Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২১ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

এমসিসির প্রস্তাবকে তুলোধোনা গাওস্করের

নিজস্ব প্রতিবেদন
১৫ মার্চ ২০১৯ ০৪:৫৪
এমসিসির প্রস্তাবের তীব্র সমালোচনা করলেন সুনীল গাওস্কর। ছবি টুইটারের সৌজন্যে।

এমসিসির প্রস্তাবের তীব্র সমালোচনা করলেন সুনীল গাওস্কর। ছবি টুইটারের সৌজন্যে।

বিশ্ব জুড়ে টেস্ট ক্রিকেটে একই মান এবং একই ব্র্যান্ডের বল নিয়ে খেলার প্রস্তাব দিয়েছে এমসিসি (মেরিলিবোন ক্রিকেট ক্লাব)। সেই প্রস্তাবের তীব্র সমালোচনা করলেন সুনীল গাওস্কর।

বিশ্বকাপ ক্রিকেট শেষ হলেই শুরু হবে প্রথম বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ। সেখানেই নির্দিষ্ট মানের ও ব্র্যান্ডের বলে খেলানোর প্রস্তাব দিয়েছে এমসিসি। যা নিয়ে বৃহস্পতিবার এক অনুষ্ঠানে গাওস্কর বলেছেন, ‘‘এখন তো আমরা শুনছি যে, এমসিসি বলের মান ঠিক করে দেওয়ার প্রস্তাব দিচ্ছে। এর পরে তো উইকেট কেমন হবে অথবা ব্যাটের মাপ কী হওয়া উচিত, সে সবও ওরা ঠিক করে দিতে পারে। ক্রিকেটের সব কিছুই ওরা একই মাপকাঠিতে এনে ফেলুক না!’’ তার পরেই সানি বলেন, ‘‘বিদেশের মাঠে গিয়ে জেতাটা সব সময় একটা চ্যালেঞ্জ থাকে ক্রিকেটারদের জন্য। কারণ, অন্য রকম পরিবেশ, পরিস্থিতির সঙ্গে মোকাবিলা করে জিততে হয়। সব কিছু সমমানের হয়ে গেলে সে চ্যালেঞ্জটার কী হবে?’’

এমসিসির প্রস্তাব উড়িয়ে দিয়ে প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক বলেছেন, ‘‘এমসিসি ওয়ার্ল্ড কমিটি অনেকটা মুম্বইয়ের ক্রিকেট ক্লাব অফ ইন্ডিয়া, কলকাতার ন্যাশনাল ক্রিকেট ক্লাব বা চেন্নাইয়ের মাদ্রাজ ক্রিকেট ক্লাবের মতো সংস্থা। যারা সব সময় বলে, আমাদের কথা শুনতে হবে। এমসিসিও সে রকম। ওরা বলছে, আইসিসি কমিটির চেয়েও ওদের কমিটির কথা বেশি শুনতে হবে। দুর্ভাগ্যজনক ভাবে, অনেকে আবার এমসিসিকে গুরুত্বও দেয়।’’

Advertisement

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

এই মুহূর্তে ভারতে খেলা হয় এসজি বলে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং ইংল্যান্ডে ডিউক বলে। অস্ট্রেলিয়া এবং দক্ষিণ আফ্রিকা খেলে কোকাবুরা বলে। সাম্প্রতিক সময়ে ক্রিকেটারেরাও বিভিন্ন বলে খেলার সমস্যার কথা জানিয়েছেন। বিশেষ করে, ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালি এবং অফস্পিনার আর অশ্বিন স্পষ্ট করে দিয়েছেন, তাঁদের বেশি পছন্দ ডিউক বল।

গাওস্কর বলেছেন, ‘‘দেশের পাশাপাশি বিদেশের মাটিতে খেলার মধ্যেই লুকিয়ে থাকে টেস্ট ক্রিকেটের মাধুর্য। সেটাকে প্রাধান্য দিতেই হবে।’’ আরও বলেছেন, ‘‘ব্যক্তিগত ভাবে আমি মনে করি ক্রিকেটের মূল আনন্দ মিশে থাকে বিভিন্ন পরিবেশে ক্রিকেটারেরা কেমন খেলছে, তার উপরে।’’ রসিকতার সুরে সানি বলেছেন, ‘‘বিভিন্ন দেশের কথা ছেড়ে দিন। এক একটা গলিতেই তো এক এক রকম পরিবেশ। কোনও গলিতে বল সোজা মারা যায় না, কারণ সামনে পুলিশ থাকে। কোনও গলিতে হয়তো খেলা চলার সময় মাছওয়ালা চলে আসে, যে ঘটনা অন্য গলিতে ঘটে না। ফলে আপনি সব কিছুকে এক সূত্রে বাঁধতে পারেন না।’’ গাওস্কর যোগ করেন, ‘‘বিদেশে অজানা পরিবেশে যারা ভাল খেলতে পারে, তারাই নিজেদের শ্রেষ্ঠ বলে প্রমাণ করতে পারে। কোনও কিছু নির্দিষ্ট করে ঠিক করে দেওয়ার প্রস্তাব যুক্তিযুক্ত নয়।’’

আরও পড়ুন

Advertisement