×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৯ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

নীলবাড়ির দখল পেলে সপ্তম বেতন কমিশন, আমপান ‘দুর্নীতি’ তদন্তে কমিটি, প্রতিশ্রুতি অমিতের

সৈকত ঘোষ
নামখানা ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৭:৪৩
বৃহস্পতিবার নামখানায় অমিত শাহ।

বৃহস্পতিবার নামখানায় অমিত শাহ।
—নিজস্ব চিত্র।

বিজেপি বাংলার ক্ষমতায় এলে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের জন্য সপ্তম বেতন কমিশন চালু করা হবে। বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারে এসে এমনই প্রতিশ্রুতি দিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। শুধু সরকারি কর্মচারীই নয়, বৃহস্পতিবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার নামখানায় রাজ্য বিজেপি-র কলকাতা জোনের ‘পরিবর্তন যাত্রা’র সূচনা করতে এসে বাংলার মৎস্যজীবী থেকে শিক্ষকদের মন পেতে একগুচ্ছ প্রতিশ্রুতি দিলেন অমিত। জানালেন, বিজেপি ক্ষমতায় এলে রাজ্যের মৎস্যজীবীদের জন্য বছরে ৬ হাজার টাকা করে অনুদান দেবে। সেই সঙ্গে আমপানে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত জেলায় দাঁড়িয়ে অমিতের দাবি, ‘‘ত্রাণ বিলিতে দুর্নীতি করেছে রাজ্য সরকার ও তৃণমূল। বিজেপি ক্ষমতায় এলে সেই দুর্নীতির তদন্তে কমিটি গঠন করা হবে।’’

গত ৭ ফেব্রুয়ারি রাজ্য সফরে এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী হলদিয়ার জনসভা থেকে বলেছিলেন, বাংলায় বিজেপি ক্ষমতায় এলে কেন্দ্রের ‘কৃষক সম্মান নিধি’ প্রকল্প চালু করার পাশাপাশি এতদিন না পাওয়া টাকাও দেবে। রাজ্যে প্রথম মন্ত্রিসভার বৈঠকেই সেই সিদ্ধান্ত নেবে বিজেপি সরকার। তবে সে দিন ‘না পাওয়া’ টাকার পরিমাণ বলেননি মোদী। এর পরে গত বৃহস্পতিবার বাংলায় এসে অমিত জানান, বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পরে বাংলার কৃষকরা এককালীন ১৮ হাজার টাকা করে পাবেন। এ বার মৎস্যজীবীদের জন্যও দিলেন প্রতিশ্রুতি।

Advertisement

বৃহস্পতিবার কলকাতায় ভারত সেবাশ্রম সঙ্ঘের প্রধান কার্যালয় হয়ে প্রথমে গঙ্গাসাগরে যান অমিত। সেখানে সাগর দর্শনের পরে কপিলমুনির আশ্রমে পুজো দেন। এর পরে আসেন নামখানায়। সেখানে অমিতের গলায় একের পর এক প্রতিশ্রুতি শোনা যায়। তিনি বলেন, ‘‘এক বার বাংলায় বিজেপি-র সরকার বানিয়ে দিন। ক্ষমতায় এলেই আমরা রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের জন্য সপ্তম বেতন কমিশন গঠন করব।’’

পার্শ্ব শিক্ষকদের আন্দোলন প্রসঙ্গ টেনে তা নিয়েও রাজ্য সরকারকে আক্রমণ করেন অমিত। তিনি বলেন, ‘‘পার্শ্ব শিক্ষকরা নায্য বেতনের দাবিতে আদি গঙ্গায় নেমে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। আমি কথা দিচ্ছি, বিজেপি ক্ষমতায় এলে বেতন কাঠামো ঠিক করার জন্য উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গঠন করা হবে।’’ এ ছাড়াও সরকারি চাকরিতে মহিলাদের জন্য ৩৩ শতাংশ সংরক্ষণের প্রতিশ্রুতিও দেন অমিত।

বৃহস্পতিবার মৎস্যজীবীদের খুশি করতেও একগুচ্ছ প্রতিশ্রুতি দেন অমিত। তিনি বলেন, ‘‘কেন্দ্রের ‘কৃষক সম্মান নিধি’ প্রকল্পের মত ‘মৎস্যজীবী সম্মান নিধি’ প্রকল্প চালু করা হবে। এর মাধ্যমে প্রায় ৪ লাখ মৎস্যজীবী বছরে ৬ হাজার টাকা করে পাবেন।’’ এ ছাড়াও বিজেপি ক্ষমতায় এলে ‘মৎস্যজীবী প্রডিউস অর্গানাইজেশন’ তৈরি করবে যাতে এই জীবিকার মানুষেরা মাছের নায্য দাম পান। সেই লক্ষ্যে রাজ্যে আলাদা দফতরও বিজেপি গঠন করবে। দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলায় ‘সি ফুড প্রসেসিং হাব’ গঠনের প্রতিশ্রুতিও দেন অমিত। জেলার জন্য আরও দু’টি প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘‘গঙ্গাসাগরকে আন্তর্জাতিক পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলা হবে। সেই সঙ্গে বিদেশি পর্যটক টানতে গঙ্গাসাগর মেলাক ‘আন্তর্জাতিক মেলা’-র স্বীকৃতি দেওয়া হবে।’’

আমপান ঘূর্ণিঝড়ের পরে বাংলায় ত্রাণ বিলিতে দুর্নীতির অভিযোগ আগেই তুলেছে বিজেপি। এ বার সেই দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে সরব হলেন অমিত। প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের মে মাসে করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই রাজ্যে আছড়ে পড়েছিল অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড় আমপান। তাতে প্রচুর ক্ষয়ক্ষতিও হয়েছিল। তার পরে ত্রাণ ও ক্ষতিপূরণ বিলি নিয়ে প্রচুর অভিযোগ ওঠে। সেই অভিযোগ নিয়ে ইতিমধ্যেই কলকাতা হাইকোর্ট একটি মামলা চলছে। ইতিমধ্যেই তা নিয়ে ‘সিএজি’ তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। এ বার অমিতের প্রতিশ্রুতি, বিজেপি ক্ষমতায় এলে উচ্চপর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠন করবে। বৃহস্পতিবার নামখানায় তিনি বলেন, ‘‘আমপানের টাকা যারা চুরি করেছে, বিজেপি ক্ষমতায় এলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’’ সমাবেশের উদ্দেশে বলেন, ‘‘আপনাদের টাকা যারা খেয়েছে, তাদের জেলের হাওয়া খাওয়াবে বিজেপি।’’

Advertisement