Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

মাঠেই ঝামেলায় জড়ালেন দীপকরা

আনেলকাকে হারিয়ে দুপুরেই হেরে বসেছিল রণবীরের মুম্বই

তানিয়া রায়
কলকাতা ১৩ অক্টোবর ২০১৪ ০২:৪৬
যুবভারতীতে আহত নবি। রবিবার। ছবি: শঙ্কর নাগ দাস

যুবভারতীতে আহত নবি। রবিবার। ছবি: শঙ্কর নাগ দাস

ফিফা থেকে আসা একটা ফোন-ই ওলটপালট করে দিল সবকিছু!

ভেস্তে দিল পিটার রিডের যাবতীয় স্ট্র্যাটেজি!

যার প্রভাব পড়ল রহিম নবিদের খেলাতেও!

Advertisement

রবিবার আইএসএলের উদ্বোধনী ম্যাচের আগে ফিফা থেকে ফোন করা হয় ফেডারেশনকে। জানিয়ে দেওয়া হয়, মুম্বই সিটি এফসি-র মার্কি ফুটবলার নিকোলাস আনেলকাকে কোনও ভাবেই খেলানো যাবে না। ফরাসি স্ট্রাইকারের তিন ম্যাচ নির্বাসনের শাস্তি আইএসএলেও প্রযোজ্য।

আটলেটিকো দে কলকাতার বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামার চব্বিশ ঘণ্টা আগে, আনেলকার খেলার খবরে পিটার রিডের টিম যতটা চনমনে আর আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠেছিল। রবিবার দুপুরে ফিফার ফোন আসার পর মানসিক ভাবে ঠিক ততটাই ভেঙে পড়েন রহিম নবি-ম্যানুয়েল ফ্রিডরিখরা।

সাংবাদিক সম্মেলনে এসে নবিদের ব্রিটিশ কোচ বলে দেন, “ফিফার তরফ থেকে অনুমতি পাওয়া যায়নি। ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থার অনুমতি ছাড়া কোন ঝুঁকি নেওয়া সম্ভব ছিল না।” দলের অন্যতম মালিক রণবীর কপূরও যুবভারতী ছাড়ার আগে বলে গেলেন, “ফিফার সঙ্গে সংঘাতে যেতে চাইনি। তাই শেষ পর্যন্ত আনেলকাকে না খেলানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।”

আনেলকা এবং দিয়েগো নাদায়াকে সামনে রেখেই নিজের স্ট্র্যাটেজি তৈরি করেছিলেন পিটার রিড। শনিবার অনুশীলন ম্যাচে ফ্রান্সের বিশ্বকাপারকে প্রথম একাদশেই খেলতে দেখা গিয়েছিল। কিন্তু এ দিন ফিফার একটি ফোনেই ম্যাচের আগেই হেরে বসে মুম্বই ড্রেসিংরুমে। অন্য দিকে আনেলকার না খেলতে পারার খবর যেন বাড়তি অক্সিজেন দেয় হাবাসের দলকে। কিপার শুভাশিস রায়চৌধুরি তো ম্যাচের পর স্বীকারও করে নেন, “আনেলকার না থাকার খবর আমাদের আত্মবিশ্বাস কিছুটা হলেও বাড়িয়ে দিয়েছিল।”

একেই তিন গোলে প্রথম ম্যাচ হারতে হয়েছে। গোদের উপর বিষ ফোঁড়া, টিমের দুই ডিফেন্ডার দীপক আর পাভেলের তীব্র বাদানুবাদ। ম্যাচের ইনজুরি টাইমে আর্নালের গোলে ৩-০ করে আটলেটিকো। ঠিক তার পরই দেখা যায়, রীতিমতো উত্তেজিত বাক্য বিনিময় করছেন দীপক আর পাভেল। গোলের জন্য একে অন্যকে দোষারোপ করতে থাকেন। পরিস্থিতি এতটাই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে যে দু’জনে একে অপরের দিতে তেড়ে যান। হাতাহাতি হওয়ার উপক্রমও হয়। সতীর্থরা তাঁদের শান্ত করেন। আনেলকার না খেলার হতাশাই ম্যাচ হারের পর যেন চরম আকার নেয়।

দুর্ভাগ্য যেন এ দিন পিছন ছাড়ছিল না পিটার রিডকে। এত ঝামেলার মধ্যে আবার নবির গোড়ালির চোট চিন্তা বাড়িয়েছে কোচের। এ দিন নবিকে দেখা যায়, ভাল করে হাঁটতেই পারছেন না। রাতে তাঁকে বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। তবে এক্স রে এবং প্রাথমিক চিকিত্‌সা করে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়। আজ সোমবার রিপোর্ট পাওয়া যাবে। তার পরই নবির চোটের পরিস্থিতি বোঝা যাবে। লিউনবার্গ আগে থেকেই চোটের তালিকায় ছিলেন। এ বার যুক্ত হলেন নবিও। ফিফার ফোনের পর বাকি দু’ম্যাচে আনেলকাকে পাওয়ারও আর কোনও সম্ভাবনাই নেই। স্বভাবতই আইএসএলের শুরুতেই বড় ধাক্কা খেতে হল মুম্বইয়ের ফ্র্যাঞ্চাইজি টিমকে।

ম্যাচ শুরুর আগে রণবীর কপূর দাবি করেছিলেন, “আমাদের টিমই সেরা। তিন পয়েন্ট নিয়েই কলকাতা ছাড়ব।” কিন্তু মুম্বইয়ের একের পর এক গোল হজম দেখে রণবীর এতটাই হতাশ হয়ে পড়েছিলেন, যে একটা সময় দেখা যায়, তিনি মাথা চাপড়াচ্ছেন। তাঁর পাশে বসা জন আব্রাহাম আটলেটিকো দে কলকাতার আন্তর্জাতিক মানের গোল দেখে হাততালি দিতে গিয়েও থমকে যান। হয়তো সৌজন্যের খাতিরে। কিংবা সেই সময়ে তাঁর মনে পড়ে গিয়েছিল, গার্সিয়াদের পরের ম্যাচ নর্থ-ইস্টের সঙ্গেই। গুয়াহাটিতেও যদি একই ফলের পুনরাবৃত্তি হয় তবে তাঁর দশাও তো রণবীরের মতোই হবে।

সেরার সম্মান

• সুইফ্ট মোমেন্ট অন দ্য পিচ- ফিকরু তেফেরা

• ফিটেস্ট প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচ- ডেনজিল ফ্রাঙ্কো

• ইমার্জিং প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচ- শুভাশিস রায়চৌধুরী

• হিরো অব দ্য ম্যাচ- বোরহা ফার্নান্দেজ

আরও পড়ুন

Advertisement