Advertisement
১২ জুলাই ২০২৪

জিতেও পেনাল্টি বিতর্কে জোসে

জিতেও বিতর্কে জড়িয়ে গিয়েছেন মোরিনহো। তাঁর প্রিয় ফুটবলার রোমেলু লুকাকু-কে কেন পেনাল্টি মারতে দিলেন না, তা নিয়ে সমালোচিত হচ্ছেন ম্যান ইউ ম্যানেজার।

বিতর্ক: লুকাকু-কে পেনাল্টি মারতে দিলেন না মোরিনহো। ছবি: রয়টার্স।

বিতর্ক: লুকাকু-কে পেনাল্টি মারতে দিলেন না মোরিনহো। ছবি: রয়টার্স।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ০২ নভেম্বর ২০১৭ ০৪:৪৩
Share: Save:

ম্যান ইউ ২ : বেনফিকা ০

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নক-আউট পর্বের দিকে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড। ২-০ জেতা ম্যাচে যদিও বেনফিকার তরুণ গোলকিপার মিলে শিলারের ভুলের দাক্ষিণ্য পেল জোসে মোরিনহোর দল। কিন্তু তার চেয়েও তাৎপর্যপূর্ণ হচ্ছে, জিতেও বিতর্কে জড়িয়ে গিয়েছেন মোরিনহো। তাঁর প্রিয় ফুটবলার রোমেলু লুকাকু-কে কেন পেনাল্টি মারতে দিলেন না, তা নিয়ে সমালোচিত হচ্ছেন ম্যান ইউ ম্যানেজার। যদিও স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে সব সমালোচনা উড়িয়ে দিচ্ছেন তিনি।

প্রথম লেগে মার্কাস র‌্যাশফোর্ডের ফ্রি-কিক হাতে ধরেও গোললাইন পেরিয়ে গিয়ে গোল খেয়েছিলেন শিলার। দ্বিতীয় লেগে ১৮ বছরের গোলকিপার, যাঁকে অনেকে বিস্ময় প্রতিভা আখ্যা দিয়েছেন, আরও একটি ভুল করে বসলেন। এ বার নেমানইয়া মাতিচের শট পোস্টে লাগার পরে শিলারের বাহুতে লেগে ঢুকে যায় গোলে।

লিসবনে ঘরের মাঠে করা ভুলের পরে ম্যান ইউ ফুটবলাররা গিয়েই সান্ত্বনা দিয়েছিলেন শিলার-কে। মঙ্গলবার রাতে কিন্তু তিনি নায়কও হয়ে যেতে পারতেন। অ্যান্থনি মার্শিয়ালের পেনাল্টি বাঁচিয়ে দেন তিনি। কিন্তু ক্ষণিকের ভুলে গোল খেয়ে নায়ক হওয়া আটকে গেল তাঁর। ভাগ্যের জোরে প্রথম গোলটি পাওয়ার পরে ৭৮ মিনিটে দালে ব্লিন্দ পেনাল্টি থেকে ২-০ করেন।

উচ্ছ্বাস: বেনফিকার বিরুদ্ধে গোলের পর ম্যান ইউ তারকা দালে ব্লিন্দ। মঙ্গলবার রাতে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে। ছবি: রয়টার্স।

গ্রুপে আরও দু’টি ম্যাচ বাকি রয়েছে ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের। আর মাত্র একটি পয়েন্ট পেলেই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নক-আউট পর্বে খেলা নিশ্চিত তাদের। জোসে মোরিনহো তাই ম্যাচের পরেই বলে দিয়েছেন, ‘‘ওই একটা পয়েন্ট আমাদের চাই-ই।’’ এর পরেই জোসে হয়ে উঠলেন জোসে। ‘‘আমি খুব খুশি। আমরা দু’টো গোল করেছি, কোনও গোল খাইনি, তিন পয়েন্ট পেয়েছি, ক্লাবের কোষাগারে আরও টাকা ঢুকেছে। কারণ, প্রত্যেক জয় ক্লাবের ঘরে টাকা আনে।’’

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ‘এ’ গ্রুপে চারটি ম্যাচের চারটিতেই জিতেছে ম্যান ইউ। ৬ পয়েন্টে এগিয়ে থেকে তারা শীর্ষে রয়েছে। কিন্তু সেই আনন্দের মধ্যেই বিতর্ক এসে পড়েছে মোরিনহোর সিদ্ধান্ত নিয়ে। তিনি লুকাকু-কে কেন পেনাল্টি মারতে দিলেন না, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। মোরিনহো যদিও সেই প্রশ্নের জবাব দিতে গিয়ে বলেছেন, ‘‘জানি না কেন সবাই আমাকে একই প্রশ্ন করে যাচ্ছে। সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য আমাকে ক্লাব পয়সা দেয়। তা সে ঠিক সিদ্ধান্ত নিই বা ভুল সিদ্ধান্ত।’’ তার পরেই তাঁর ব্যাখ্যা, ‘‘প্রথমার্ধে আমার সিদ্ধান্ত খারাপ ছিল কারণ যাকে পেনাল্টি মারার জন্য বেছেছিলাম, সে গোল করতে পারেনি। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে যাকে বেছেছিলাম, সে তো গোল করেছে। তা হলে দ্বিতীয়ার্ধের সিদ্ধান্তটা ঠিক ছিল। তা হলে আবার নাটক কীসের?’’

ম্যান ইউ এ দিন দু’টি পেনাল্টি পেয়েছিল। প্রথমটি মারেন অ্যান্থনি মার্শিয়াল এবং গোল করতে পারেননি। দ্বিতীয়টি মেরে গোল করেন দালে ব্লিন্দ। ম্যাচের পরে সাংবাদিক সম্মেলনে মোরিনহো বলেন, ‘‘এই ম্যাচটায় পেনাল্টি মারার জন্য বাছা হয়েছিল মার্শিয়ালকে। কিন্তু ও গোল করতে পারেনি। আর দ্বিতীয়টা যখন নেওয়া হয়, মার্শিয়াল মাঠেও ছিল না।’’ মোরিনহোর সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্নটা উঠ‌েছে কারণ রোমেলু লুকাকু পেনাল্টি মারতে চেয়েছিলেন। সেটা পরোক্ষে স্বীকারই করে নেন ম্যান ইউ ম্যানেজার। তার পরেও বলেন, ‘‘রোমেলু পেনাল্টি মারতে চায়। দায়িত্ব নেওয়ার মতো ব্যক্তিত্ব ওর আছে। আন্দের এরেরা-কে নিয়েও একই কথা বলব। কিন্তু আমার সিদ্ধান্তটা ছিল গত কয়েক দিন ট্রেনিংয়ে আমরা যা করেছি, তার ভিত্তিতে। আর সেই কারণেই দালে ব্লিন্দকে পেনাল্টি মারতে বলি।’’

সাংবাদিকদের এর পর আর কোনও প্রশ্ন করারই সুযোগ দেননি ‘দ্য স্পেশ্যাল ওয়ান’। কয়েক দিন আগে গ্যালারির দিকে তাকিয়ে মুখে আঙুল দেখিয়ে সকলকে ‘চুপ’ থাকার ইঙ্গিত করেছিলেন। এ দিন সাংবাদিক সম্মেলনে বলে ওঠেন, ‘‘শুনলেন আপনারা আমার যুক্তি। ব্যাস, গল্প শেষ।’’ জোসে সেই জোসে-ই!

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE