Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

Quinton de Kock: কুইন্টনের বক্তব্য শুনে সিদ্ধান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ২৮ অক্টোবর ২০২১ ০৯:১৮
ফাইল চিত্র।

ফাইল চিত্র।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ম্যাচের আগে ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ আন্দোলনে শামিল হবেন না বলে সরে দাঁড়িয়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার উইকেটকিপার কুইন্টন ডি’কক। তাঁর এই ভাবে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত কিন্তু সুদূরপ্রসারী প্রভাব ফেলতে পারে ক্রিকেটে। শুধু তাই নয়, কৃষ্ণাঙ্গদের পাশে দাঁড়িয়ে প্রতিবাদে শামিল না হয়ে দক্ষিণ আফ্রিকার উইকেটকিপার-ব্যাটার যে বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন, তা ছায়া ফেলতে পারে পুরো দক্ষিণ
আফ্রিকা ক্রিকেটেই।

বুধবার দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটারদের সংস্থা (সাকা)-র পক্ষে জানানো হয়েছে, সম্মিলিত ভাবে ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ আন্দোলনে দক্ষিণ আফ্রিকার ক্রিকেটারেরা যোগ দিন, এটা তারাও চায়। কিন্তু এটা বাধ্যতামূলক করার ব্যাপারে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড যে নির্দেশ দিয়েছে, তা নিয়ে সমস্যা আছে। বিশেষ করে বিশ্বকাপের মতো বড় মঞ্চে খেলার সময় এই রকম নির্দেশ দেওয়া ঠিক হয়নি বলেই তাদের ধারণা।

‘সাকা’-র চিফ এগজিকিউটিভ অফিসার অ্যান্ড্রিউ ব্রিৎজকে বলেছেন, ‘‘ব্যক্তিগত ভাবে আমি চাইব, হাঁটু মুড়ে প্রতিবাদ জানানোর ব্যাপারে সবাই একটাই সিদ্ধান্ত নিক। সাকা-র বক্তব্য হল, পুরো দল হাঁটু মুড়ে বসে প্রতিবাদ জানালে সেটা ভাল হয়। কিন্তু তা বলে কাউকে বাধ্য করা ঠিক নয়।’’

Advertisement

এক দিকে যখন এই বিতর্ক চলছে, তখন অন্য দিকে প্রশ্ন উঠছে কী হতে চলেছে কুইন্টনের ভবিষ্যৎ? অনেকেই মনে করছেন, এই তারকা ক্রিকেটার হয়তো দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে তাঁর শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে ফেলেছেন। জানা গিয়েছে, দক্ষিণ আফ্রিকা বোর্ড এখন অপেক্ষায় রয়েছে কুইন্টনের বক্তব্য শোনার। এই ক্রিকেটার নাকি খুব তাড়াতাড়ি তাঁর বক্তব্য জানাবেন। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের এক মুখপাত্র এ দিন জানিয়েছেন, কুইন্টন লিখিত বিবৃতি তৈরি করছেন। এবং খুব দ্রুতই তা প্রকাশ করা হবে। সেই বক্তব্য শুনে সিদ্ধান্ত নেবে বোর্ড। তবে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের পক্ষ থেকে এও জানানো হয়েছে, কুইন্টন এখনও বিশ্বকাপ দলেরই অঙ্গ।

‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ বা ‘বিএলএম’ আন্দোলনে যোগ দেওয়া নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেটে আগেও বিভেদ তৈরি হয়েছে। সবাই এই মতবাদের পক্ষে নয়। আবার কেউ কেউ প্রশ্ন তুলেছেন প্রতিবাদ দেখানোর মঞ্চ নিয়েও। কুইন্টনের সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে ঝড় উঠেছে দক্ষিণ আফ্রিকায়। কয়েক জন বিশেষজ্ঞের ধারণা, কুইন্টনকে বিশ্বকাপ থেকে ফিরিয়েই আনা হবে। এই পরিস্থিতিতে তাঁকে আর
খেলানো হবে না।

আরও পড়ুন

Advertisement