Advertisement
০৮ ডিসেম্বর ২০২২
43 Runs in an over

এক ওভারে ৪৩ রান! নতুন বিশ্বরেকর্ড কী করে হল দেখুন

নিউজিল্যান্ডে ফোর্ড ট্রফির ম্যাচে বুধবার এক ওভারে উঠল ৪৩ রান। নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্টের জো কার্টার ও ব্রেট হ্যাম্পটন এই রেকর্ড গড়লেন সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টের উইলিয়েম লুডিকের বলে।

জো কার্টার ও ব্রেট হ্যাম্পটন। এঁদের ব্যাটেই হল রেকর্ড।

জো কার্টার ও ব্রেট হ্যাম্পটন। এঁদের ব্যাটেই হল রেকর্ড।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ০৭ নভেম্বর ২০১৮ ১৮:১৭
Share: Save:

লিস্ট এ ক্রিকেটে বিশ্বরেকর্ড। নিউজিল্যান্ডে ফোর্ড ট্রফির ম্যাচে বুধবার এক ওভারে উঠল ৪৩ রান। এর আগে এক ওভারে ৩৯ রান ওঠাই ছিল রেকর্ড। যা ভাঙল এদিন।

Advertisement

নর্দার্ন ডিস্ট্রিক্টের জো কার্টার ও ব্রেট হ্যাম্পটন এই রেকর্ড গড়লেন সেন্ট্রাল ডিস্ট্রিক্টের উইলিয়েম লুডিকের বলে। ওভারের প্রথম বলে চার মেরেছিলেন হ্যাম্পটন। পরের দু'টি নো-বল। এবং দুটোতেই ছয় মারেন হ্যাম্পটন। কোমরের থেকে উঁচু ফুলটসের জন্য নো হয়েছিল এই দুই বল। তার পরের বলে ফের ছয়। বিধিসম্মত তৃতীয় বলে সিঙ্গলস নেন হ্যাম্পটন। কার্টার পরের তিন বলই ছয় মারেন স্ট্রাইকে এসে। দু'জনের দাপটে উঠল ৪৩ রান। যা এক ওভারে সবচেয়ে বেশি রানের রেকর্ড।

এই ওভারের আগে লুডিকের বোলিং গড় ছিল ৯-০-৪২-১। এই এক ওভারের ধাক্কায় তাঁর বোলিং গড় দাঁড়ায় ১০-০-৮৫-১। কার্টার-হ্যাম্পটনের জুটি ষষ্ঠ উইকেটে যোগ করে ১৭৮ রান। ৯৫ বলে পাঁচ উইকেট পড়ার পর জুটি বাধেন দু'জনে।

আরও পড়ুন: পোলার্ডের উপর রেগে গেলেন বুমরা

Advertisement

আরও পড়ুন: 'দেশ ছেড়ে চলে যান' মন্তব্য করে ধিকৃত হলেন বিরাট কোহালি

গ্রাফিক: সৌভিক দেবনাথ

লিস্ট এ ক্রিকেটে এর আগে সবচেয়ে বেশি রান দিয়েছিলেন বাংলাদেশের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটার আলাউদ্দিন বাবু। ২০১৩ সালে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের এক ম্যাচে ৩৯ রান দিয়েছিলেন তিনি। জিম্বাবোয়ের প্রাক্তন অধিনায়ক এলটন চিগামবুরা তাঁর ওভারে পাঁচটি ছয় ও তিনটি চার মেরেছিলেন। বাবুর সাত বলের ওভারে একটি নো-বলও ছিল।

(আইসিসি বিশ্বকাপ হোক বা আইপিএল, টেস্ট ক্রিকেট, ওয়ান ডে কিংবা টি-টোয়েন্টি। ক্রিকেট খেলার সব আপডেট আমাদের খেলা বিভাগে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.