অনাস্থা প্রস্তাবকে চ্যালেঞ্জ করে বিধাননগর পুরনিগমের মেয়র সব্যসাচী দত্তের করা মামলার শুনানির সময় আদালতে বিচারপতির সঙ্গে তরজায় জড়ালেন তৃণমূলের আইনজীবী সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়।বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায়ের উদ্দেশে তাঁকে বলতে শোনা যায়, বিচারপতিদের কী ভাবে নিয়োগ করা হয় তা তিনি জানেন।

সব্যসাচী দত্তের মামলার শুনানি চলাকালীনই বিজেপির পক্ষ থেকে বনগাঁ পুরসভার অনাস্থা ঘিরে মঙ্গলবারের অশান্তির কথা উল্লেখ করা হয়। সেই সূত্র ধরেই বিচারপতি রীতিমতো ক্ষোভের সঙ্গে মন্তব্য করেন ‘‘বনগাঁর ঘটনা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক।”এর পরই মেজাজ হারান কল্যাণবাবু। তিনি বলেন,‘‘বার অ্যাসোসিয়েশনের নির্বাচনে ২০ লাখ টাকা খরচ করেছে বিজেপি। বিচারপতিরাও সমঝোতা করছেন।” এখানেই না থেমে তিনি আরও বলেন,‘‘বহু বিচারপতি সল্টলেকে জমি পেয়েছেন। কে কে পেয়েছেন, নাম বলব? বিচারপতিদের নিয়োগও কী ভাবে হয়আমি জানি। বলব?”

আরও পড়ুন: সেবি, আরবিআই আধিকারিকদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নিয়েছে সিবিআই? হাইকোর্টে প্রশ্ন রাজীব কুমারের আইনজীবীর

 

এর জবাবে বিচারপতিকে বলতে শোনা যায়, ‘‘কেউ দিতে পছন্দ করেন। কেউ নিতে। সেখান থেকেই কাট মানি কনসেপ্ট। আমিও জানি কার কী ভাবে সম্পত্তি বাড়ছে। আমিসততার সঙ্গে কাজ করি। এসব ভয় করিনা।’’ এর পরেই বিচারপতি উঠে যান নিজের চেম্বারে। পরে যদিও ওই মন্তব্যের জন্য কল্যাণবাবু দুঃখপ্রকাশ করেন।