×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৩ মে ২০২১ ই-পেপার

হতাশায় ভেঙে পড়া গ্যালারির সামনেই ভিকট্রি ডান্স ইংল্যান্ডের

সুচরিতা সেন চৌধুরী
২৫ অক্টোবর ২০১৭ ২০:৫২
ফাঁকা হয়ে যাওয়া গ্যালারির সামনেই ভিকট্রি ডান্সে মাতল গোটা ইংল্যান্ড দল। ছবি: পিটিআই।

ফাঁকা হয়ে যাওয়া গ্যালারির সামনেই ভিকট্রি ডান্সে মাতল গোটা ইংল্যান্ড দল। ছবি: পিটিআই।

ম্যাচ শেষের বাঁশি বাজতেই মুহূর্তে ফাঁকা হয়ে গেল যুবভারতীর গ্যালারি। দীর্ঘকায় গ্যালারি জোড়া পতাকাটাও এত লহমায় গুটিয়ে গেল কারও ব্যাগে।

হতাশায় দুমড়েমুচড়ে মাঠ ছাড়লেন ব্রাজিল সমর্থকেরা। ইংল্যান্ডের সমর্থক তো এক জনও ছিলেন না। তাই, গ্যালারিতে উৎসব দেখা গেল না। যুবভারতীকে এমন শান্ত শেষ কবে দেখা গিয়েছে?

আর সেই ফাঁকা হয়ে যাওয়া গ্যালারির সামনেই ভিকট্রি ডান্সে মাতল গোটা ইংল্যান্ড দল।

Advertisement



মাঠেই হতাশায় ডুবে পাওলিনহো। ছবি: পিটিআই।

২-১ পর্যন্ত তা-ও আশা ছিল। কিন্তু, ৭৭ মিনিটে ৩-১ হতেই যেন সব আশা শেষ হয়ে গেল ব্রাজিলের। ব্রাজিলের দ্বিতীয় জয় দেখা হল না কলকাতাবাসীর। জার্মানিকে হারানোর ম্যাচে, শুরুতে পিছিয়ে পড়েও জয় পেয়েছিল ব্রাজিল। এই ম্যাচেও তেমনটা হবে আশা করেছিল ব্রাজিলপ্রেমীরা। কিন্তু, তেমনটা হল কই! প্রথমে গোল হজম করে দ্রুতই সমতায় ফিরেছিল ব্রাজিল। আশাটা তাই দ্বিগুণ হয়েছিল। কিন্তু, পর পর গোল হজম করে চ্যাম্পিয়নশিপ হওয়ার আশাটাই শেষ হয়ে গেল ব্রাজিলের। এ বার লড়তে হবে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানের জন্য। পাশাপাশি, ফাইনালে প্রিয় দলকে আবার খেলতে দেখার সব স্বপ্নও শেষ হয়ে গেল কলকাতার।

আরও পড়ুন
ব্রিউস্টারের হ্যাটট্রিকে বিধ্বস্ত ব্রাজিল, ফাইনালে ইংল্যান্ড

ব্রাজিলের জন্য গলা ফাটাতে বুধবার যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গন ভরিয়েছিল ৬৩ হাজার ৮৮১ জন সমর্থক। সরকারি হিসেব তেমনটাই বলছে। কিন্তু, সেই সমর্থকদের জন্যই ব্রাজিলের হার জোড়া ধাক্কা দিয়ে গেল। ভিআইপি গেট দিয়ে বাইরে যেতে যেতে সেই আফসোসই শোনা গেল গড়িয়ার এক পরিবারের মুখে— ‘‘এ ভাবে নীরবে স্টেডিয়াম ছাড়তে হবে, ভাবতেই পারিনি।’’ তখনও সবার মাথায় হলুদ-সবুজ ফেট্টি। একই অবস্থা বাকিদেরও। কত আশা করেই না ফাইনালের টিকিট দীর্ঘ দিন আগে কেটে রেখেছিলেন সকলে। কিন্তু, কে জানত ইংল্যান্ড চ্যাম্পিয়ন হতেই এসেছে। যে ভাবে হাল্কা চালে এ দিন ব্রাজিলকে শেষ করে দিল তারা, তার পর বলাই যেতে পারে, চ্যাম্পিয়নশিপের লক্ষ্যে অনেকটাই এগিয়ে গেল অ্যান্ডরসন, মর্গ্যান, ব্রিউস্টাররা।



হতাশায় মুখ ঢেকেছেন লিনকন। ছবি: এএফপি।

যাঁরা জার্মানি-ব্রাজিল ম্যাচ দেখতে পারেননি, তাঁদেরকে হঠাৎ আশার আলো দেখিয়েছিল এই ম্যাচ। মাঠ খারাপের জন্য গুয়াহাটি থেকে ব্রাজিল-ইংল্যান্ড সেমিফাইনাল কলকাতায় আসতেই টিকিটের চাহিদা ছিল তুঙ্গে। তা-ও এক দিনের মধ্যে টিকিট বিক্রি করে পুরো গ্যালারি ভরল না। এর মধ্যেও যুবভারতীর গ্যালারি ছিল ব্রাজিলেরই পাশে। গ্যালারির এক ইঞ্চিও সমর্থন ছিল না ইংল্যান্ডের জন্য। ম্যাচ শেষে যখন ইংল্যান্ড ভিকট্রি ল্যাপ দিচ্ছিল তখন গ্যালারি ফাঁকা। ইতস্তত-বিক্ষিপ্ত, ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা কয়েক জনের কাছ থেকেই গ্যালারির কাছে গিয়ে শুভেচ্ছা নেওয়ার চেষ্টা করল ইংল্যান্ড টিম। কিন্তু না, তাঁদের থেকেও শুভেচ্ছার হাততালিটুকুও পাওয়া গেল না।

আরও পড়ুন
ভয়ঙ্কর পোস্টার ছেপে মেসিকে আইএস হুমকি

ফাইনালের দিন তৃতীয়-চতুর্থ স্থানের ম্যাচে নামবে ব্রাজিল। তার জন্যই হয়তো গলা ফাটাতে দেখা যাবে কলকাতাকে।

Advertisement