে। (টিসিএম)

আরও পড়ুন

Advertisement