Advertisement
২৭ নভেম্বর ২০২২

যুব বিশ্বকাপ: কড়া পাহারা মাঠে

পুলিশ সূত্রের খবর, ফিফার হয়ে বিধাননগর পুলিশের একটি দল নিরাপত্তার দায়িত্ব সামলাবে। ৬০ জন পুলিশের ওই দলটি সব সময় স্টেডিয়াম ঘিরে রাখবে। ফিফার অনুমতি ছাড়া স্টেডিয়ামে কাউকে ঢুকতে দেওয়া হবে না।

শিবাজী দে সরকার
কলকাতা শেষ আপডেট: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০৩:৫৬
Share: Save:

বিশ্ব যুব ফুটবলের খেলা শুরুর আগেই সল্টলেকের যুবভারতী স্টেডিয়ামে মহড়া দেবেন ন্যাশনাল সিকিউরিটি গার্ডের (এনএসজি) কম্যান্ডোরা। আগামী সপ্তাহেই ওই মহড়া হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে পুলিশ সূত্রের খবর। পুলিশ কর্তারা জানাচ্ছেন, এ ধরনের বড় অনুষ্ঠানে জঙ্গিহানার আশঙ্কা থেকেই যায়। তাই নিরাপত্তারক্ষী, পুলিশের পাশাপাশি দেশের অন্যতম সেরা কম্যান্ডো বাহিনীকেও প্রস্তুত রাখা হচ্ছে। আপৎকালীন পরিস্থিতি কী ভাবে সামাল দেওয়া হবে— তার পরিকল্পনা ঝালিয়ে নেবে এনএসজি।

Advertisement

৫ অক্টোবর গোয়ায় উদ্বোধন হবে যুব বিশ্বকাপের। সল্টলেক স্টেডিয়ামে প্রথম খেলা হবে ৮ অক্টোবর। আজ, রবিবার থেকেই আম্তর্জাতিক ফুটবল নিয়ামক সংস্থা ‘ফিফা’র হাতে চলে যাচ্ছে স্টেডিয়াম। প্রতিযোগিতা শেষ না-হওয়া পর্যন্ত স্টেডি়য়াম ‘ফিফা’র দখলেই থাকবে। ফাইনাল-সহ কলকাতায় হবে মোট ন’টি ম্যাচ।

পুলিশ সূত্রের খবর, ফিফার হয়ে বিধাননগর পুলিশের একটি দল নিরাপত্তার দায়িত্ব সামলাবে। ৬০ জন পুলিশের ওই দলটি সব সময় স্টেডিয়াম ঘিরে রাখবে। ফিফার অনুমতি ছাড়া স্টেডিয়ামে কাউকে ঢুকতে দেওয়া হবে না।

পুলিশ জানিয়েছে, নতুন চেহারার যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে মোট আসন সংখ্যা ৭৬ হাজার। এর মধ্যে ফিফা ৬৫ হাজার টিকিট বিক্রি করবে দর্শকদের জন্য। বিধাননগর পুলিশ সূত্রের খবর, বিশ্বকাপের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে নিরাপত্তার চারটি বলয় তৈরি করা হবে। প্রথমে স্টেডিয়ামে ঢোকার সময় গেটে এক দফা নিরাপত্তারক্ষীদের মুখোমুখি হতে হবে দর্শকদের। দ্বিতীয় স্তরে স্টেডিয়ামের প্রতিটি ব্লকে নিরাপত্তার জন্য থাকবেন পুলিশকর্মীরা। তৃতীয় স্তরে দর্শক আসনে থাকবে নিরাপত্তারক্ষীরা। প্রতিটি গেট ও ব্লকের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পদমর্যাদার অফিসারেরা।

Advertisement

পুলিশ জানায়, চতুর্থ ও শেষ বলয়ে খেলা চলাকলীন মাঠের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবে বিশেষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মী বা স্টুয়ার্ট। এর জন্য ফিফা-র কর্তারা ভুঁড়িহীন পুলিশকর্মীদের চেয়েছিলেন। সেই মতো প্রায় ২৫০ জন পুলিশকর্মীকে বেছে নিয়েছেন বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেটের কর্তারা। তাঁদের প্রথম দফায় দিল্লিতে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন ফিফা কর্তারা। দ্বিতীয় দফায় সোমবার থেকে কলকাতায় প্রশিক্ষণ শুরু হওয়ার কথা। ৩০ জন করে পুলিশকর্মীকে ওই স্টুয়ার্টের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। যাঁরা খেলার সময় গ্যালারির দর্শকদের দিকে তাকিয়ে থাকবেন। পুলিশের এক কর্তার দাবি, ‘‘দর্শক সামলানো থেকে শুরু করে বিদেশি দর্শকদের সঙ্গে কথা বলার আদবকায়দার প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে ওই স্টুয়ার্টদের।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.