×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৮ মে ২০২১ ই-পেপার

উমেশের পাঁচ উইকেট, ইডেনে গোলাপি বলের টেস্ট ইনিংস ও ৪৬ রানে জিতল ভারত

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ২৪ নভেম্বর ২০১৯ ১৩:০৩
রবিবার বাংলাদেশের শেষ তিন উইকেটই নিলেন উমেশ যাদব। ছবি: এএফপি।

রবিবার বাংলাদেশের শেষ তিন উইকেটই নিলেন উমেশ যাদব। ছবি: এএফপি।

রবিবার কতক্ষণ চলবে খেলা? বাংলাদেশের শেষ চার উইকেট নিতে কতক্ষণ সময় লাগবে ভারতের? এই প্রশ্নগুলোই ঘুরপাক খাচ্ছিল ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে। দ্রুত তাই ইডেনে আসার তাগিদ দেখা গিয়েছিল। কিন্তু বাংলাদেশের লড়াই এক ঘণ্টাও স্থায়ী হল না। ১৯৫ রানে শেষ হল বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংস। ৪৫ মিনিটের মধ্যেই গোলাপি বলের টেস্ট ইনিংস ও ৪৬ রানে জিতল ভারত। দুই টেস্টের সিরিজ ২-০ ফলে পকেটে পুরল বিরাট কোহালির দল। টানা সপ্তম টেস্ট সিরিজ জিতল টিম ইন্ডিয়া। বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে টানা চার টেস্ট ইনিংসে জেতার রেকর্ডও করলেন কোহালিরা।

দিনের দশম বলেই ফিরেছিলেন এবাদত হোসেন। উমেশ যাদবের ঠুকে দেওয়া ডেলিভারিতে স্লিপে বিরাট কোহালিকে সহজ ক্যাচ দিয়েছিলেন তিনি। টিকেছিলেন মোটে চার বল। এবাদত ফেরায় ব্যাট করতে আসা আল-আমিন হোসেন আবার তৃতীয় বলেই খেয়েছিলেন হেলমেটে। ছুটে এসেছিলেন ফিজিয়ো। বাংলাদেশ ভরসা রেখেছিল মুশফিকুর রহিমের উপর। তিনি আক্রমণাত্মক মেজাজে খেলছিলেনও। কিন্তু উমেশ যাদবকে কভারের উপর দিয়ে মারতে গিয়ে লোপ্পা ক্যাচ দিলেন রবীন্দ্র জাডেজাকে। ৭৪ রানে ফিরেছিলেন মুশফিকুর। ১৮৪ রানে পড়েছিল বাংলাদেশের অষ্টম উইকেট। উমেশ যাদব পরের ওভারেই ফেরালেন আল-আমিন হোসেনকে। ২১ রানে উইকেটকিপার ঋদ্ধিমান সাহাকে ক্যাচ দিলেন তিনি। মাহমুদুল্লা ব্যাট করতে আসেননি। ফলে, নবম উইকেট পড়ার সঙ্গে সঙ্গেই শেষ হল বাংলাদেশের প্রতিরোধ। পাঁচ উইকেট নিলেন উমেশ।

আরও পড়ুন: গোলাপি বলের টেস্ট স্পিনারদের গুরুত্বহীন করে দেবে, আশঙ্কায় প্রসন্ন​

Advertisement

আরও পড়ুন: দুই ইনিংসেই শূন্য! ইডেনে লজ্জার রেকর্ড বাংলাদেশ অধিনায়কের​

শনিবার ছয় উইকেটে ১৫২ রানে শেষ করেছিল বাংলাদেশ। ক্রিজে ছিলেন মুশফিকুর রহিম (৫৯)। শনিবার দিনের শেষ বলে আউট হয়েছিলেন তাইজুল ইসলাম (১১)। উমেশ যাদবের বলে অজিঙ্ক রাহানেকে ক্যাচ দিয়েছিলেন তিনি। দিনের শেষে ৮৯ রানে পিছিয়ে ছিল বাংলাদেশ। একসময় ১৩ রানে চার উইকেট পড়ে গিয়েছিল বাংলাদেশের দ্বিতীয় ইনিংসে। সেখান থেকে মুশফিকুর ও মাহমুদুল্লাহ মেরামত করেন ইনিংস। কিন্তু হ্যামস্ট্রিংয়ে টানের জন্য ব্যক্তিগত ৩৯ রানে বেরিয়ে যেতে বাধ্য হন মাহমুদুল্লাহ। তিনি যখন আহত অবসৃত হন, তখন দলের স্কোর ৮২। এর পর মেহেদি হাসান মিরাজ ও তাইজুলকে হারায় বাংলাদেশ। শনিবার ভারতের সফলতম বোলার হলেন ইশান্ত শর্মা। তিনি নেন চার উইকেট। শুক্রবার বাংলাদেশের প্রথম ইনিংসে পাঁচ উইকেট নিয়েছিলেন তিনি।

গোলাপি বলের টেস্টে টস জিতে ব্যাটিং নিয়ে ৩০.৩ ওভারে শেষ হয়ে গিয়েছিল বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস। মাত্র ১০৬ তুলেছিল তারা। জবাবে বিরাট কোহালির অনবদ্য সেঞ্চুরির সুবাদে নয় উইকেটে ৩৪৭ রানে ইনিংসে সমাপ্তি ঘোষণা করে ভারত। লিড ছিল ২৪১ রানের। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসেও প্রথম ওভার থেকে চাপে পড়ে বাংলাদেশ।

এর আগে ইনদওরে প্রথম টেস্ট ইনিংস ও ১৩০ রানে জিতেছিল ভারত। ইডেনে তাই ২-০ করার সামনে ছিল ভারত। একই সঙ্গে টানা সাত টেস্ট সিরিজ জেতার হাতছানি ছিল কোহালিদের সামনে। টিম ইন্ডিয়া সেই রেকর্ড করল। একইসঙ্গে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ৩৬০ পয়েন্টে আরও এগিয়ে গেল তারা।

Advertisement