Advertisement
০২ ডিসেম্বর ২০২২

এমএলএসে প্রথম গোলের ম্যাচে রক্তাক্ত রুনি

ইংল্যান্ড ছেড়ে এ বছরই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্লাব ডিসি ইউনাইটেডে যোগ দিয়েছেন রুনি। প্রথম তিনটি ম্যাচে গোল করতে পারেননি তিনি। রবিবার কলোরাডোর বিরুদ্ধে ৩৩ মিনিটে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন রুনি। ৮২ মিনিটে কলোরাডোর হয়ে সমতা ফেরান কেলাইন আকোস্তা। ম্যাচের একেবারে শেষ মুহূর্তে নিকি জ্যাকসনের আত্মঘাতী গোলে ফের এগিয়ে যায় ডিসি ইউনাইটেড। এর পরেই ঘটে বিপর্যয়।

জখম: এমএলএসে খেলতে নেমে আহত রুনি। টুইটার

জখম: এমএলএসে খেলতে নেমে আহত রুনি। টুইটার

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ৩০ জুলাই ২০১৮ ০৪:৪৮
Share: Save:

ডিসি ইউনাইটেডের হয়ে প্রথম গোল করার ম্যাচেই রক্তাক্ত ওয়েন রুনি। রবিবার মেজর লিগ সকার (এমএলএস)-এ কলরাডো র‌্যাপিডসের এক ফুটবলারের সঙ্গে সংঘর্ষে নাক ফেটে যায় প্রাক্তন ইংল্যান্ড অধিনায়কের। কিন্তু মাঠ ছাড়েননি রুনি। ক্ষতস্থানে সেলাই করে ফিরে আসেন মাঠে।

Advertisement

ইংল্যান্ড ছেড়ে এ বছরই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্লাব ডিসি ইউনাইটেডে যোগ দিয়েছেন রুনি। প্রথম তিনটি ম্যাচে গোল করতে পারেননি তিনি। রবিবার কলোরাডোর বিরুদ্ধে ৩৩ মিনিটে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন রুনি। ৮২ মিনিটে কলোরাডোর হয়ে সমতা ফেরান কেলাইন আকোস্তা। ম্যাচের একেবারে শেষ মুহূর্তে নিকি জ্যাকসনের আত্মঘাতী গোলে ফের এগিয়ে যায় ডিসি ইউনাইটেড। এর পরেই ঘটে বিপর্যয়। সংযুক্ত সময়ে কর্নার পায় কলরাডো। রক্ষণকে সাহায্য করতে রুনি নেমে আসেন পেনাল্টি বক্সে। সেখানেই বিপক্ষের এক ফুটবলারের সঙ্গে সংঘর্ষে আহত হন প্রাক্তন ম্যান ইউনাইটেড কিংবদন্তি। রুনির শুশ্রূষার জন্য কয়েক মিনিট বন্ধও ছিল ম্যাচ।

খেলতে খেলতে রুনির রক্তাক্ত হওয়ার ঘটনা অবশ্য নতুন নয়। ২০১৩ সালে ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে খেলার সময় সতীর্থ ফিল জোন্সের সঙ্গে সংঘর্ষে কপাল ফেটে গিয়েছিল তাঁর। বারোটা সেলাই পড়েছিল ক্ষতস্থানে। প্রায় এক মাস লেগেছিল সুস্থ হয়ে ছন্দে ফিরতে। গত মরসুমে এভার্টনে ছিলেন রুনি। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে বোর্নমাউথের ডিফেন্ডার সাইমন ফ্রান্সিসের কুনুইয়ের আঘাতে ফের রক্তাক্ত হন তিনি। এ বার মার্কিন মুলুকেও তার পুনরাবৃত্তি দেখলেন ফুটবপ্রেমীরা। এই কারণেই ২-১ গোলে জয়ের পরে ডিসি ইউনাইটেডের ম্যানেজার বেন ওলসেন বলেছেন, ‘‘রুনি প্রচণ্ড লড়াকু ফুটবলার। এ বারই প্রথম নয়। এর আগেও বহুবার ম্যাচে রক্তাক্ত হয়েছে রুনি।’’ তিনি আরও বলেছেন, ‘‘রুনি শুধু গোলই করেনি, দলকে দারুণ নেতৃত্বও দিয়েছে। ওর কাছ থেকে এটাই আমরা আশা করেছিলাম। এই ছন্দ ধরে রাখতে পারলে আরও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠবে রুনি।’’

ডিসি ইউনাইটেডের সমর্থকেরাও অভিভূত রুনির দায়বদ্ধতা দেখে। সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁরা উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন ৩২ বছর বয়সি ইংল্যান্ড জাতীয় দলের হয়ে সব চেয়ে বেশি গোল করা রুনির। তাঁদের উদ্বেগ অবশ্য কমছে না। লিগ টেবলে এই মুহূর্তে সবার শেষে ডিসি ইউনাইটেড। ১৮ ম্যাচে মাত্র ১৭ পয়েন্ট। জিতেছে মাত্র চারটি ম্যাচ। লিগ টেবলের শীর্ষে থাকা আটলান্টা ইউনাইটেড এফসির পয়েন্ট ২৩ ম্যাচে ৪৭।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.