×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১০ মে ২০২১ ই-পেপার

করোনা-কালে চুপিতে পাখি দেখায় নানা বিধি

নিজস্ব সংবাদদাতা
পূর্বস্থলী ১১ নভেম্বর ২০২০ ০০:৪০
পর্যটকের দেখা নেই, পাড়ে দাঁড়িয়ে নৌকা। চুপিতে। নিজস্ব চিত্র

পর্যটকের দেখা নেই, পাড়ে দাঁড়িয়ে নৌকা। চুপিতে। নিজস্ব চিত্র

ঠান্ডা পড়ার সঙ্গে সঙ্গে পূর্ব বর্ধমানের পূর্বস্থলী ২ ব্লকের চুপি পাখিরালয়ে আসতে শুরু করেছে পরিযায়ী পাখির দল। বুধবার থেকে ট্রেন চলাচল শুরুর পরে পর্যটকের ভিড়ও শুরু হবে বলে আশা করছে ব্লক প্রশাসন। করোনা-পরিস্থিতিতে পাখিরালয়ে ভিড় নিয়ে সতর্ক থাকার পাশাপাশি, পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে বেশ কিছু পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে বলে দাবি প্রশাসনের।

ব্লক প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, মাস্ক ছাড়া, কাউকে পাখিরালয়ে ঢুকতে দেওয়া হবে না। দর্শনার্থীদের জন্য রাখা হবে স্যানিটাইজ়ার। এলাকায় ঢোকার আগে ‘থার্মাল গান’-এর সাহায্যে প্রত্যেকের শরীরের তাপমাত্রা মাপা হবে। এলাকায় রয়েছে একটি ‘ওয়াচ টাওয়ার’। সেখানে উঠে অনেকে পাখি দেখেন। বর্তমান পরিস্থিতিতে এক সঙ্গে চার জনের বেশি ওঠার অনুমতি দেওয়া হবে না। শীতে সারা দিন বহু মানুষ নৌকায় চড়ে পাখি পাখি দেখেন। অনেকে নৌকা থেকে ছবি তোলেন। এ বার প্রতি নৌকায় চার জনের ওঠার অনুমতি মিলবে।

পূর্বস্থলী ২ বিডিও সৌমিক বাগচি বলেন, ‘‘করোনা-পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য-বিধি মেনে চলতে হবে পাখিরালয়ে আসা পর্যটকদের। পাখিরালয়ে ‘বার্ড ওয়াচিং ফেস্টিভ্যাল’ করার কথা ভাবা হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে আমরা জেলা প্রশাসনের সঙ্গে শীঘ্রই আলোচনা করব। এ ছাড়া, পর্যটকদের কথা ভেবে পাখিরালয় লাগোয়া বাগানটি আরও উন্নত করার চেষ্টা চলেছে।’’

Advertisement

ট্রেন চলতে শুরু করায় আশার আলো দেখছেন পাখিরালয়ের নৌকা চালকেরা। তাঁরা জানান, শীতের শুরু থেকেই ঘণ্টা পিছু দেড়শো টাকা ভাড়ায় পর্যটকদের পাখি দেখাতে নিয়ে যান। এ বার এখনও পর্যন্ত লোকজনের দেখা নেই। গোরাচাঁদ বারুই নামে এক নৌকা মালিক বলেন, ‘‘ট্রেন না চলায় এত দিন একেবারে বসে দিন কাটাতে হচ্ছিল। আশা করছি, বুধবার থেকে ধীরে-ধীরে লোকজন আসবেন।’’

Advertisement