×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২২ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

আর এক জন চোট পেলে জল নিয়ে যাওয়ার লোকও থাকবে না বাংলাদেশ ড্রেসিং রুমে!

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা২৩ নভেম্বর ২০১৯ ১৬:০৩
ছন্নছাড়া দেখাচ্ছে মোমিনুলদের। ছবি: এএফপি।

ছন্নছাড়া দেখাচ্ছে মোমিনুলদের। ছবি: এএফপি।

এ এক অদ্ভুত সমস্যা! এর আগাম কোনও আভাসও ছিল না। ইডেনে গোলাপি বলের টেস্টের প্রথম দিনে লিটন দাস ও নইম হাসান মাথায় আঘাত পেয়ে ম্যাচের বাইরে ছিটকে যাওয়ায় হঠাৎ দেখা দিয়েছে এই সমস্যা। এবং আচমকাই তা গুরুতর হয়ে উঠেছে।

ভারত সফরের জন্য ১৬ জনের টেস্ট স্কোয়াড ঘোষণা করেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু নাগপুরে টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ ম্যাচের আগেই কুঁচকির চোটে সমস্যায় পড়েন মোসাদ্দেক হোসেন। তিনি ফিরে যান দেশে। ফলে টেস্টের স্কোয়াড দাঁড়ায় কার্যত ১৫জনের। বিকল্প ওপেনার সইফ হাসান ইনদওরে টেস্ট চলাকালীনই চোট পেয়েছিলেন। ইডেনে বুধবার অনুশীলনে নেমেই পরিষ্কার হয়ে যায় যে তিনি এই টেস্টে কোনও ভাবেই খেলতে পারবেন না। ফলে, কার্যত স্কোয়াড দাঁড়াল ১৪ জনের।

শুক্রবার মহম্মদ শামির বাউন্সারে চোট পেয়ে ছিটকে যান লিটন-নইম। কনকাসন সাব হিসেবে নামাতে হয় মেহেদি হাসান মিরাজ ও তাইজুল ইসলামকে। এর মধ্যে মেহেদি বল করতে পারবেন না, কারণ তিনি উইকেটকিপার লিটনের পরিবর্ত। তাইজুল অবশ্য বল করতে পারবেন। লিটন-নইমকে বিশ্রাম নিতে বলেছেন চিকিৎসকরা। ফলে, স্কোয়াড দাঁড়িয়েছে ১২ জনের। বাংলাদেশ স্কোয়াডে এখন প্রথম এগারোয় নেই এমন ক্রিকেটারদের মধ্যে ফিট বলতে আছেন শুধু মুস্তাফিজুর। 

Advertisement

আরও পড়ুন: ইতিহাসের ইডেন গার্ডেন্স

আরও পড়ুন:  গোলাপি বল ও দিন-রাতের টেস্ট

আরও পড়ুন: টেস্ট ক্রিকেটের পক্ষে দুর্দান্ত, ইডেনে গোলাপি বলের টেস্টে ক্রিকেটপ্রেমীদের উৎসাহে আপ্লুত সৌরভ​

আরও পড়ুন: ঘরের মাঠে ‘সুপারম্যান’ হয়ে উঠলেন ঋদ্ধিমান, গড়লেন নতুন নজির​

এ বার কোনও কারণে মাঠে ফিল্ডিং করার সময় ক্রিকেটারদের মধ্যে কেউ যদি চোট পান বা কোনও কারণে মাঠের বাইরে আসেন, তখন ফিল্ডিং করতে নামতে হবে মুস্তাফিজুরকে। এবং তা হলে মাঠে সতীর্থদের জন্য ড্রেসিংরুম থেকে জল নিয়ে যাওয়ার ক্রিকেটারও নেই বাংলাদেশের। এ এক অদ্ভুত পরিস্থিতি।

প্রশ্ন উঠছে, মোসাদ্দেকের বদলি হিসেবে কেন কাউকে আনা হয়নি? কেনই বা সইফ হাসান ইডেন টেস্ট থেকে বুধবারই ছিটকে যাওয়ার পর কাউকে নিয়ে আসা হয়নি? কোনও ব্যাটসম্যানকে আনা হলে তিনি অন্তত লিটনের জায়গায় কনকাসন সাব হিসেবে ব্যাট করতে পারতেন। আর কলকাতা থেকে আকাশ পথে ঢাকায় পৌঁছতে লাগে বড় জোর আধ ঘণ্টা। ফলে, চটজলদি কাউকে নিয়ে আসাই যেত। কিন্তু তেমন উদ্যোগ দেখা যায়নি বাংলাদেশ শিবিরে। এই ঘটনায় পদ্মাপারের মিডিয়ায় তোপের মুখে পড়ছে বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্ট। মাঠের মধ্যে বাইশ গজের মতো মাঠের বাইরের প্রস্তুতিতেও অগোছালো দেখাচ্ছে মোমিনুল হকের দলকে।

Advertisement