Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১ ই-পেপার

এ বার কি হাজির এনসেফ্যালাইটিস

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৯ নভেম্বর ২০১৭ ০৩:০৮

ডেঙ্গি আর অজানা জ্বরের দাপট চলছেই। তার মধ্যেই এ বার এনসেফ্যালাইটিসের সংক্রমণও ছড়াচ্ছে কি না, সেই প্রশ্ন উঠল।

প্রশ্নটা উঠল কলকাতা সংলগ্ন উত্তর ২৪ পরগনার এক স্কুলছাত্রীর মৃত্যুকে ঘিরেই। জুলেখা খাতুন নামে চতুর্থ শ্রেণির ওই ছাত্রী শাসনের বাসিন্দা। জ্বরে আক্রান্ত জুলেখাকে রবিবার আরজি কর হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছিল। সোমবার তার মৃত্যু হয়। হাসপাতালের ডেথ সার্টিফিকেটে জুলেখার মৃত্যুর কারণ হিসেবে অ্যাকিউট এনসেফ্যালাইটিস সিনড্রোমের কথা লেখা হয়েছে।

এনসেফ্যালাইটিস ছড়ায় কিউলেক্স বিশনোই নামে এক ধরনের মশা। তাই ডেঙ্গির জীবাণুবাহক মশা এডিস ইজিপ্টাই, ম্যালেরিয়ার জীবাণু বাহক মশা অ্যানোফিলিস স্টেফেনসাইয়ের পাশাপাশি এ বার বিশনোই মশার সন্ধানে নামতে হচ্ছে জেলা স্বাস্থ্য দফতরকে। মশা খুঁজতে ফের ডাক পড়তে পারে কলকাতা পুরসভার পতঙ্গ নিয়ন্ত্রণ বিভাগেরও।

Advertisement

আরজি কর হাসপাতালে সোমবার বিকেলে আম্বিয়া খাতুন নামে উত্তর ২৪ পরগনারই বসিরহাটের অন্য এক কিশোরীর মৃত্যু হয়েছে। তার ডেথ সার্টিফিকেটে মৃত্যুর কারণ হিসেবে লেখা হয়েছে জ্বর। সোমবার রাতে কলকাতার এক নার্সিংহোমে মৃত্যু হয়েছে হুগলির শ্রীরামপুর পুরসভার আট নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা রাধাদেবী প্রসাদ (৪৮)-এর। তাঁর শরীরে ডেঙ্গির উপসর্গ থাকলেও ডেথ সার্টিফিকেটে ‘জ্বর’ কথাটি লেখা হয়েছে বলে পরিবারের অভিযোগ। গত বছর শ্রীরামপুরে ডেঙ্গি মহামারির আকার নিয়েছিল। এ বছর সেখানে এই রোগের সংক্রমণ না-হওয়ায় এত দিন নিশ্চিন্ত ছিল প্রশাসন। কিন্তু রাধাদেবীর ডেঙ্গির উপসর্গ ধরা পড়ায় প্রশাসনের চিন্তা বেড়েছে। স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলর গৌরমোহন দে অবশ্য বলেছেন, ‘‘রাধাদেবীর শুধু জ্বর নয়, অন্যান্য নানা শারীরিক সমস্যা ছিল। জন্ডিসের উপসর্গও ছিল। তাতেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে।’’

প্রাক্তন ক্রিকেটার স্নেহাশিস গঙ্গোপাধ্যায়ের শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে বলে এ দিন জানান তাঁর চিকিৎসকেরা। সোমবার তাঁর প্লেটলেট ২০ হাজারের নীচে নেমে গিয়েছিল। এ দিন তা উঠেছে ৪৪ হাজারে। পেটব্যথা, পেট ফোলা ভাবটাও কমেছে। ডাক্তারেরা জানান, ওই প্রাক্তন ক্রিকেটারের যকৃতের অবস্থারও উন্নতি হয়েছে। ডেঙ্গিতে যকৃৎ কতটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, আজ, বুধবার সেই পরীক্ষা হবে।

স্লেহাশিসের সারা শরীরে লালচে দাগগুলো কিন্তু এখনও প্রকট। তবে তাতে ভয়ের কিছু নেই বলে জানান তাঁর চিকিৎসকেরা। এক চিকিৎসকের মন্তব্য, ডেঙ্গিতে অনেকের গায়েই এই ধরনের লালচে দাগ বেরোয়। কার শরীরে কতটা দাগ বেরোবে, সেটা নির্ভর করে জীবাণুর প্রকৃতি এবং রোগীর শারীরিক পরিস্থিতির উপরে। এটা অস্বাভাবিক কিছু নয় বলেই আশ্বাস দিচ্ছেন চিকিৎসকেরা।

এ দিন হাবরা স্টেট জেনারেল হাসপাতালে জ্বরে আক্রান্ত এক তরুণীর মৃত্যু হয়েছে। মৃতার নাম মল্লিকা মণ্ডল (২৩)। গাইঘাটার-পাঁচপোতার ওই বাসিন্দা স্বরূপনগর-চারঘাটের একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি ছিলেন। অবস্থার অবনতি হওয়ায় এ দিন তাঁকে হাবরা হাসপাতালে আনা হয়। বিকেলে তিনি মারা যান। ‘‘ওই তরুণী জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন,’’ বলেন হাসপাতালের সুপার শঙ্করলাল ঘোষ।

শিলিগুড়িতে মাটিগাড়ার একটি নার্সিংহোমে রবিবার রাতে মারা যান প্রদীপ কর্মকার (৬১) নামে ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের নিগমপল্লির এক বাসিন্দা। ডেঙ্গির শক সিনড্রোম এবং মাল্টি অর্গান ডিসফাংশন সিনড্রোমে তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে চিকিৎসকেরা জানান। এই নিয়ে শিলিগুড়িতে ডেঙ্গিতে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ১৩। জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক প্রলয় আচার্য অবশ্য এ দিন বলেন, ‘‘ডেঙ্গিতে আর কেউ মারা গিয়েছেন বলে কোনও তথ্য আমার কাছে নেই। খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।’’



Tags:
Death Encephalitis Mosquitoes Feverএনসেফ্যালাইটিস

আরও পড়ুন

More from My Kolkata
Advertisement