Advertisement
১৮ জুন ২০২৪
IPL 2023

দিল্লির গ্যালারিতে উত্তেজনা, হাতাহাতি! কেন মারামারিতে জড়ালেন ক্রিকেটপ্রেমীরা?

আইপিএলের ম্যাচ চলাকালীন মারামারিতে জড়ালেন কয়েক জন ক্রিকেটপ্রেমী। ঘটনাটি শনিবার দিল্লি এবং হায়দরবাদের ম্যাচের। গ্যালারির উত্তেজনার প্রভাব পড়েনি ম্যাচে।

picture of IPL 2023

শনিবার অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে দর্শকদের মধ্যে মারামারির দৃশ্য। ছবি: টুইটার।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ৩০ এপ্রিল ২০২৩ ১৫:১৮
Share: Save:

ফুটবল গুন্ডারা পরিচিত ক্রীড়াবিশ্বে। আইপিএলের হাত ধরে কি এ বার চলে এল ক্রিকেট গুন্ডারাও? শনিবার দিল্লি ক্যাপিটালস এবং সানরাইজার্স হায়দরাবাদ ম্যাচে গ্যালারির একটি ঘটনা তেমন আশঙ্কাই তৈরি করছে। গ্যালারির উত্তেজনার আঁচ অবশ্য খেলায় পড়েনি।

খেলা চলাকালীন দিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামের গ্যালারিতে মারামারিতে জড়িয়ে পড়েন দু’দল সমর্থক। প্রথমে বচসা এবং পরে মারামারি শুরু হয়ে যায়। শুরু হয় এলোপাথারি লাথি, ঘুসি। উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে গ্যালারির অন্য অংশেও। যদিও নিরাপত্তা কর্মীদের তৎপরতায় বড় কোনও সমস্যা হয়নি। দু’দল সমর্থকের মারামারির ভিডিয়ো ছড়িয়ে পড়েছে সমাজমাধ্যমে।

কী কারণে দু’দল সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা তৈরি হয় এবং মারামারিতে জড়িয়ে পড়েন তা জানা যায়নি। গ্যালারির দর্শকদের একাংশকে মোবাইল ফোনে মারামারির ভিডিয়ো করতে দেখা গিয়েছে। নিরাপত্তা কর্মীরা আসার আগে দর্শকদেরই কয়েক জন এগিয়ে এসে থামান মারামারি। আইপিএলের কোনও ম্যাচে এমন ঘটনা এই প্রথম। আইপিএল কর্তৃপক্ষের তরফে এই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করা হয়নি। দিল্লির ক্রিকেট সংস্থাও কিছু জানায়নি।

দিল্লিতে সমর্থকদের মারামারির ঘটনা এই প্রথম নয়। গত বছর ভারত-দক্ষিণ আফ্রিকা টি-টোয়েন্টি সিরিজ়ের দিল্লিতে আয়োজিত ম্যাচেও দু’দল সমর্থক হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েছিলেন। শনিবার আবার একই রকম ঘটনা ঘটায় দিল্লির ক্রিকেটপ্রেমীদের একাংশের আচরণ নিয়ে তৈরি হয়েছে প্রশ্ন।

হায়দরাবাদের কাছেও হেরেছে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের দিল্লি। আটটি ম্যাচ খেলে এই নিয়ে ছ’টিতে হারল দিল্লি। আইপিএলের পয়েন্ট তালিকায় দশম স্থানে রয়েছেন ডেভিড ওয়ার্নাররা।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE