×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৫ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

সচিনের শেষ টেস্টে আবেগে প্রায় কেঁদে ফেলেছিলেন দুই ক্যারিবীয় ক্রিকেটার

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা২০ জুন ২০২০ ১৮:০২
ওয়াংখেড়েতে বিদায়ী টেস্টে ক্যারিবিয়ান ক্রিকেটারদের অভিবাদন গ্রহণ করছেন সচিন। ছবি: রয়টার্স।

ওয়াংখেড়েতে বিদায়ী টেস্টে ক্যারিবিয়ান ক্রিকেটারদের অভিবাদন গ্রহণ করছেন সচিন। ছবি: রয়টার্স।

শুধু ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছেই সচিন তেন্ডুলকরের বিদায়ী টেস্ট আবেগের ছিল না। বরং বিপক্ষ শিবিরের কাছেও তা হয়ে উঠেছিল আবেগের। সেই ঘটনাই জানালেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটার কার্ক এডওয়ার্ডস।

মুম্বইয়ের ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে কেরিয়ারের শেষ টেস্ট খেলেছিলেন সচিন। যা ছিল প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে তাঁর ২০০তম টেস্ট। ২০১৩ সালের ১৪ নভেম্বর শুরু হয়ে টেস্ট শেষ হয়েছিল তিন দিনে। শেষ টেস্ট ইনিংসে সচিনের ব্যাটে এসেছিল ৭৪ রান। তিনি যখন ব্যাট করতে এসেছিলেন তখন ক্যারিবিয়ান ক্রিকেটাররা ‘গার্ড অফ অনার’ দিয়েছিলেন।

আরও পড়ুন: করোনায় আক্রান্ত মাশরাফি বিন মোর্তাজা​

Advertisement

আরও পড়ুন: এক দিনের ক্রিকেটে দেশের সেরা অলরাউন্ডার হতে পারতাম, কিন্তু...

ওয়েস্ট ইন্ডিজের অলরাউন্ডার কার্ক এডওয়ার্ডস অবশ্য সেই টেস্টে খেলেননি। কিন্তু সচিনকে শেষ বার মাঠে দেখে চোখের জল চেপে রাখতে কষ্ট হয়েছিল তাঁর। এডওয়ার্ডসের কথায়, “সচিনের ২০০তম টেস্টে আমি ওখানেই ছিলাম। আমার কাছে ব্যাপারটা অত্যন্ত আবেগের হয়ে উঠেছিল। আমি দাঁড়িয়ে ছিলাম ক্রিস গেলের পাশে। দু’জনেই ফুঁপিয়ে উঠেছিলাম। দু’জনেই চেষ্টা করছিলাম যাতে চোখের জল বাইরে না আসে। ওটা ছিল অত্যন্ত স্পর্শকাতর এক মুহূর্ত। জানতাম যে সচিনকে আর কখনও দেখা যাবে না খেলতে।”

১৯৮৯ সালের ১৫ নভেম্বর পাকিস্তানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিল সচিনের। লম্বা কেরিয়ারে ২০০ টেস্ট, ৪৬৩ ওয়ানডে ও একটি টি-টোয়েন্টি খেলেছিলেন মুম্বইকর। টেস্ট ও এক দিনের ক্রিকেট তাঁর রান যথাক্রমে ১৫৯২১ ও ১৮৪২৬। দুই ফরম্যাট মিলিয়ে ১০০ সেঞ্চুরি রয়েছে তাঁর।

Advertisement