Advertisement
১৪ জুলাই ২০২৪

সেঞ্চুরিয়ন টেস্টের জন্য তৈরি রাখা হচ্ছে রাহানে-রাহুলকে

বাদ যাওয়াদের মধ্যে দু’জন সবচেয়ে বেশি করে আলোচনায়। অজিঙ্ক রাহানে এবং কে এল রাহুল। ক্রিকেট ভক্ত থেকে বিশেষজ্ঞ— গরিষ্ঠ সংখ্যক মানুষ মনে করছেন, এই দু’জনেরই প্রথম একাদশে জায়গা পাওয়া উচিত।

প্রস্তুতি: ছুটির দিনে নেটে রাহানে, রাহুল। মঙ্গলবার কেপ টাউনে। ছবি: টুইটার

প্রস্তুতি: ছুটির দিনে নেটে রাহানে, রাহুল। মঙ্গলবার কেপ টাউনে। ছবি: টুইটার

সুমিত ঘোষ
কেপ টাউন শেষ আপডেট: ১০ জানুয়ারি ২০১৮ ০৪:২৮
Share: Save:

এক ঝলক দেখে মনে হবে, সেঞ্চুরিয়ন টেস্টের প্রস্তুতি শুরু করে দিল ভারতীয় দল। কেপ টাউনে প্রথম টেস্টে হারের পর দিন থেকেই।

আরও মনে হবে কেপ টাউনে চার দিনের (আদতে তিন দিনের, কারণ একটা গোটা দিন বৃষ্টিতে খেলা হয়নি) মধ্যে হারের ধাক্কা বোধ হয় প্রথম একাদশ গড়ার ক্ষেত্রে মনোভাব বদলে দিল ভারতীয় শিবিরের। মঙ্গলবার দলের ছুটির দিন হলেও নিউল্যান্ডস ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুশীলনে এলেন চার ভারতীয় ক্রিকেটার। প্রথম টেস্টে তাঁদের কারও জায়গা হয়নি।

বাদ যাওয়াদের মধ্যে দু’জন সবচেয়ে বেশি করে আলোচনায়। অজিঙ্ক রাহানে এবং কে এল রাহুল। ক্রিকেট ভক্ত থেকে বিশেষজ্ঞ— গরিষ্ঠ সংখ্যক মানুষ মনে করছেন, এই দু’জনেরই প্রথম একাদশে জায়গা পাওয়া উচিত। জনপ্রিয় মত হচ্ছে, রাহুল বিদেশের মাটিতে শিখর ধবনের চেয়ে অনেক ভাল। তেমনই রোহিত শর্মার চেয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে সফল হওয়ার মতো টেকনিক অনেক বেশি রাহানের রয়েছে।

অন্য যে দু’জন অনুশীলনে এলেন— পার্থিব পটেল এবং ইশান্ত শর্মা। তাঁদের নিয়ে এখনই জোরাল আলোচনা শুরু না হলেও ০-১ পিছিয়ে থাকা অবস্থায় কখন কী ঘটতে পারে, কী নিশ্চয়তা রয়েছে। তবে রাহানে-রাহুল খেলুন বা না-খেলুন, তাঁদের যে তৈরি রাখা হচ্ছে, এ নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই।

রাহানে এবং রাহুল— টিমের দুই ‘আর’-কে নিয়ে যে কথাবার্তা দেশব্যাপী ছড়িয়ে পড়তে শুরু করেছে, সে খবর নিশ্চয়ই টিম ম্যানেজমেন্টের কানেও পৌঁছেছে। ধবনকে কেপ টাউনে খেলানোর যুক্তি ছিল, তিনি বাঁ হাতি-ডান হাতি কম্বিনেশন শুরুতে দিতে পারছেন। টিমের একমাত্র বাঁ হাতি ব্যাটসম্যান তিনি। আর কে না জানে, দলে এক জন বাঁ হাতি ব্যাটসম্যান থাকলে প্রতিপক্ষ বোলারদের ছন্দ নষ্ট করার ক্ষেত্রে কাজে আসতে পারে। তখন প্রতিপক্ষ বোলারদের ডান হাতি এবং বাঁ হাতির জন্য পৃথক ছক করতে হয়।

সমস্যা হচ্ছে, ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে ধবনের মতো ঝুঁকিপূর্ণ বাঁ হাতি রাখবে নাকি অনেক আঁটসাঁট রাহুলকে নিয়ে আসা হবে? জাহির খান, আশিস নেহরা-রা বিদায় নেওয়ার পরে ভারতীয় বোলিংয়েও কোনও বাঁ হাতি নেই এখন। যুগের সমস্যা, কী করা যাবে? তা বলে তো আর ফর্মে না থাকা ক্রিকেটারকে খেলিয়ে যাওয়া যায় না। বাঁ হাতির ওয়াইল্ড কার্ড দেখিয়ে যদি ধবন ঢোকেনও, তাঁকে তো রান করতে হবে। বাউন্সের সামনে যে রকম অসহায় দেখাল তাঁকে নিউল্যান্ডসে, তার পর আস্থা রাখা যাবে কি?

রোহিতকে নিয়ে তা-ও এই তত্ত্ব মানা যায় যে, তিনি ফর্মে থাকা ব্যাটসম্যান। দেশের মাঠে হলেও বড় রান করে এসেছেন। অজিঙ্ক রাহানে দেশের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধেও রান করতে পারছিলেন না। নিউল্যান্ডসে প্রথম ইনিংসে অন্তত দাঁড়িয়ে থেকে লড়াই করার চেষ্টা করেছেন রোহিত। দ্বিতীয় ইনিংসে যদিও বাজে আউট হয়েছেন। স্টাম্পের বাইরের বল টেনে এনে বোল্ড হয়েছেন। দল তাঁর প্রথম ইনিংসের লড়াইকে গুরুত্ব দেবে কি না, সেটাই দেখার। আরও দেখার যে, নিউল্যান্ডসে ব্যাটিং বিপর্যয়ের পরে সেঞ্চুরিয়নে ছয় ব্যাটসম্যানের থিওরিতে ফিরে যাওয়া হয় কি না।

সে ক্ষেত্রে কে বসবেন? সাধারণত ছয় ব্যাটসম্যান খেলা মানে অলরাউন্ডার বাদ পড়েন। এখানে হার্দিক পাণ্ড্য একমাত্র রান করেছেন। তাঁকে বসানোর প্রশ্ন নেই। আবার একটা জল্পনা তৈরি হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা কোচ ওটিস গিবসনের কথায়। নিউল্যান্ডসে জেতার পরে তিনি বলে দিয়েছেন, এখন নিজেদের দেশে সব জায়গাতেই চার পেসারে খেলবেন পরিবেশের পুরোপুরি ফায়দা তোলার জন্য। তার মানে সেঞ্চুরিয়নেও গতির খেলা হতে যাচ্ছে। তখন কি একমাত্র স্পিনার হিসেবে অশ্বিনের জায়গা নিশ্চিত? নাকি কেপ টাউনে রাহানের মতো এ বার অশ্বিনকে নিয়ে কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হতে পারে বিরাটদের?

দেখেশুনে মনে হচ্ছে, ভারতীয় দলের প্রথম একাদশ নিয়ে নাটক আর ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ কেপ টাউনেই শেষ হয়ে যাচ্ছে না। বরং দলের সঙ্গেই তা এ বার পৌঁছে যাচ্ছে দ্বিতীয় টেস্টের কেন্দ্র সেঞ্চুরিয়নে। সেই সেঞ্চুরিয়ন। যেখানে ২০০৩ বিশ্বকাপে শোয়েব আখতারদের পাকিস্তানকে ধ্বংস করা সচিন তেন্ডুলকরের সেই অমর ৯৮। ইতিহাস যদি উদ্বুদ্ধ করে বিরাটদের!

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE